Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার, ২৫ আগস্ট ২০১৯, ১০ ভাদ্র ১৪২৬, ২৩ যিলহজ ১৪৪০ হিজরী।

ভালুকায় ধর্ষণ মামলার আসামী ‘বন্ধুকযুদ্ধে’ নিহত

ভালুকা (ময়মনসিংহ) উপজেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ৯ জুলাই, ২০১৯, ১০:২৩ এএম

ময়মনসিংহের ভালুকায় স্কুল ছাত্রী ধর্ষণ মামলার দুই আসামীর মধ্যে একজন সোমবার রাতে উপজেলার হাতিবেড় গ্রামে ভালুকা মডেল থানা পুলিশের সঙ্গে কথিত বন্ধুক যুদ্ধে নিহত হয়েছেন।


ভালুকা মডেল থানার ওসি মাইন উদ্দিন জানান,সোমবার রাতে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পারেন, উপজেলার হাতিবেড় গ্রামে একদল লোক ডাকাতির প্রস্তুতি নিচ্ছেন।পরে মধ্য রাতে সেখানে পুলিশ অভিযানে যায় । পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে ডাকাতেরা গুলি বর্ষন করলে আত্মরক্ষার্থে পুলিশও পাল্টা গুলি করে। একপর্যায়ে তারা পালিয়ে যায়। পরে ওই এলাকা তল্লাশীর সময় একজনকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখা যায়।গুরুতর আহত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হলে জরুরী বিভাগের চিকিৎসকেরা ভালুকা উপজেলার কৈয়াদি গ্রামের জাবেদ আলীর ছেলে সাইফুল ইসলাম (৪০)কে মৃত ঘোষণা করেন।এই ঘটনায় চার পুলিশের সদস্য আহত হয়েছে।তাদেরকে ভালুকা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। ঘটনাস্থল হইতে একটি পাইপগান সহ বেশ কিছু দেশীয় অস্ত্র উদ্ধার করা হয়েছে। নিহত ব্যক্তির নামে গণধর্ষণ মামলা রয়েছে।


উল্লেখ্য, গত ১৬ জুন সকালে উপজেলার এক ছাত্রী বিদ্যালয়ে যাচ্ছিল। পথের মধ্যে সাইফুল ও রমজান নামের দুই ব্যক্তি পেছন থেকে মেয়েটিকে জাপটে ধরে পাশের জঙ্গলে নিয়ে যান। এ সময় তাঁরা ওই ছাত্রীর গলায় ছুরি ধরে হত্যার ভয় দেখিয়ে ধর্ষণ করেন ও ওই ঘটনার ভিডিও করেন। ঘটনাটি কাউকে জানালে অ্যাসিড নিক্ষেপ করা হবে, এমন ভয় দেখিয়ে মেয়েটিকে ছেড়ে দেন তাঁরা। পরে গত ২৪ জুন পরীক্ষা দিতে একই রাস্তা দিয়ে বিদ্যালয়ে যাচ্ছিল ওই ছাত্রী। এ সময় তাঁরা ধর্ষণের ভিডিও সামাজিক মাধ্যমে ছড়িয়ে দেবেন হুমকি দিয়ে আবারও ধর্ষণের চেষ্টা করেন। এরপর রোববার ওই মেয়ে নিজে বাদী হয়ে সাইফুল ও রমজানকে আসামি করে ভালুকা মডেল থানায় মামলা করে। সপ্তাহের বেশি পাড় হলেও কাউকে আটক করতে পারেনি পুলিশ। এর পর নিন্দার ঝড় উঠে ভালুকা উপজেলার সর্বত্র মহলে।পরে ধর্ষণ মামলার ওই দুই আসামিকে ধরিয়ে দিতে গত রোববার লাখ টাকা পুরস্কারের ঘোষণা দেন স্থানীয় সাংসদের স্ত্রী ও সোনা উল্লাহ উচ্চ বিদ্যালয়ের সভাপতি জেসমিন এরশাদ।এরপর সোমবার রাতেই এক আসামী কথিত বন্ধুক যুদ্ধে নিহত হলেন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: বন্দুকযুদ্ধ


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ