Inqilab Logo

ঢাকা, সোমবার ২২ জুলাই ২০১৯, ০৭ শ্রাবণ ১৪২৬, ১৮ যিলক্বদ ১৪৪০ হিজরী।

প্রশ্ন : কালোবাজারী ও চোরাচালানের মাধ্যমে পয়সা কামাই করা শরীয়তে বৈধ কি-না, এ সব পয়সা মসজিদ মাদ্রাসার জন্য গ্রহণ করা জায়েজ হবে কি?

মনসুর আহমাদ
ইমেইল থেকে

প্রকাশের সময় : ১০ জুলাই, ২০১৯, ৭:৩৫ পিএম

উত্তর : দেশ ও জাতির জন্য ক্ষতিকর কোনো পন্থায় তথা সরকারী কর ফাঁকি দিয়ে চোরাচালান বা কর্তৃপক্ষের নিয়ন্ত্রণ ভেঙ্গে কালোবাজারী করা ইসলামসম্মত নয়। এ ধরনের কোনো কাজ করা ক্ষেত্র বিশেষে, তাকওয়ার পরিপন্থী, কখনো মাকরুহ আর কখনো বা হারাম। সুতরাং সুনির্দিষ্টভাবে বিষয়টি সম্পর্কে অবহিত হয়ে শরীয়তের বিজ্ঞ ব্যাখ্যাদাতাগণ সঠিক রায় দিতে পারবেন। হারাম উপায়ে অর্জিত টাকা-পয়সা দান করে কোনো সওয়াব আশা করা যায় না। হারাম উপায়ে অর্জিত টাকা-পয়সা কেউ মসজিদে বা মাদ্রাসায় দান করলে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের জন্য তা গ্রহণ করা অবৈধ হবে না। যে সচেতনভাবে এসব দান করলো, তার ওপরই এসবের সকল দায়-দায়িত্ব বর্তাবে। কারণ, কোনো ভিক্ষুক, শ্রমিক বা সমাজকর্মীর জন্য যে পারিশ্রমিক বা দান লাভ করা বৈধ হয়, তার উৎস সন্ধান করা সংশ্লিষ্ট গ্রহীতার জন্য অপরিহার্য নয়। এ ক্ষেত্রে পবিত্র ও হালাল অর্থ-সম্পদ প্রদান করা দাতারই কর্তব্য। 

সূত্র : জামেউল ফাতাওয়া, ইসলামী ফিক্হ ও ফাতাওয়া বিশ্বকোষ।
উত্তর দিয়েছেন : আল্লামা মুফতি উবায়দুর রহমান খান নদভী

ইসলামিক প্রশ্নোত্তর বিভাগে প্রশ্ন পাঠানোর ঠিকানা
inqilabqna@gmail.com



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: প্রশ্ন


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ