Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৫ অক্টোবর ২০১৯, ৩০ আশ্বিন ১৪২৬, ১৫ সফর ১৪৪১ হিজরী

আলোচনার দরজা এখনো খোলা আছে : যুক্তরাষ্ট্র

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১২ জুলাই, ২০১৯, ১২:০৫ এএম

নিজেরা পরমাণু চুক্তি থেকে বেরিয়ে গিয়ে এবং ইরানবিরোধী নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেও যুক্তরাষ্ট্র অভিযোগ করছে, চুক্তি লঙ্ঘনের মধ্য দিয়ে তেহরান অন্যায্য দাবি প্রতিষ্ঠার প্রচেষ্টা চালাচ্ছে। এর মধ্য দিয়ে তেহরান আন্তর্জাতিক পরিমÐলে নিজেই নিজেকে বিচ্ছিন্ন করে ফেলছে বলেও মন্তব্য করেছে দেশটি। তবে যুক্তরাষ্ট্র বলছে, ওয়াশিংটন-তেহরান আলোচনার দরজা এখনও খোলা আছে। পরমাণু চুক্তি থেকে যুক্তরাষ্ট্রের বেরিয়ে যাওয়া এবং নিজেদের প্রতিশ্রæতি পালনে ইউরোপীয় দেশগুলোর ব্যর্থতার বিরুদ্ধে ক্ষোভ জানিয়ে এ বছরের মে মাসে তেহরান চুক্তি থেকে আংশিক সরে আসার ঘোষণা দেয়। ইউরোপীয় ইউনিয়নকে সমঝোতা বাস্তবায়নের জন্য দুই মাসের সময়সীমা বেঁধে দেওয়া হয়। পারমাণবিক চুক্তির শর্ত থেকে আবারও ইরানের সরে আসার ঘোষণায় জরুরি বৈঠক করার জন্য আন্তর্জাতিক আণবিক শক্তি সংস্থা (আইএইএ)-এর প্রতি অনুরোধ জানায় যুক্তরাষ্ট্র। বুধবার সে বৈঠক ডাকা হয়। আন্তর্জাতিক আণবিক শক্তি সংস্থার বৈঠকে যুক্তরাষ্ট্রের দেওয়া বিবৃতিতে বলা হয়, ‘ইরানের পারমাণবিক কর্মসূচি বিস্তৃত করার কোনও যৌক্তিক কারণ নেই। একে আন্তর্জাতিক স¤প্রদায়ের কাছ থেকে অতিরিক্ত অর্থ আদায়ের স্পষ্ট ও বাজে এক প্রচেষ্টা ছাড়া অন্য কিছু ভাবার সুযোগ নেই।’ বিবৃতিতে আরও বলা হয়, ‘স¤প্রতি ঘোষিত পারমাণবিক পদক্ষেপ সরে আসতে এবং ভবিষ্যতের সমৃদ্ধকরণ পরিকল্পনা বাতিল করতে আমরা ইরানকে আহŸান জানাচ্ছি। যুক্তরাষ্ট্র স্পষ্ট করছে যে, কোনও ধরনের পূর্বশর্ত ছাড়াই আমরা আলোচনার পথ খোলা রেখেছি। সম্পর্ক পুরোপুরি স্বাভাবিক করার সম্ভাব্যতা নিয়ে আলোচনার জন্য ইরানকে প্রস্তাব দিচ্ছি।’ ২০১৫ সালের জুনে ভিয়েনায় ইরানের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, ফ্রান্স, রাশিয়া, চীন ও জার্মানির স্বাক্ষরিত চুক্তি অনুযায়ী ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধকরণ কার্যক্রম চালিয়ে গেলেও পারমাণবিক অস্ত্র তৈরি না করার প্রতিশ্রæতি দেয় তেহরান। পূর্বসূরি ওবামা আমলে স্বাক্ষরিত এই চুক্তিকে ‘ক্ষয়িষ্ণু ও পচনশীল’ আখ্যা দিয়ে গত বছরের মে মাসে তা থেকে যুক্তরাষ্ট্রকে প্রত্যাহারের ঘোষণা দেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। ২০১৮ সালের নভেম্বরে তেহরানের ওপর মার্কিন নিষেধাজ্ঞা পুনর্বহাল হয়। এদিকে ইউরোপীয় দেশগুলো এ সমঝোতা বাস্তবায়নের কথা মুখে বললেও কার্যত তারা কোনও পদক্ষেপ নেয়নি বলে অভিযোগ করে আসছে ইরান। রয়টার্স, সিএনএন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: যুক্তরাষ্ট্র


আরও
আরও পড়ুন