Inqilab Logo

ঢাকা, শনিবার, ২৪ আগস্ট ২০১৯, ০৯ ভাদ্র ১৪২৬, ২২ যিলহজ ১৪৪০ হিজরী।

আটকের পর বন্দুকযুদ্ধে নিহত মাদক কারবারী

টেকনাফ (কক্সবাজার) উপজেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ১৪ জুলাই, ২০১৯, ২:৩৫ পিএম

কক্সবাজারের টেকনাফে পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ এক মাদক কারবারী নিহত হয়েছেন। এ সময় ২টি দেশীয় আগ্নেয়াস্ত্র, ১০ রাউন্ড কার্তুজ ও ৫ হাজার পিস ইয়াবা উদ্ধার করা হয়।
গতকাল শনিবার রাতে আটকের পর আজ রোববার ভোর রাতে উপজেলার হোয়াইক্যং ইউনিয়নের নয়াপাড়া বালিকা মাদরাসার পেছনে নাফ নদীর পাড়ে ‘বন্দুকযুদ্ধের’ এ ঘটনা ঘটে।
নিহত মুফিদ আলম (৩৮) টেকনাফ উপজেলার হোয়াইক্যং ইউনিয়নের নয়াপাড়া এলাকার নজির আহম্মদের ছেলে। তিনি চিহ্নিত মাদক কারবারি বলে দাবি করেছেন টেকনাফ মডেল থানার ওসি প্রদীপ কুমার দাশ।
তিনি বলেন, ‘শনিবার রাতে এএসআই অহিদের নেতৃত্বে একদল পুলিশ মাদক উদ্ধার অভিযানের সময় হোয়াইক্যং নয়াপাড়া বাজার এলাকা থেকে মুফিদ আলমকে আটক করে। পরে তার স্বীকারোক্তি মোতাবেক আমার নেতৃত্বে পুলিশের টিম হোয়াইক্যং নয়াপাড়া বালিকা মাদরাসার পেছনে নাফ নদীর পাশে ইয়াবা উদ্ধারে যায়। এ সময় মাদক ব্যবসায়ীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি চালায়।’
তিনি আরও বলেন, ‘আত্মরক্ষার্থে পুলিশও পাল্টা গুলি চালায়। কিছুক্ষণ গুলিবিনিময়ের পর মাদক ব্যবসায়ীরা পালিয়ে যায়। পরে ঘটনাস্থল থেকে অস্ত্র, গুলি ও ইয়াবাসহ গুলিবিদ্ধ অবস্থায় মুফিদকে প্রথমে টেকনাফ উপজেলা হাসপাতালে নেয়া হয়। সেখানে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে জেলা সদর হাসপাতালে পাঠানো হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। ময়নাতদন্তের জন্য লাশ কক্সবাজার সদর হাসপাতাল মর্গে রাখা হয়েছে।’
ওসি বলেন, মুফিদ আলমের বিরুদ্ধে মাদক, অস্ত্রসহ একাধিক মামলা রয়েছে। বন্দুকযুদ্ধের ঘটনায় আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: বন্দুকযুদ্ধ


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ