Inqilab Logo

ঢাকা, সোমবার, ২৬ আগস্ট ২০১৯, ১১ ভাদ্র ১৪২৬, ২৪ যিলহজ ১৪৪০ হিজরী।

ইংল্যান্ডের দুর্দান্ত বোলিং

স্পোর্টস রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১৫ জুলাই, ২০১৯, ১২:০৪ এএম

মনস্তাত্তি¡ক লড়াইয়ে ইংল্যান্ডকে প্রথমে কী একটা আঘাতটাই না দিলেন নিউজিল্যান্ড অধিনায়ক। লন্ডনে সকালে হয়েছে এক পলশা বৃষ্টি। এরপর লর্ডসের হোম অব ক্রিকেটে মেঘের ফাঁকে আকাশে উঁকি দিয়েছে রোদ। প্রথমে বল করা দলের পক্ষেই ছিল কন্ডিশন। কিন্তু বিশ্বকাপের ফাইনালে কেন উইলিয়ামসন বেছে নিলেন ব্যাট। আগের তিন ফাইনালে কোন বারই যে রান তাড়া করতে গিয়ে জিততে পারেনি ইংল্যান্ড!

আগে পারেনি বলে এবারও যে পারবে না এর কোনো নিশ্চয়তা নেই। কিন্তু জয় পরাজয়ের প্রশ্নে মনস্তাত্তি¡ক লড়াইয়েও তো জেতা চাই। তাতেই হয়ত এগিয়ে থাকতে চাইলেন উইলিয়ামসন। ব্যাটসম্যানদের কঠিন পরীক্ষা জেনেও নিলেন ব্যাট। কিন্তু ইংলিশ বোলারদের তার দল চ্যালেঞ্জ জানাতে পারল কই। প্রথমবারের মত বিশ্বকাপের ট্রফিতে চুমু আঁকতে নিউজিল্যান্ডের পুঁজি মাত্র ২৪১ রান। সামনে ইংল্যান্ডের শক্তিশালী ব্যাটিং লাইন-আপ।

প্রথমের স্বপ্নে বিভোর ইংল্যান্ডও। তবে অন্য দিনের মত ইয়ন মরগানের দলের শুরুটা এদিন উড়ন্ত হতে দেননি ম্যাট হেনরি। ইনিংসের প্রথম বলেই নিউজিল্যান্ডের রিভিউয়ের হাত থেকে বেঁচে যাওয়া জেসন রয় দলীয় ২৮ রানে ফেরেন উইকেটের পিছনে ক্যাচ দিয়ে। এই রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত স্বাগতিকদের সংগ্রহ ১৩ ওভারে ১ উইকেটে ৪২ রান।
দিনের শুরুতে চমক দেন কিউই দলপতি। ফাইনালের মত ম্যাচে হয়ত পরে ব্যাটিং করার চাপটা নিতে চাননি নিউজিল্যান্ড অধিনায়ক। তাছাড়া এবারের বিশ্বকাপ তো বটেই লর্ডসের অতীত ফাইনালও প্রথমে ব্যাট করা দলের পক্ষে। অবশ্য শুরুটা কিউইদের পক্ষে ছিল না।

শুরুর সেই ধাক্কা সামলে এদিনও দলকে পথ দেখিয়েছেন উইলিয়ামসন। তবে সাবধানী ইনিংসটা লম্বা করতে পারেননি। মন্থর উইকেটে রানের জন্য লড়াই করতে হয়েছে বাকি ব্যাটসম্যানদেরও। ইনিংসে ফিফটি মাত্র একটি, হেনরি নিকোলসের। বাকিদের ছোট ছোট অবদানে নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৮ উইকেটে ২৪১ রান তোলে নিউজিল্যান্ড। ফাইনালে এর চেয়ে কম পুঁজি নিয়ে জয়ের রেকর্ড একবারই। ১৮৩ রানের মামুলি সংগ্রহ নিয়েও সেবার বিশ্বকাপ জিতেছিল ভারত।

টুর্নামেন্ট জুড়ে ভালো কিছু আসেনি নিউজিল্যান্ড ওপেনারদের কাছ থেকে। নতুন বলে ক্রিস ওকস আর জোফরা আর্চারের মত টুর্নামেন্টের অন্যতম সেরা বোলিং জুটিকে সামলানো ছিল মার্টিন গাপটিল ও হেনরি নিকোলসের বড় চ্যালেঞ্জ। গতির সঙ্গে লাইন লেন্থ ও সুইংয় আদায় করে কিউইদের শুরু থেকেই চাপে রাখেন ওকস ও আর্চার। কিউইদের নজর ছিল উইকেট আগলে রাখার দিকে। কিন্তু শেষ পর্যন্ত এবারও ব্যর্থ গাপটিল। ২০১৫ বিশ্বকাপে যার ব্যাটে ছিল ঝড় সেই ওপেনারের ব্যাট থেকে এবারের আসরে এসেছে মাত্র একটি ফিফটি, সেটাও প্রথম ম্যাচে। এরপর ব্যর্থতার ধারবাহিকতা ধরে এদিনও হতাশ করেন বিশ্বকাপে সর্বোচ্চ ইনিংসের মালিক। দুই চার ও এক চারে আশা জাগিয়েও ওকসের বলে আউট হন লেগ বিফোরের ফাঁদে পড়ে। এর আগে নিকোলস রিভিউ নিয়ে বাঁচলেও বাঁচতে পারেননি গাপটিল। শুরুর ১০ ওভারে ৩৩ রানে ১ উইকেট হারিয়ে চাপে পড়ে বø্যাক ক্যাপ বাহিনী। এমন দশায় আবারও দলের হাল ধরতে হয় টুর্নামেন্ট জুড়ে দলকে পথ দেখানো উইলিয়ামসনকে। নিকোলসের সঙ্গে দলপতি গড়েন ইনিংস সর্বোচ্চ ৭৪ রানের জুটি। ভালো কিছুর ইঙ্গিত দিয়ে লিয়াম প্লাঙ্কেটের শিকার হন উইলিয়ামসন (৩০)। ১৫ রানের ব্যবধানে নিকোলসও (৫৫) বোল্ড হন প্লাঙ্কেটের বলে। ৩১ বলে রস টেইলরের ১৫ রানের লড়াকু ইনিংস শেষ হয় আম্পায়ারের ভুল সিদ্ধান্তে। মার্ক উডের বল লেগ স্টাম্পের অনেক উপর দিয়ে বেরিয়ে যাচ্ছিল। ইংলিশদের জোরালো আবেদনে আঙ্গুল তুলে দেন দক্ষিণ আফ্রিকান আম্পায়ার মারাইস এরাসমাস। এরপর জেমি নিশাম ও কলিন ডি গ্র্যান্ডহোমকে নিয়ে দুটি ত্রিশোর্ধো জুটিতে নেতৃত্ব দেন টম লাথাম। প্লাঙ্কেটের তৃতীয় শিকার হন নিশাম। মিড অনে তার ক্যাচ দিয়ে বিশ্বকাপের এক আসরে সর্বোচ্চ ক্যাচের রেকর্ডটা বাড়িয়ে নেন জো রুট (১৩)। আগের সর্বোচ্চ ছিল রিকি পন্টিংয়ের (১১টি, ২০০৩)।

লম্বা সময় ক্রিজে থেকেও রানের পালে হাওয়া লাগাতে পারেননি ডি গ্র্যান্ডহোম (২৮ বলে ১৬)। গ্র্যান্ডহোমের পর নিজের পরের ওভারে লাথামকেও ফেরান ওকস। ৫৬ বলে ৪৭ রানের পথে ইনিংসের একমাত্র ছক্কা হাঁকান লাথাম। ৫ উইকেট হাতে নিয়ে শেষ ৫ ওভারে ৩০ রান যোগ করতে পারে নিউজিল্যান্ড। তিনটি করে উইকেট নেন ওকস ও প্লাঙ্কেট, একটি করে আর্চার ও উড।



 

Show all comments
  • Sadia Afrin ১৫ জুলাই, ২০১৯, ১:৩৪ এএম says : 0
    অভিনন্দন নতুন চ্যাম্পিয়ন ক্রিকেটের জন্ম দেশ ইংল্যান্ড , অসামান্য শ্রদ্ধা নিউজিল্যান্ডর প্রতি ও অসাধারণ ফাইট করার জন্য
    Total Reply(0) Reply
  • RS Masud Farbez ১৫ জুলাই, ২০১৯, ১:৩৪ এএম says : 0
    Congratulations to England
    Total Reply(0) Reply
  • Ikbal Hasan ১৫ জুলাই, ২০১৯, ১:৩৪ এএম says : 0
    Great World Cup Final, Congratulations England, Bad Luck New Zealand
    Total Reply(0) Reply
  • Khan Mohammod Rubel ১৫ জুলাই, ২০১৯, ১:৩৫ এএম says : 0
    বিশ্বকাপ ইতিহাসের সেরা ফাইনাল। অভিনন্দন নতুন চ্যাম্পিয়ন ইংল্যান্ড । সমবেদনা ভাল খেলেও হেরে যাওয়া নিউজিল্যান্ডকে।
    Total Reply(0) Reply
  • Rakib Ahmed ১৫ জুলাই, ২০১৯, ১:৩৫ এএম says : 0
    আমার দেখা সেরা ফাইনাল খেলা এটা,, সুপার ওভারের লাস্ট বল পরযন্ত কনফিউশানে ছিলো সবাই,, দারুণ একটা খেলা উপভোগ করলাম
    Total Reply(0) Reply
  • Sudipta K Paik ১৫ জুলাই, ২০১৯, ১:৩৫ এএম says : 0
    Excellent game by Newzealand. Congratulations England
    Total Reply(0) Reply
  • Iftakhir Alam Tanvir ১৫ জুলাই, ২০১৯, ১:৩৬ এএম says : 0
    আইসিসি অদ্ভুত নিয়মের কাছে আজ নিউজিল্যান্ড পরাজিত!!! পরাজিত হয়ে ও নিউজিল্যান্ড জয় করে নিয়েছে মানুষের মন। অভিনন্দন নিউজিল্যান্ড দলকে এতো সুন্দর খেলা উপহার দেয়ার জন্য.
    Total Reply(0) Reply
  • Shamim Ehasan ১৫ জুলাই, ২০১৯, ১:৩৬ এএম says : 0
    New Zealand has played excellent. in any game one side wins and other side lose. that is painful. so i don't play any game.
    Total Reply(0) Reply
  • Kanchan Nath ১৫ জুলাই, ২০১৯, ১:৩৬ এএম says : 0
    congratulations England Cricket Team
    Total Reply(0) Reply
  • Diganta Shakil ১৫ জুলাই, ২০১৯, ১:৩৬ এএম says : 0
    খেলা ত ইংল্যান্ড আর নিউজিল্যান্ড এর হয়নি। ভাগ্যের সাথে ভাগ্যের খেলা হয়েছে। অভিনন্দন নতুন চ্যাম্পিয়ন ইংল্যান্ড।
    Total Reply(0) Reply
  • Nazrul Islam ১৫ জুলাই, ২০১৯, ১:৩৭ এএম says : 0
    ১৯৮৩ থেকে ক্রিকেট খেলা দেখি। প্রথমবারের মত দেখলাম কেবল একটি খেলোয়াড়ের জন্য একটা দল হেরে যায়। সেই হতভাগাটি হল বোল্ট। সারাজীবনের অর্জন সে আজ কবর দিয়ে গেল। সবশেষে দু'দলকেই অভিনন্দন ভাল খেলার জন্য।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: বিশ্বকাপ ক্রিকেট

১৬ জুলাই, ২০১৯
১৫ জুলাই, ২০১৯

আরও
আরও পড়ুন