Inqilab Logo

ঢাকা, সোমবার, ১৯ আগস্ট ২০১৯, ০৪ ভাদ্র ১৪২৬, ১৭ যিলহজ ১৪৪০ হিজরী।
শিরোনাম

গোনাহ মাফের তিন আমল

আল্লামা আব্দুল কুদ্দুছ | প্রকাশের সময় : ১৬ জুলাই, ২০১৯, ১২:০৪ এএম

হযরত আবু হুরায়রা রাযি. থেকে বর্ণিত, রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেন, আমি কি তোমাদের এমন পথ দেখিয়ে দেবো, যার দ্বারা আল্লাহ তায়ালা তোমাদের গোনাহ ক্ষমা করে দেবেন এবং আখেরাতে তোমাদের মর্যাদা বৃদ্ধি করবেন?

সাহাবায়ে কেরাম বললেন, অবশ্যই দেখিয়ে দিন হে আল্লাহর রাসূল। রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বললেন, কষ্টের সময় ভালোভাবে অজু করা। বেশি বেশি মসজিদে গমন করা। এক নামাজের পর অন্য নামাজের জন্য অপেক্ষা করা। - জামে তিরমিযী : ৫১।

যে তিনটি আমলের কথা রাসূল বলেছেন তা হলো,
এক. কষ্টের সময় ভালোভাবে অজু করা। কষ্টটা দুই ধরনের হতে পারে। শারীরিক কষ্ট ও মানসিক কষ্ট। শারীরিক কষ্ট যেমন, কেউ অসুস্থ হয়ে পড়ল। এ সময়ে অজু করতে কষ্ট হয়। মানসিক কষ্ট যেমন, কেউ এমন জায়গায় গেল যেখানে অজু করার মতো পানি নেই। পানি কিনে অজু করতে হবে। এ অবস্থায় অজু করলে টাকা ব্যয় হবে বিধায় মনে কষ্ট লাগতে পারে।

অপর এক হাদিসে এসেছে, রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেন, যখন কোনো মুমিন বান্দা অজু শুরু করে এবং তার চেহারা ধৌত করে তখন পানির ফোঁটার সঙ্গে তার চোখের দৃষ্টির কারণে যে গোনাহ হয়েছে তা ঝরে পড়ে যায়। যখন সে হাত ধৌত করে তখন পানির ফোঁটার সঙ্গে তার হাতের গোনাহ ঝরে যায়। এভাবে গোনাহ মাফ হতে হতে অজু শেষে সে গোনাহ থেকে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন হয়ে বেরিয়ে আসে। - জামে তিরমিযী : ০২।
দুই. বেশি বেশি মসজিদে গমন করা। মসজিদের পথে অধিক পরিমাণ যাতায়াত করাও একটি গুরুত্বপূর্ণ ও ফজিলতপূর্ণ আমল। হযরত আবু হুরায়রা রাযি. থেকে বর্ণিত, রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেন, যে ব্যক্তি উত্তমরূপে অজু করে নামাজের উদ্দেশ্যে মসজিদের দিকে রওনা করে, তার প্রতিটি কদমে একটি করে মর্যাদা বৃদ্ধি করা হয় এবং একটি করে গোনাহ মাফ করা হয়। - সহিহ বুখারী : ৬৪৭।

তিন. এক নামাজের পর অন্য নামাজের জন্য অপেক্ষা করা। এ অপেক্ষা দুইভাবে হতে পারে। প্রথমত, মসজিদে বসে বসে পরবর্তী নামাজের জন্য অপেক্ষা করা। যেমন, কেউ আসরের নামাজ পড়ার পর মসজিদে বসে মাগরিবের নামাজ পড়ার জন্য অপেক্ষা করতে লাগল। দ্বিতীয়ত, কেউ নিজ প্রয়োজনে নামাজ পড়ে বের হয়ে গেল। কিন্তু তার মনে মনে এ ফিকির থাকে, কখন আজান হবে আবার মসজিদে ছুটে যাবো। এভাবে নামাজের পর ঘরে ফিরে এসেছে তবুও তার মন পড়ে থাকল মসজিদে, কখন আজান হবে আর আমি মসজিদে চলে যাবো। এটাও এক নামাজের পর অন্য নামাজের জন্য অপেক্ষা করার অন্তর্ভুক্ত।

উল্লিখিত এ তিনটি আমল যেগুলো দ্বারা আল্লাহ তায়ালা গোনাহ মাফ করেন তার সবগুলোই নামাজের পূর্বের আমল। অজু করা, মসজিদে আসা ও নামাজের অপেক্ষা করা। নামাজের পূর্ববর্তী আমলের যদি এ ফজিলত হয়, তাহলে নামাজের কী ফজিলত হবে। আল্লাহ তায়ালা আমাদের এ তিনটি আমল ও নামাজ গুরুত্বসহ আদায় করার তাওফিক দান করুন।



 

Show all comments
  • মনির হাসান ১৬ জুলাই, ২০১৯, ২:৪৬ এএম says : 0
    আবু হুরায়রা (রা.) থেকে বর্ণিত। রসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন, ‘যে ব্যক্তি প্রত্যেক নামাজের পর তেত্রিশবার সুবহানাল্লাহ, তেত্রিশবার আলহামদুলিল্লাহ, তেত্রিশবার আল্লাহু আকবার পড়ে এবং একশবার পূর্ণ করার জন্য একবার — লা ইলাহা ইল্লাল্লাহু ওয়াহদাহু লা শারিকা লাহু লাহুল মুলকু ওয়া লাহুল হামদু ওয়া হুয়া আলা কুল্লি শাইইন কাদির — পড়ে তার সব গুনাহ মাফ করে দেওয়া হয় যদিও তা সাগরের ফেনাপুঞ্জের সমান হয়।’ (মুসলিম)।
    Total Reply(0) Reply
  • Mohi Uddin ১৬ জুলাই, ২০১৯, ২:৪৭ এএম says : 0
    আবু মুসা (রা.) থেকে বর্ণিত। তিনি বলেন, রসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন, ‘আমি কি তোমাকে জান্নাতের একটি গুপ্তধনের কথা জানাব না। আমি বললাম, অবশ্যই হে আল্লাহর রসুল! তিনি বললেন, তা হলো— লা হাওলা ওয়ালা কুওয়াতা ইল্লা বিল্লাহ’ (বুখারি ও মুসলিম)।
    Total Reply(0) Reply
  • Mustafizur Rahman ১৬ জুলাই, ২০১৯, ২:৪৭ এএম says : 0
    আবু হুরায়রা (রা.) থেকে বর্ণিত। তিনি বলেন, রসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন, ‘আমার কাছে সুবহানাল্লা ওয়াল হামদু লিল্লাহ ওয়া লা ইলাহা ইল্লাল্লাহু ওয়া আল্লাহু আকবার বলা দুনিয়ার সব জিনিসের চেয়ে বেশি প্রিয়।’ (মুসলিম)।
    Total Reply(0) Reply
  • Mirza Anik Hasan ১৬ জুলাই, ২০১৯, ২:৪৮ এএম says : 0
    আর যারা মুসলিম এবং ইসলাম থেকে দূরে সরে গেছে, তারাও যত অন্যায় ও পাপ করুন না কেন, যদি তাওবা করে আর গোনাহ না করার ওয়াদা করে আল্লাহ কাছে ক্ষমা চায় এবং উক্ত হাদিস মোতাবেক আল্লাহর রহমতের উপর ভরসা করে, আশা করা যায়, আল্লাহ তাআলা উম্মাতে মুসলিমাকেও অতীতের সকল গোনাহ ক্ষমা করে দিবেন। আল্লাহ তাআলা আমাদের কবুল করুন। আমিন।
    Total Reply(0) Reply
  • কাওসার আহমেদ ১৬ জুলাই, ২০১৯, ৯:১৯ এএম says : 0
    হে আল্লাহ তুমি আমাদের সকল গোনাহ মাফ করে দাও
    Total Reply(0) Reply
  • আঃ রাজ্জাক ১৬ জুলাই, ২০১৯, ৯:২২ এএম says : 0
    উল্লিখিত এ তিনটি আমল যেগুলো দ্বারা আল্লাহ তায়ালা গোনাহ মাফ করেন, সেগুলো আমাদেরকে নিয়মিত করতে হবে।
    Total Reply(0) Reply
  • সাইদুর রাহমান সাঈদ ১৬ জুলাই, ২০১৯, ১২:৩২ পিএম says : 0
    বর্তমানে তো সব সময় মসজিদ খোলা থাকে না যে কেউ ই্চছা করলেই পরবর্তী নামাজের জন্য মসজিদে অপেক্ষা করতে পারে না।
    Total Reply(0) Reply
  • আবু তালেব বাচ্চু ২৫ জুলাই, ২০১৯, ৩:৫৬ এএম says : 0
    বিছমিল্লাহির রাহমানির রাহিম,, আমি মন্তব্যকারি বিশ্বাসকরি উপরোক্ত ১-৭নং ভায়েরা যাহা বলেছেন,যদি সম্ভব হয় একান্ত ও রাথের শেষ ভাগে সুবে্হ সাদিকের পূর্বে "রাব্বানা দোয়া" (সহিহ জানামতে) "আল্লাহুসুবহানুতায়ালার নিকট জিন্দেগির গুনাহ মাপ,ও পরকালে উৎম জীবন দান চাহিয়া দোয়া প্রার্থনা করা। জাযাক আল্লাহ।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ইসলাম


আরও
আরও পড়ুন