Inqilab Logo

ঢাকা, শুক্রবার, ২৩ আগস্ট ২০১৯, ০৮ ভাদ্র ১৪২৬, ২১ যিলহজ ১৪৪০ হিজরী।

পাহাড় ধসের শঙ্কা

ঝুঁকিপূর্ণ বসতিদের সরিয়ে দিতে অভিযান

সিলেট ব্যুরো : | প্রকাশের সময় : ১৬ জুলাই, ২০১৯, ১২:৩০ এএম


 সিলেট সদর উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় পাহাড়ের পাদদেশে ঝুঁকিপূর্ণভাবে বসতিদের সরিয়ে দিতে অভিযান চালিয়েছে উপজেলা প্রশাসন। গত কয়েকদিনের টানা বৃষ্টিতে সিলেটে পাহাড় ধসের শঙ্কা দেখা দেয়ায় এ অভিযান চালানো হয়।
গতকাল সোমবার সকালে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কাজী মহুয়া মমতাজের নেতৃত্বে এ অভিযান চালানো হয়। এ সময় জেলা প্রশাসনের ম্যাজিস্ট্রেট সুনন্দা রায় ও সহকারী কমিশনার (ভ‚মি) রোজিনা আক্তার উপস্থিত ছিলেন।

সকাল ১০টা থেকে তারা সদর উপজেলার খাদিমপাড়া ইউনিয়নের বহর, টুকের বাজার ইউনিয়নের জাহাঙ্গীর নগর এলাকায় পাহাড়ের পাদদেশে ঝুঁকিপূর্ণভাবে বসবাসকারীদের নিরাপদ স্থানে সরিয়ে নেয়ার জন্য অভিযান পরিচালনা করেন। এ সময় বসবাসকারীদের কয়েক দিনের জন্য আশ্রয় কেন্দ্রে যাওয়ার অনুরোধ জানান তারা।

টুকের বাজার ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শহীদ আহমদ জানান, আমার ইউনিয়নের জাহাঙ্গীর নগর টিলার পাদদেশে ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় বসবাসকারীদের এক ঘণ্টার মধ্যে সরিয়ে যেতে আমরা মাইকিং করেছি। নিরাপদে বসবাসের জন্য আমরা তাদের অনুরোধ জানিয়েছি সেখান থেকে সরে যেতে।

জেলা প্রশাসনের সহকারী কমিশনার (জেএম) সুনন্দা রায় বলেন, শাহপরান এলাকার বহরে অতি ঝুঁকিপূর্ণ ৭টি পরিবারকে পার্শ্ববর্তী কৃষ্ণ গোবিন্দ উচ্চ বিদ্যালয়ের আশ্রয় কেন্দ্রে পাঠানোর প্রক্রিয়া চালাই। তবে তারা আশ্রয় কেন্দ্রে না গিয়ে তাদের আত্মীয়-স্বজনের বাড়িতে গিয়েছেন।
এ ব্যাপারে সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কাজী মহুয়া মমতাজ বলেন, সিলেটে পাহাড় ধসের শঙ্কা থাকায় পাহাড়ের পাদদেশে ঝুঁকিপূর্ণভাবে বসবাসকারীদের জন্য প্রশাসন নিরাপদ আশ্রয় কেন্দ্র চালু করেছে। গতকাল সকালে এসব এলাকায় অভিযান চালিয়ে বসবাসকারীদের আশ্রয় কেন্দ্রে যাওয়ার জন্য বুঝিয়ে বলা হয়। এছাড়া নগরীর জগদিশ টিলা নামে একটি ঝুঁকিপূর্ণ পাহাড়ের খবর পেয়ে সিটি কর্পোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তাকে জানিয়েছেন বলে জানান তিনি।

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ