Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার, ২৫ আগস্ট ২০১৯, ১০ ভাদ্র ১৪২৬, ২৩ যিলহজ ১৪৪০ হিজরী।
শিরোনাম

কুড়িগ্রামে কিশোরীকে ধর্ষনের অভিযোগে বাস চালকের যাবজ্জীবন কারাদন্ড

কুড়িগ্রাম জেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ১৬ জুলাই, ২০১৯, ৭:২৩ পিএম

কিশোরীকে ধর্ষনের অভিযোগে বাস ড্রাইভার মাসুদ রানা (২০) কে যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদন্ড প্রদান করেন জেলা নারী ও শিশু ট্রাইব্যুালের বিজ্ঞ জজ অম্লান কুসুম জিষ্ণু।
নারী ও শিশু আদালতের পাবলিক প্রসিকিউটর এ্যাডভোকেট আব্দুর রাজ্জাক জানান,সাাক্ষ্য-প্রমাণে সন্দেহাতিত ভাবে ধর্ষনের অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় মঙ্গলবার দুপুরে আসামীর অনুপস্থিতিতে মাসুদ রানা’র যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদন্ড এবং ৫০হাজার টাকা অর্থদন্ড অনাদায়ে আরো ৬মাসের সশ্রম কারাদন্ডের আদেশ ঘোষনা করেন বিজ্ঞ বিচারক।
তিনি আরো জানান, কুড়িগ্রাম সদর উপজেলার উত্তর ভেলাকোপা একতা পাড়া গ্রামের সৈয়দ আলীর কিশোরী কন্যা (১৫) রতনা পারভীনকে প্রতিবেশী তোফাজ্জল হকের পুত্র মাসুদ রানা (২০) নানা ভাবে কু-প্রস্তাব দিয়ে আসছিল। এতে সাড়া না দেয়ায় ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠে রানা। ২০০৮ সালের ১০ অক্টোবর ভোর রাতে রতনার শয়ন কক্ষে বেড়া কেটে ভিতরে প্রবেশ করে মাসুদ রানা। পরে ধারালো অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে ইচ্ছার বিরুদ্ধে ধর্ষন করে। এতে গর্ভবতী হয়ে যায় কিশোরী। পরে ধর্ষিতা নিজে বাদি হয়ে ২০০৯ সালের ২৬ জানুয়ারী ২০০০ সালের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন (সংশোধনী-২০০৩) এর ৯/১ ধারায় কোট পিটিশন মামলা দায়ের করে। বিজ্ঞ বিচারক তৎকালিন কুড়িগ্রাম পৌর সভার মেয়র আবু বকর সিদ্দিককে তদন্ত করে প্রতিবেদ দাখিলের নির্দেশ দেন। তদন্ত রিপোর্ট আমলে নিয়ে বিচার কার্যক্রম শুরু হয়। এরই মধ্যে ধর্ষিতা পুত্র সন্তান প্রসব করে। ধর্ষক উচ্চ আদালত থেকে জামিন নিয়ে বীরদর্পে ঘুরতে থাকে। ২৬/০৭/১০সালে সাাক্ষী শুরু হয়। আসামী ঘটনা অস্বীকার করায়। ০৬/০৩/১২ ধর্ষিতার পুত্র সন্তানের ডিএনএ টেষ্ট করা হলে মাসুদ রানার সাথে মিলে যায়। চার্জ গঠন, সাক্ষীর সাক্ষ্য গ্রহন, যুক্তিতর্ক শেষে মঙ্গলবার ছিল রায় ঘোষনার নির্ধারিত তারিখ। এর আগে থেকেই ধর্ষক মাসুদ রানা আতœগোপন করে। ফলে আসামীর অনুপস্থিতিতে মঙ্গলবার প্রকাশ্য আদালতে এ রায় ঘোষিত হয়। আসামী পক্ষে মামলা পরিচালনা করেন, কুড়িগ্রাম আউনজীবী সমিতির সিনিয়র আইনজীবী খোরশেদ আলম আর রাস্ট্র পক্ষে ছিলেন নারী ও শিশু আদালতের পিপি এ্যাডভোকেট আব্দুর রাজ্জাক।
রায় ঘোষনার পর ন্যায় বিচার পাওয়ায় এ মামলার বাদী সন্তুষ্টি প্রকাশ করেন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: যাবজ্জীবন কারাদণ্ড


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ