Inqilab Logo

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২২ আগস্ট ২০১৯, ০৭ ভাদ্র ১৪২৬, ২০ যিলহজ ১৪৪০ হিজরী।

সারা দেশে এইচএসসি পরীক্ষার ফলাফল

ইনকিলাব ডেস্ক : | প্রকাশের সময় : ১৮ জুলাই, ২০১৯, ১২:০৪ এএম

দেশের গতকাল এইচএসসি পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশিত হয়েছে। ৫৫ দিনে ফলাফল হাতে পেয়ে উচ্ছাসিত ছাত্রছাত্রী ও অভিভাবকরা। ফলাফলে এবার কুমিল্লা, বরিশাল, সিলেট, রাজশাহীতে পাশের হার বেড়েছে। জিপিএ ৫ বেড়েছে চট্টগ্রাম বোর্ডে। আমাদের ব্যুরো প্রধানদের পাঠানো রিপোর্ট :
চট্টগ্রাম : এইচএসসি পরীক্ষায় চট্টগ্রাম শিক্ষাবোর্ডে বেড়েছে জিপিএ-৫। স্থিতিশীল রয়েছে পাসের হার। পাসের হার ৬২.১৯ শতাংশ। গত বছর এ সংখ্যা ছিল ৭২.৭৩ শতাংশ। এবার জিপিএ-৫ পেয়েছে ২ হাজার ৮৬০ জন। গত বছর এ সংখ্যা ছিল ১ হাজার ৬১৩ জন। গতকাল (বুধবার) চট্টগ্রাম শিক্ষাবোর্ড হলরুমে পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক মোহাম্মদ মাহাবুব হাসান আনুষ্ঠানিকভাবে এ ফলাফল ঘোষণা করেন।

এ সময় তিনি বলেন, আইসিটি ও ইংরেজি বিষয়ে খারাপ হওয়ায় পাসের হার কিছুটা কমলেও ফলাফল স্থিতিশীল রয়েছে। তিনি জানান, এ বছর চট্টগ্রাম শিক্ষাবোর্ডের অধীনে ৯৮ হাজার ৯২৬ জন পরীক্ষার্থী অংশ নেয়। এর মধ্যে পাস করেছে ৬১ হাজার ৫২৩ জন। এবার শতভাগ পাস করা শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের মধ্যে রয়েছেঃ হালিশহর ক্যান্টনমেন্ট পাবলিক স্কুল অ্যান্ড কলেজ, কোয়ান্টাম কসমো কলেজ ও ফৌজদারহাট ক্যাডেট কলেজ।
চট্টগ্রাম বোর্ডে বিজ্ঞান বিভাগে পাসের হার ৮০.০৯ শতাংশ। মানবিক বিভাগে পাসের হার ৪৮.৬৫ শতাংশ ও ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগে ৬৪.৮০ শতাংশ। ছাত্র পাসের হার ৬৫.১১ শতাংশ, ছাত্রী পাসের হার ৫৯.২১ শতাংশ। পাসের হার শূণ্য এমন কলেজের সংখ্যা একটি।

সেরা ১০ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের মধ্যে প্রথম চট্টগ্রাম কলেজ, দ্বিতীয় হাজী মুহাম্মদ মহসিন কলেজ, তৃতীয় সরকারি সিটি কলেজ, চতুর্থ চট্টগ্রাম ক্যান্টনমেন্ট পাবলিক কলেজ, পঞ্চম সরকারি মহিলা কলেজ, ষষ্ঠ চট্টগ্রাম কমার্স কলেজ।

যশোর : যশোর মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডে এবার এইচএসসি পরীক্ষায় পাসের হার বেড়েছে। পাশের হার ৭৫ দশমিক ৬৫। গত বছর পাশের হার ছিল ৬০ দশমিক ৪। এছাড়া গতবছরের তুলনায় এ বছর জিপিএ-৫ পেয়েছে দ্বিগুনেরও বেশি। এবছর জিপিএ-৫ অর্জন করেছে ৫ হাজার ৩১২ জন। গত বছর যশোর বোর্ডে এ সংখ্যা ছিল ১ হাজার ৯২৭ জন।

যশোরে বোর্ডে এবছর এইচএসসি পরীক্ষায় ১ লাখ ২৬ হাজার ২২৯ জন শিক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশ নিয়ে উত্তীর্ণ হয়েছে ৯৫ হাজার ৪৯৫ জন। এদের মধ্যে ছাত্র ৪৭ হাজার ৪৪২ ও ছাত্রী ৪৮ হাজার ৫৩। পরীক্ষায় বহিস্কৃত হয়েছিল ৬০ জন।

ফল প্রকাশকালে যশোর বোর্ডে এমন ফলাফল প্রসঙ্গে যশোর শিক্ষাবোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক প্রফেসর মাধব চন্দ্র রুদ্র জানান, এবারের ফলাফল সন্তোষজনক। তিনি বলেন, নির্বাচনী পরীক্ষায় উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীরাই চূড়ান্ত পরীক্ষায় অংশ নিয়েছিল। তাই ভাল শিক্ষার্থীরা ফলাফল ভাল করেছে।
যশোর বোর্ডের প্রকাশিত ফলাফল থেকে জানা যায়, এ বছর যশোর বোর্ডে বিজ্ঞান বিভাগ থেকে উত্তীর্ণ হয়েছে ১৮ হাজার ১০০ জন। জিপিএ-৫ পেয়েছে ৩ হাজার ৫৪১ জন। মানবিক বিভাগ থেকে উত্তীর্ণ হয়েছে ৫৮ হাজার ৮৩৫ জন। । এই বিভাগ থেকে জিপিএ-৫ পেয়েছে ১হাজার ৪৩২ জন। ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগের পাস করেছে ২২ হাজার ৬৮০ জন। জিপিএ-৫ পেয়েছে ৩৩৯ জন ছাত্র ছাত্রী।

যশোর মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষাবোর্ডের অধীনে ২০১৯ সালের এইচএসসির ফলাফলে বোর্ডের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের ১০ জেলার মধ্যে শীর্ষ স্থানে রয়েছে খুলনা। খুলনা জেলা থেকে ৮৩ দশমিক ২৫ ভাগ শিক্ষার্থী উত্তীর্ণ হয়ে বোর্ডের ১ম স্থান দখলে নিয়েছে। আর সর্বনিম্নে রয়েছে নড়াইল জেলা। এখান থেকে ৬৯ দশমিক ৪০ ভাগ ছাত্রছাত্রী পাস করেছে।

পাসের দিক থেকে দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে বাগেরহাট জেলা। এখান থেকে পাস করেছে ৭৬ দশমিক ১১ ভাগ শিক্ষার্থী। তৃতীয় অবস্থানে থাকা যশোর জেলার পাসের হার ৭৫ দশমিক ৮৭ ভাগ। চতুর্থ অবস্থানে আছে সাতক্ষীরা জেলা। যশোর মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের এইচএসসির ফলাফলে দেখা যায়, এবার ছেলেদের চেয়ে মেয়েরা এগিয়ে। মেয়েদের পাসের হার ৭৮ দশমিক৭৬ আর ছেলেদের পাসের হার ৭২দশমিক ৭৪।

রাজশাহী : রাজশাহী শিক্ষাবোর্ডে এবার উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষায় পাশের হার ৭৬ দশমিক ৩৮। যা গতবছরের চেয়ে প্রায় দশভাগ বেশি। জিপিএ-৫ পেয়েছে ৬৭২৯ জন। এরমধ্যে ছাত্র ৩৫৪১ জন আর ছাত্রী ৩১৮৮ জন। পরীক্ষায় অংশনেয় ১ লাখ ৪৮ হাজার ৬৭২ জন। উত্তীর্ন হয়েছে ১ লাখ ১৩ হাজার ৫৫০ জন। শুন্য ফল প্রতিষ্ঠানের সংখ্যা সাতটি। ৭৫৮টি কলেজ হতে ১৯৭টি কেন্দ্রে এসব পরীক্ষার্থী অংশ নিয়েছিল। বহিস্কার হয়েছে সাত জন। এবারো পাশের হারে এগিয়ে মেয়েরা। ছাত্রীদের পাশের হার ৮১ দশমিক ২১ শতাংশ। আর ছেলেরা পাস করেছে ৭২ দশমিক ৩২ শতাংশ। বুধবার দুপুরে রাজশাহী মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের সম্মেলন কক্ষে সংবাদ সম্মেলনে ফলাফল ঘোষণা করেন পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক প্রফেসর ড. আনারুল হক। এবার রাজশাহী বোর্ডে পাসের হারে শীর্ষে রয়েছে রাজশাহী জেলা। আর জিপিএ-৫ প্রাপ্তিতে এগিয়ে বগুড়া জেলা। এবার রাজশাহী জেলায় পাসের হার ৮২ দশমিক ৭৪ শতাংশ এবং জিপিএ-৫ পেয়েছে ২ হাজার ১২৪ জন। চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলায় পাসের হার ৬৮ দশমিক ৬৩ শতাংশ এবং জিপিএ-৫ পেয়েছে ২৩৫ জন।

মেয়রের শুভেচ্ছা
এইচএসসি পরীক্ষায় উর্ত্তীর্নদের অভিনন্দন জানিয়েছেন রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন।

বরিশাল : বরিশাল শিক্ষা বোর্ডের এবারের উচ্চ মাধ্যমিকের ফলাফলে পাশের হার গত বছরের তুলনায় দশমিক ১০ভাগ বৃদ্ধি পেয়েছে। জিপিএ-৫ প্রাপ্তির হারও গত কয়েকটি বছরের মধ্যে কিছুটা উন্নতি লাভ করলেও তা এখনো ২ শতাংশের-এর নিচে। বরিশাল শিক্ষাবোর্ডর ৬টি জেলায় এবার জিপিএ-৫ নিয়ে পাশের হার মাত্র ১.৮৯ শতাংশ। এবারো দক্ষিণাঞ্চলের জেলাগুলোতে উচ্চ মাধ্যমিকের ফলাফলে ছেলেদের তুলনায় মেয়েরা ১০% বেশী পাশ করে আশার আলো দেখাচ্ছে। বরিশাল ক্যাডেট কলেজের ৪৯ ছাত্রই জিপিএ-৫ পেয়ে উত্তীর্ণ হয়েছে।

এবারো বরিশাল শিক্ষা বোর্ডে বিজ্ঞান বিভাগের জয়জয়কার। এ বিভাগে পাশের হার বোর্ডের গড় পাশের চেয়ে ১০%-এরও বেশি। দীর্ঘদিন পরে বরিশাল জেলা পাশের হারে বোর্ডের শীর্ষস্থান দখল করেছে। জেলাটিতে গড় পাশের হার ৭৪.১৭%। পরের অবস্থান ভোলা জেলার। গড় পাশের হার ৭৩.২৯%। ৬৯.৫৩% পাশ করে পিরোজপুরের অবস্থান তৃতীয়।

ময়মনসিংহ : এবারের এইচএসসি পরীক্ষার ফলাফলে ময়মনসিংহ শহরের সেরা ৮টি কলেজ থেকে জিপিএ ফাইভ পেয়েছে এক হাজার ৪৮ জন পরীক্ষার্থী। সাফল্যময় ফলাফলে শিক্ষার্থীরা ক্যাম্পাসে নেচে গেয়ে আনন্দ-উল্লাস করে। এ সময় তাদের সাথে যোগ দেন কলেজের শিক্ষকমন্ডলীরাও।

জানাযায়, ময়মনসিংহ গার্লস ক্যাডেট কলেজ থেকে ৫০ জন শিক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে শতভাগ পাসের মাধ্যমে জিপিএ ৫ পেয়েছে ৪১ জন। ৯৯ দশমিক ৪৩ পাশের হার নিয়ে দ্বিতীয় অবস্থানে ক্যান্ট. পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজ। এছাড়া শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলাম কলেজ থেকে ১,২৭২ জন শিক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশগ্রহন করে পাস করেছে ১,২৫৮ জন। এরমধ্যে জিপিএ ৫ পেয়েছে ৩২৫ জন। পাশের হার ৯৮ দশমিক ৯০।
সিলেট : এইচএসসি পরীক্ষায় শতভাগ পাশের তালিকায় রয়েছে সিলেটে এবার ৭ টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। অন্যদিকে শূন্যভাগ পাস করা প্রতিষ্ঠান একটিও নেই। সিলেট শিক্ষা বোর্ড থেকে পাওয়া ফলাফল পরিসংখ্যান থেকে এমন তথ্য পাওয়া গেছে। পরিসংখ্যানে দেখা যায়, ২০১৪ সাল থেকে ২০১৯ সাল, এই ছয় বছরের মধ্যে ২০১৮ সালে শুধুমাত্র ২টি প্রতিষ্ঠানের কোনো শিক্ষার্থীই পরীক্ষায় পাস করতে পারেনি। এদিকে, গত ৫ বছরের মধ্যে ২০১৪ সালে ১০টি, ২০১৫ সালে ১৩টি, ২০১৬ সালে ৫টি, ২০১৭ সালে ৮টি এবং ২০১৮ সালে ১০টি প্রতিষ্ঠানে পাসের হার ছিল শতভাগ।

কুমিল্লা : কুমিল্লা শিক্ষাবোর্ডে এবার উচ্চ মাধ্যমিক সার্টিফিকেট (এইচএসসি) পরীক্ষায় বেড়েছে পাসের হার ও জিপিএ-৫। গতকাল বুধবার ঘোষিত ফলাফলে এ বোর্ডের সম্মিলিত পাসের হার ৭৭.৭৪ শতাংশ এবং জিপিএ-৫ পেয়েছে ২ হাজার ৩৭৫ জন।
গত বছর এ বোর্ডে পাসের হার ছিল ৬৫.৪২ ও জিপিএ-৫ পেয়েছিল ৯৪৪ জন। এবার বোর্ডের আওতাধীন ৬টি জেলার ৩৮৬টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ৩০টি প্রতিষ্ঠানে শতভাগ শিক্ষার্থী উত্তীর্ণ হয়েছে এবং ৩টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের কোনো শিক্ষার্থী পাস করেনি। এছাড়া জেলাভিত্তিক ফলাফল বিশ্লেষণে এ বোর্ডের অধীন জেলাগুলোর মধ্যে ৮৬.৮৭ শতাংশ পরীক্ষার্থী উত্তীর্ণ হয়ে চাঁদপুর জেলা শীর্ষ অবস্থানে এবং ৮২.৯০ শতাংশ পরীক্ষার্থী উত্তীর্ণ হয়ে দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে কুমিল্লা জেলা।

দিনাজপুর : এবারের এইচএসসি পরীক্ষায় মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড দিনাজপুরে পাশের হার ৭১ দশমিক ৭৮ ভাগ। বোর্ড থেকে জিপিএ প্রাপ্ত ছাত্র-ছাত্রীর সংখ্যা চার হাজার উনপঞ্চাশ জন। এর মধ্যে ছাত্র দুই হাজার ২৭২ ও ছাত্রীর সংখ্যা হচ্ছে এক হাজার ৭৭৭ জন। এবার পাশের হারে ছাত্রীরা এগিয়ে থাকলেও জিপিএ প্রাপ্তিতে ছাত্ররা এগিয়ে রয়েছে। দুপুরে মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড কার্যালয়ে পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক প্রফেসর মো. তোফাজ্জুর রহমান সাংবাদিক সম্বেলনের মাধ্যমে ফলাফল ঘোষণা করেন। এবারে সাতটি কলেজ থেকে একজন শিক্ষার্থীও পাশ করতে পারেনি। শতকরা পাশের হারের কলেজ সংখ্যা হচ্ছে ২০টি।

বগুড়া : ধারাবাহিক সাফল্যের স্বাক্ষর রেখে সদ্য ঘোষিত এইচএসসি পরীক্ষার ফলাফলে দেখো গেছে , জিপিএ-৫ প্রাপ্তির ক্ষেত্রে রাজশাহী শিক্ষা বোডের মর্ধ্যে বগুড়া তার শীর্ষ অবস্থান ধরে রেখেছে। তবে পাশের হারে বিগত বছরের তুলনায় এক ধাপ পিছিয়ে দ্বিতীয় হয়েছে। বগুড়া শহরের সরকারি-বেসরকারি কলেজগুলোর ফলাফলে দেখা যায় জিপিএ-৫ প্রাপ্তিতে সরকারি আজিজুল হক কলেজ জেলায় শীর্ষস্থান দখল করেছে। বগুড়ার পল্লী উন্নয়ন একাডেমি (আরডিএ) ল্যাবরেটরি স্কুল ও কলেজ থেকে অংশ নেওয়া ২১৭ শিক্ষার্থীর সবাই পাশ করেছে।
বগুড়া ক্যান্টনমেন্ট পাবলিক স্কুল ও কলেজের ৭৬১ শিক্ষার্থীর সবাই পাশ করেছে।

নরসিংদী : বাংলাদেশ মাদরাসা শিক্ষা বোর্ডের অধীনে অনুষ্ঠিত আলিম পরীক্ষার ফলাফলে আন্তর্জাতিক মানের দ্বীনি প্রতিষ্ঠান নরসিংদীর জামেয়া কাসেমিয়া কামিল মাদ্রাসা ও মহিলা কামিল মাদ্রাসা অতীত ঐতিহ্য বজায় রেখেছে। চলতি বছর ব্যাপকহারে জিপিএ-৫ সহ শতভাগ পাশের গৌরব অর্জন করেছে।

এদিকে, নরসিংদীর শিক্ষাঙ্গনের আলোকবর্তিকা হিসেবে পরিচিত নরসিংদী মডেল কলেজ চলতি বছর এইচএসসি পরীক্ষায় জিপিএ-৫ ও ৪ ফোরসহ শতভাগ পাসের গৌরব অর্জন করেছে। অতীতের ধারাবাহিকতায় ৫২৬ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে সকলেই কৃতকার্য হয়েছে। জিপিএ-৫ ও ৪’র নিচে কোন ছাত্র-ছাত্রীর ফলাফল নেই।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: এইচএসসি পরীক্ষার ফলাফল
আরও পড়ুন
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ