Inqilab Logo

ঢাকা, সোমবার, ২৬ আগস্ট ২০১৯, ১১ ভাদ্র ১৪২৬, ২৪ যিলহজ ১৪৪০ হিজরী।

যমুনায় পানি বৃদ্ধি শত বছরের রেকর্ড ভেঙেছে বগুড়ায়

বগুড়া ব্যুরো | প্রকাশের সময় : ১৮ জুলাই, ২০১৯, ৩:৪৫ পিএম

শত বছরের রেকর্ড ভেঙে বগুড়ায় যমুনা নদীর পানি পানি বিপদসীমার ১২৬ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। বৃহষ্পতিবার দুপুরে এই তথ্য জানিয়ে বগুড়া পানি উন্নয়ন বোর্ডের কর্মকর্তারা বলেছেন , দ্রুত গতিতে এই পানি বৃদ্ধির ফলে যে কোন মুহুর্তে বণ্যা পরিস্থিতি গুরুতর রুপ নিতে পারে।
বগুড়া জেলা প্রশাসনের প্রাথমিক হিসাব অনুযায়ি সারিয়াকান্দি, সোনাতলা ও ধুনট উপজেলার ১৫টি ইউনিয়নের ১০২টি গ্রাম পুরোপুরি প্লাবিত হয়েছে । মানুষ পানিবন্দি হয়ে পড়েছে ৮২ হাজার । বাস্তুচ্যুৎ হয়ে ২ হাজার পরিবার বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধে আশ্রয় নিয়েছে।
এ ছাড়া আরো ২০ হাজার পরিবার সরে গেছে নিরাপদ আশ্রয়ে। তিন উপজেলায় বন্যাদুর্গতদের জন্য ৩২২ মেট্রিক টন চাল, দুই হাজার প্যাকেট শুকনা খাবার ও এক হাজার পিস পানি বিশুদ্ধকরণ ট্যাবলেট বিতরণ করা হয়েছে বলে জানিয়েছে জেলা প্রশাসন শিক্ষা বিভাগ জানিয়েছে , বন্যায় তিন উপজেলার ৬৪টি প্রাথমিক ও ১১টি মাধ্যমিক বিদ্যালয় বন্ধ ঘোষনা করা হয়েছে । ছাড়া সরকারি হিসাব অনুযায়ী, সারিয়াকান্দি উপজেলায় ২২২টি পুকুরের (২৬ হেক্টর) ৭৪ মেট্রিক টন মাছ ভেসে গেছে। এর আনুমানিক মূল্য ১ কোটি ৭২ লাখ টাকা।
তবে স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা বলেছেন বন্যায় ক্ষয়কতির পরিমান জেলা প্রশাসনের হিসেবের চেয়ে অনেক বেশি। তাদের মতে অন্তত লক্ষাধিক মানুষ পানিবন্দী হয়েছেন । দুর্গত এলাকায় মানুষ শুকনা খাবার খেয়ে দিন কাটাচ্ছে। বিশুদ্ধ খাবার পানি, জ্বালানি ও গবাদি পশুখাদ্যের চরম সংকটে দিশেহারা অবস্থা তাদের। প্রয়োজনের তুলনায় সরকারি ত্রাণ তৎপরতা খুবই অপ্রতুল বলেও অভিযোগ দুর্গত মানুষের ।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: বন্যা পরিস্থিতি


আরও
আরও পড়ুন