Inqilab Logo

ঢাকা, শুক্রবার, ২৩ আগস্ট ২০১৯, ০৮ ভাদ্র ১৪২৬, ২১ যিলহজ ১৪৪০ হিজরী।

অভিনব উপায়ে বাংলাদেশে গরু পাচারের চেষ্টা!

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৮ জুলাই, ২০১৯, ৫:২২ পিএম

বন্যায় নদীর পানি বেড়েছে। স্রোতকে কাজে লাগিয়ে নদীপথে গরু পাচারে অভিনব উপায় অবলম্বন করছে পাচারকারীরা। কলা গাছের গুঁড়ির মাঝে গরু বেঁধে পানিতে ভাসিয়ে দেয়া হচ্ছে। ডুবে যাওয়ার সম্ভাবনা এড়াতে কলাগাছ ব্যবহার করা হয়। ভারতের পশ্চিমবঙ্গের সীমান্তবর্তী জেলাগুলো থেকে এভাবেই নদীপথে বাংলাদেশে পাচার হচ্ছে গরু। এ ঘটনায় ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনী (বিএসএফ) তিন বাংলাদেশিকে গ্রেফতার করেছে। এছাড়াও এ ঘটনায় ২২৪টি গরু উদ্ধার করা হয়েছে।

সড়কপথে পাচারের ঝামেলা অনেক। সেসব এড়িয়ে নদীপথ ব্যবহার করাই সুবিধাজনক। সেটাই কাজে লাগিয়েছে পাচারকারীরা৷ নদীপথে গরু পাচারের জন্য প্রস্তুতিতেও ফাঁক নেই৷ গরুর মুখ বাঁধা হয় যাতে আওয়াজ না করতে পারে। ঘাড় ঘুরিয়ে ছিঁড়ে ফেলতে না পারে বাঁধন। এভাবেই মালদা এবং মুর্শিদাবাদের পাহাগাতি, ফুলতলা, লালপুর, কমলপুর, ধুলিয়ান সীমান্তে পদ্মায় ভাসিয়ে দেওয়া হয়েছিল দু’শর বেশি গরু।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত ভিডিওতে দেখা যায়, ভেসে যাচ্ছে সার সার গরু। কলাগাছের ভেলায় আষ্ঠেপৃষ্ঠে বাঁধা। এ অবস্থায় গরুগুলো ভেসে চলেছে। এভাবে নদীপথ ব্যবহার করে হচ্ছে গরু পাচার।

ঘটনা জানাজানি হতে পদক্ষেপ নেয় ভারতের সীমান্তরক্ষী বাহিনী বিএসএফ। তারা চোরাচালান ঠেকাতে স্পিডবোট নিয়ে বেরিয়ে পড়ে। পরে পাচারকারীদের কাছ থেকে উদ্ধার করা হয় ১০৩টি গরু। এদিকে রানিনগর থানা এলাকা থেকে ভোররাতে গরু পাচারের চেষ্টাকালে ১২১ টি গরু উদ্ধার করে বিএসএফ। এ সময় গ্রেফতার করা হয় বাংলাদেশের রাজশাহীর জাহিরুল ইসলাম ও মোহম্মদ ডালিম রেজা এবং চাঁপাইনবাবগঞ্জের মোহম্মদ রকিকে। বিএসএফ জানতে পারে, এই দলটির সঙ্গে যোগ রয়েছে ভারতীয় দুই চোরাচালানের। তারা হলেন, রানিনগরের বিন্দা মণ্ডল, ইসলামপুরের মুর্তজা শেখ। তাদের ধরতে চলছে তল্লাশি-অভিযান। সূত্র : নিউজ ১৮।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ভারত

২২ আগস্ট, ২০১৯

আরও
আরও পড়ুন
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ