Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার, ১৮ আগস্ট ২০১৯, ০৩ ভাদ্র ১৪২৬, ১৬ যিলহজ ১৪৪০ হিজরী।

প্রিন্সিপালের নামে জিডি

কলাপাড়া (পটুয়াখালী) উপজেলা সংবাদদাতা : | প্রকাশের সময় : ১৯ জুলাই, ২০১৯, ১২:০৭ এএম

পটুয়াখালীর মহিপুরে এক সংখ্যালঘু প্রভাষককে অকথ্য ভাষায় গালাগাল, সাম্প্রদায়িকতার কথা তুলে ভয়ভীতি প্রদর্শন ও চাকুরী চ্যুতির হুমকি দেওয়ায় মুক্তিযোদ্ধা মেমোরিয়াল ডিগ্রি কলেজের প্রিন্সিপাল মো. কালিম উল্লাহর নামে কলাপাড়া থানায় জিডি করা হয়েছে। একই কলেজের পৌরনীতি ও সুশাসন বিষয়ের প্রভাষক ও জাতীয় দৈনিক যায় যায় দিন’র কলাপাড়া প্রতিনিধি চঞ্চল সাহা গত বুধবার রাতে এ জিডি দায়ের করেন।

প্রভাষক চঞ্চল সাহা মুক্তিযোদ্ধা মেমোরিয়াল কলেজে ২০০০ সালে চাকুরিতে নিয়োগ পেয়ে দীর্ঘ ১৯ বছর ধরে বিরতিহীনভাবে কর্মরত আছেন। তার মধ্যে ১০ বছর বিনা বেতনে চাকুরি করেছেন। ২০১০ সালের মে মাসে কলেজটি এমপিও ভুক্ত হয়। চঞ্চল সাহার এমপিও’র ৮ বছর পূর্তিতে জ্যেষ্ঠ শিক্ষক হিসেবে সহকারী অধ্যাপক পদের জন্য কলেজ কর্তৃপক্ষের নিকট আবেদন করেন। পদোন্নতির সকল কাগজপত্র দেওয়া সত্তে¡ও অনৈতিক দাবি মেটাতে না পারায় মাঝপথে তার পদোন্নতির বিষয়টি আটকে দিয়ে জুনিয়র তিন শিক্ষককে পদোন্নতির কাগজ দিয়ে অনলাইনে প্রেরণ করেন প্রিন্সিপাল কালিম উল্লাহ। এ বিষয়ে প্রতিকার চেয়ে চঞ্চল সাহা মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরের মহা-পরিচালক বরাবর আবেদন করেন।
এ বিষয়ে মুক্তিযোদ্ধা মেমোরিয়াল ডিগ্রি কলেজের প্রিন্সিপাল কালিম উল্লাহ জানান, আমি ঢাকাতে ছিলাম। গতকাল ঢাকা থেকে এসেছি। চঞ্চল সাহার সাথে বুধবার পর্যন্ত আমার কোন কথা হয়নি। জিডির ঘটনা সম্পূর্ণ মিথ্যা। এক পর্যায়ে তিনি উত্তেজিত হয়ে বলেন, আর ভাই সমস্যা নাই, জিডি করে করুক।
কলাপাড়া থানার ওসি মো. মনিরুল ইসলাম জানান, বিষয়টি তদন্তপূর্বক আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ