Inqilab Logo

ঢাকা, শনিবার, ২৪ আগস্ট ২০১৯, ০৯ ভাদ্র ১৪২৬, ২২ যিলহজ ১৪৪০ হিজরী।

ভুঞাপুর-তারাকান্দি সড়কে যানচলাচল বন্ধ, মেরামত কাজে সেনাবাহিনী

টাঙ্গাইলের ভূঞাপুরের টেপিবাড়ী এলাকায় ভূঞাপুর-তারাকান্দি বাঁধ ভেঙে বিস্তির্ন এলাকা প্লাবিত

টাঙ্গাইল জেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ১৯ জুলাই, ২০১৯, ১০:৪২ এএম

 

টাঙ্গাইলের ভূঞাপুরের টেপিবাড়ী এলাকায় ভূঞাপুর-তারাকান্দি বাঁধ ভেঙে বিস্তির্ন এলাকা নতুন করে আরো ২৫টি গ্রাম প্লাবিত হয়েছে। বৃহস্পতিবার রাত ৮টার দিকে ভুঞাপুর-তারাকান্দি বাঁধ (সড়কটি) ভেঙ্গে যাওয়ায় টাঙ্গাইলের সাথে তারাকান্দি ও সরিষাবাড়ির সাথে সড়ক যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে। অপরদিকে ভূয়াপুর-তারাকান্দি বাঁধের ভেঙ্গে যাওয়া অংশে মেরামতের কাজে অংশ গ্রহন করেছে সেনাবাহিনীর সদস্যরা।
টাঙ্গাইলে যমুনা নদীর পানি গত ২৪ ঘন্টায় ০৮ সেন্টিমিটার বেড়ে বিপদসীমার ৯৯ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহীত হচ্ছে। ৬টি উপজেলায় নদী তীরবর্তী ২২টি ইউনিয়নের প্রায় ১২০টি গ্রাম প্লাবিত হয়েছে। এতে প্রায় ২০ হাজার পরিবারের লক্ষাধিক মানুষ পানিবন্দী হয়ে পড়েছে।
যমুনার পানির প্রচন্ড চাপে বৃহস্পতিবারা রাতে বাঁধটি ভেঙ্গে যায়। বাঁধটি ভেঙ্গে যাবার কারনে নতুন করে দুটি ইউনিয়নের অন্তত ২৫টি গ্রাম বন্যা কবলিত হয়ে পড়েছে। এই বাধ ভাঙ্গার কারণে গোপালপুর, ঘাটাইল ও কালিহাতি উপজেলা বন্যা কবলিত হওয়ার বিস্তৃর্ণ এলাকায় বন্যা কবলিত হওয়ার আশংকা দেখা দিয়েছে।
জেলা প্রশাসনের ও উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে ত্রান সামগ্রী বিতরন করা হলেও তা প্রয়োজনের তুলনায় অনেক কম বলে অভিযোগ করেছে ক্ষতিগ্রস্থরা। এদিকে বন্যা কবলিত এলাকায় বিশুদ্ধ খাবার পানির তীব্র সংকট দেখা দিয়েছে। গবাদি পশু নিয়ে মানুষ উচু বাঁধ ও বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে আশ্রয় নিয়েছে।
জেলার বন্যা আক্রান্ত এলাকায় ৬৭টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে (মাধ্যমিক বিদ্যালয় ৯টি এবং প্রায় ৫৮টি প্রাথমিক বিদ্যালয়) ও ১৯১২ হেক্টর ফসলি জমি এবং সবজি পানিতে নিমজ্জিত রয়েছে।

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ