Inqilab Logo

ঢাকা, বুধবার, ২১ আগস্ট ২০১৯, ০৬ ভাদ্র ১৪২৬, ১৯ যিলহজ ১৪৪০ হিজরী।

আলো-পানিহীন রাত প্রিয়াঙ্কার

প্রিয়াঙ্কার পর বিমানবন্দরে তৃণমূল এমপিদের আটক

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২১ জুলাই, ২০১৯, ১২:০৫ এএম

কংগ্রেসের সাধারণ সম্পাদক প্রিয়াঙ্কা গান্ধী ভারতের উত্তরপ্রদেশের মির্জাপুরে অবস্থিত একটি গেস্ট হাউসে আলো-পানি ছাড়াই রাত কাটিয়েছেন। প্রদেশটির বারানসিতে জমি নিয়ে বিরোধের জেরে নিহতদের পরিবারের সঙ্গে দেখা করতে যাওয়ার পথে শুক্রবার তাকে আটক করে দেশটির পুলিশ। ভারতীয় টেলিভিশন এনডিটিভির প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে, গতকাল রাতে রাজ্য সরকারের জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তারা প্রিয়াঙ্কার সঙ্গে সাক্ষাৎ করে তাকে ফিরে যেতে বলেছেন। কিন্তু প্রিয়াঙ্কা গান্ধী বলেছেন তিনি ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের সঙ্গে দেখা না করে যাবেন না। আনন্দবাজার পত্রিকার প্রতিবেদন অনুযায়ী, শুক্রবার সন্ধ্যায় ৫০ হাজার টাকা মুচলেকার বিনিময়ে প্রিয়াঙ্কাকে মুক্তির প্রস্তাব দেয় রাজ্য সরকার। গেস্ট হাউসের আলো-পানি বন্ধ করে দেয়া হয়। কিন্তু প্রিয়াঙ্কা বলেন, ‘এভাবেই এখানে দশ দিন থাকতে হলে থাকব। কিন্তু নিহতের পরিবারের সঙ্গে দেখা না করে ফিরব না।’ এবিপির খবরে বলা হয়, কংগ্রেস সম্পাদক প্রিয়াঙ্কা গান্ধীর পর এবার উত্তরপ্রদেশের বারানসী বিমানবন্দরে আটকানো হলো ডেরেক ও ব্রায়েনসহ তৃণমূল কংগ্রেসের প্রতিনিধি দলকে। স¤প্রতি বারানসীর সোনভদ্রায় জমি নিয়ে বিরোধের জেরে গুলিবিদ্ধ হয়ে ১০ জন নিহত হন। শুক্রবার নিহতদের পরিবারের সঙ্গে দেখা করার উদ্দেশ্যে সেখানে যাওয়ার পথে প্রিয়াঙ্কাকে আটক করে পুলিশ। এনডিটিভি জানিয়েছে, শনিবার তৃণমূলের প্রতিনিধি দল বিমানবন্দরে পৌঁছানোর সঙ্গে সঙ্গেই তাদেরকে আটক করা হয়। এ বিষয়ে পুলিশের এক জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তা বলেন, ‘উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশ মেনেই এমনটা করা হয়েছে।’ তৃণমূলের প্রভাবশালী নেতা ডেরেক ও ব্রায়েন এক ভিডিও বার্তায় তাদের আটক করার কথা জানান। ডেরেক ও ব্রায়েন বলেন, ‘তৃণমূল কংগ্রেসদলীয় এমপিদের বারানসী বিমানবন্দরে আটক করা হয়েছে। তবে কোন আইনে আমাদের আটক করা হল তা স্পষ্ট করে জানায়নি পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা। তারা জানিয়েছেন যে, তারা শুধু ওপরের নির্দেশ মেনে কাজ করেছেন।’ প্রিয়াঙ্কা গান্ধী টুইট বার্তায় বলেন, ‘উত্তরপ্রদেশ সরকার বারানসির এডিজি ব্রজভূষণ, মির্জাপুরের কমিশনার দীপক আগারওয়াল এবং ডিআইজিকে আমার কাছে পাঠিয়েছেন এটা বলার জন্য যে, ওইসব পরিবারের সঙ্গে দেখা না করেই আমার চলে যাওয়া উচিত। তারা শেষ পর্যন্ত এখানে অপেক্ষা করেছেন।’ এবিপি, এনডিটিভি।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন