Inqilab Logo

ঢাকা, শুক্রবার, ১০ জুলাই ২০২০, ২৬ আষাঢ় ১৪২৭, ১৮ যিলক্বদ ১৪৪১ হিজরী
শিরোনাম

স্ত্রীর দ্বিতীয় স্বামী ছেলেধরা বলতেই ঝাঁপিয়ে পড়ল সবাই

নারায়ণগঞ্জ থেকে স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২১ জুলাই, ২০১৯, ৬:৪৮ পিএম

কিছুতেই ভুলে থাকতে পারছিলেন না মেয়েকে। বিভিন্ন স্থানে খোঁজও করেছিলেন। কিন্তু পাননি। অবশেষে মেয়ের খোঁজ পেয়ে আর নিজেকে সামলাতে পারলেন না বাক প্রতিবন্ধী সিরাজ। বাড়ির পাশের একটি মোবাইল ফোনের দোকান মালিকের কাছ থেকে ১০০ টাকা ধার নিয়ে মেয়ের জন্য চুড়ি ও লিপিস্টিক কিনে মেয়ের কাছে যান। কিন্তু সেই যাওয়ায় তার শেষ যাওয়া। স্ত্রীর বর্তমান স্বামীর ভুল তথ্যে তাকে গণপিটুনিতে মরতে হলো।
সিরাজ পেশায় রাজমিস্ত্রির সহযোগী ছিলেন। সিদ্ধিরগঞ্জের সাইলো এলাকার ঠিকাদার মোহর চানের বাড়িতে ভাড়া থাকেন তারা। গ্রামের বাড়ি ভোলার লালমোহন থানার মুগিয়া বাজার এলাকায়। শনিবার সিদ্ধিরগঞ্জের মিজমিজি পূর্বপাড়া আল-আমিন নগর এলাকায় ছেলেধরা সন্দেহে গণপিটুনিতে নিহত হন সিরাজ।পরিকল্পিতভাবে তাকে হত্যা করা হয়েছে বলে দাবি সিরাজের ভাই ও এলাকাবাসীর। সহজ-সরল এ প্রতিবন্ধীর হত্যাকারীদের বিচার দাবি করে রোববার বেলা ১১টায় এলাকায় মিছিল করেছেন এলাকাবাসী।
প্রায় ১০ বছর আগে শামসুন্নাহারের সঙ্গে বিয়ে হয় বাক প্রতিবন্ধী সিরাজের। ৬ বছরের এক মেয়ে রয়েছে তাদের। বাকপ্রতিবন্ধী হওয়া সত্ত্বেও রাজমিস্ত্রির সহযোগী হিসেবে কাজ করে সংসার চালাতেন।বছর খানেক আগে এলাকার বিদ্যুৎ মিস্ত্রী আ. মান্নান ওরফে সোহেলের সঙ্গে পরকীয়ায় জড়ান সিরাজের স্ত্রী শামসুন্নাহার। এক পর্যায়ে পালিয়ে যান তারা। সঙ্গে নিয়ে যান মেয়ে মিনজুকেও। অনেক খুঁজেও কোনো হদিস পাননি। ৫-৬ মাস আগে স্ত্রী শামসুন্নাহার তালাকনামা পাঠান সিরাজের কাছে।
সেই থেকে হতাশাগ্রস্ত হয়ে পড়েন সিরাজ। স্ত্রীকে না পেলেও নিজের মেয়েকে খুঁজতে থাকেন। এক পর্যায়ে মেয়ের সন্ধান পান সিদ্ধিরগঞ্জের মিজমিজি আল আমিন নগর এলাকায়। একাধিকবার দেখেও আসেন মেয়েকে।শনিবারও একইভাবে মেয়েকে দেখতে যান সিরাজ। মেয়ের সঙ্গে কথা বলার এক পর্যায়ে তার স্ত্রীর বর্তমান স্বামী আব্দুল মান্নান ওরফে সোহেল তাকে দেখে ফেলে ‘ছেলেধরা’ বলে চিৎকার দিলে এলকাবাসী গণধোলাই দেয় সিরাজকে। সেখান থেকে পুলিশ তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।রোববার তার মরদেহ সিদ্ধিরগঞ্জের সাইলোগেইট এলাকায় নিয়ে গেলে কান্নায় ভেঙে পড়েন এলাকাবাসী। তাদের অনেককেই আক্ষেপ করে বলতে শোনা যায়, ‘এমন করে মানুষকে পিটিয়ে মারতে পারলো লোকজন!’অনেকে এটাকে পরিকল্পিত হত্যাকা- বলেও উলে¬খ করেন ও হত্যাকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করে মিছিল করেন।#



 

Show all comments
  • এরকম পরকৃয়া প্রেমের সাথে যারা সমাজ সংসার ধংস করে যাচ্ছে প্রতি নিয়ত এই নিয়ে নির্ধারিত আইন থাকা উচিত। যাতে সমাজের এরকম জগন্য ব্যক্তি দের উপযুক্ত শাস্তির ব্যবস্থা থাকে।
    Total Reply(0) Reply
  • Md Nasir ১৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ১১:৪৬ পিএম says : 0
    টিক বলচেন
    Total Reply(0) Reply
  • Md Nasir ১৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ১১:৪৬ পিএম says : 0
    টিক বলচেন
    Total Reply(0) Reply
  • Md Nasir ১৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ১১:৪৭ পিএম says : 0
    টিক বলচেন
    Total Reply(0) Reply
  • Md Nasir ১৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ১১:৪৭ পিএম says : 0
    টিক বলচেন
    Total Reply(0) Reply
  • Md Nasir ১৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ১১:৪৭ পিএম says : 0
    টিক বলচেন
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ছেলেধরা


আরও
আরও পড়ুন