Inqilab Logo

শনিবার, ২৯ জানুয়ারী ২০২২, ১৫ মাঘ ১৪২৮, ২৫ জামাদিউস সানি ১৪৪৩ হিজরী

প্রিয়া সাহার পক্ষে আইনমন্ত্রীর সাফাই!

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২২ জুলাই, ২০১৯, ১২:০৪ এএম

প্রিয়া সাহার পক্ষে এবার সাফাই গেয়েছেন আইনমন্ত্রী অ্যাডভোকেট আনিসুল হক। তার দৃষ্টিতে বাংলাদেশ সম্পর্কে প্রিয়া সাহার রাষ্ট্রদ্রোহিতার মধ্যে পড়ে না। কারণ প্রিয়া সাহা মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে সাক্ষাৎ করে যে বক্তব্য দিয়েছেন তা সর্বৈব মিথ্যা। গতকাল রোববার বিচার প্রশাসন প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউটে বিচারকদের প্রশিক্ষণের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে যোগ দিয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে আইনমন্ত্রী এ কথা বলেন। সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি আরো বলেন, আমেরিকা গিয়ে বাংলাদেশে সংখ্যালঘু নির্যাতনের বিষয়ে ট্রাম্পকে যেসব তথ্য প্রিয়া সাহা দিয়েছেন তা সম্পূর্ণ মিথ্যা ও বানোয়াট। বিএনপি-জামায়াতের সময় ছাড়া বাংলাদেশে এ ধরনের ঘটনা ঘটেনি। এটা তার ব্যক্তিগত স্বার্থ হাসিলের জন্য করে থাকতে পারেন। এত ছোট ঘটনায় রাষ্ট্রদ্রোহিতা হয়েছে- এটা বোধ হয় ঠিক না। তবুও স্বাধীন বিচার বিভাগ যেটা করবেন সে ব্যাপারে আমাদের বক্তব্য আমরা বলেছি।

ট্রাম্পকে প্রিয়া সাহার বক্তব্য দেয়ার পরে শুধু হিন্দু সম্প্রদায় না, সকলেই বলেছেন যে বাংলাদেশে আমরা সকলেই সম্প্রীতির মাধ্যমে বসবাস করছি। যদি ইতিহাসও ঘাঁটা হয়, তাহলে দেখা যাবে এই বাংলাদেশের মাটিতে সবচেয়ে কম ধর্মীয় সঙ্ঘাত হয়েছে। বাংলাদেশ হওয়ার পরে এরশাদ সরকারের সময়ে একটা হতে গিয়েছিল। এ ছাড়া কিন্তু কেউ উদাহরণ দিতে পারবে না যে, এখানে কোন ধর্মীয় সংঘর্ষ হয়েছিল। হ্যাঁ, আর একটা ২০০১ সালে বিএনপি যখন ক্ষমতায় এসেছিল তখন তারা কিছুটা এসব কর্মকান্ডে লিপ্ত ছিলেন এবং সেগুলোর কিন্তু বিচার হচ্ছে।

বরগুনার মিন্নির বিষয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে আইনমন্ত্রী বলেন, সংবিধানে অত্যন্ত পরিষ্কারভাবে বলা আছে যে একজন আসামির আইনজীবী রাখার অধিকার আছে। সেই ধারাবাহিতকায় যেসব মামলায় মৃত্যুদন্ড বা যাবজ্জীবন দেয়া যেতে পারে সেখানে আমরা স্টেট ডিফেন্স দিয়ে থাকি। মিন্নির আইনজীবী পাওয়ার অধিকার আছে। বিচার প্রশাসন প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউটের মহাপরিচালক বিচারপতি খোন্দকার মূসা খালেদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আইন সচিব আবু সালেহ শেখ মো. জহিরুল হক প্রমুখ বক্তৃতা করেন।

উল্লেখ্য, গত ১৬ জুলাই হোয়াইট হাউসে ধর্মীয় নিপীড়নের শিকার ২৭ ব্যক্তির সঙ্গে বৈঠক করেন মার্কিন প্রেডিসেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। এতে ১৬টি দেশের প্রতিনিধিগণ অংশ নেন। বাংলাদেশ হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদের সাংগঠনিক সম্পাদক প্রিয়া সাহাও প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে কথা বলার সুযোগ পান। মার্কিন প্রেসিডেন্টের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, আমি (প্রিয়া সাহা) বাংলাদেশ থেকে এসেছি। বাংলাদেশে ৩ কোটি ৭০ লাখ হিন্দু, বৌদ্ধ ও খ্রিষ্টান নিখোঁজ রয়েছেন। দয়া করে আমাদের লোকজনকে সহায়তা করুন। আমরা আমাদের দেশে থাকতে চাই। প্রিয়া সাহা আরো বলেন, এখন সেখানে ১ কোটি ৮০ লাখ সংখ্যালঘু রয়েছে। আমরা আমাদের বাড়িঘর খুইয়েছি। তারা আমাদের বাড়িঘর পুড়িয়ে দিয়েছে, তারা আমাদের ভূমি দখল করে নিয়েছে। কিন্তু এখন পর্যন্ত কোনো বিচার পাইনি। ভিডিওতে দেখা যায়, এসব নালিশ করার সময় এক পর্যায়ে ট্রাম্প নিজেই সহানুভূতির সঙ্গে এই নারীর সঙ্গে হাত মেলান। প্রিয়া সাহা আর মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের মধ্যকার কথোপকথন প্রকাশ পেলে সমালোচনার ঝড় ওঠে। বাংলাদেশ সরকারের পক্ষ থেকেও নিন্দা জানানো হয়েছে। তবে তাকে রাষ্ট্রদ্রোহিতার অভিযোগে গ্রেফতার করে বিচারের আওতায় আনতে ঢাকা ও যশোরে পৃথক দু’টি মামলা হয়। তবে মামলাগুলো পরে খারিজ করে দেয়া হয়।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ