Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ২ আশ্বিন ১৪২৬, ১৭ মুহাররম ১৪৪১ হিজরী।
শিরোনাম

পোশাক শিল্প খাতের পরিচর্যা প্রয়োজন

চট্টগ্রামে বিজিএমইএ’র অনুষ্ঠানে শ্রম ও কর্মসংস্থান সচিব

চট্টগ্রাম ব্যুরো : | প্রকাশের সময় : ২৭ জুলাই, ২০১৯, ১১:৫৯ পিএম

পোশাক শিল্পখাতের পরিচর্যা প্রয়োজন মন্তব্য করে শ্রম ও কর্মসংস্থান সচিব কেএম আলী আজম বলেছেন, এ খাতের মালিক, শ্রমিক, সরকারের মধ্যে সুসম্পর্ক অব্যাহত রাখতে হবে। এটি থেকে বিচ্যুত হলে বিপর্যয় নেমে আসতে পারে। বছরে ২০-২২ লাখ নতুন মানুষ শ্রমবাজারে আসছে। কর্মসংস্থান বাড়লে চাকরি বাড়বে, ক্রয়ক্ষমতা বাড়বে, দেশ এগিয়ে যাবে।

গতকাল (শনিবার) বাংলাদেশ পোশাক প্রস্তুতকারক ও রফতানি সমিতি (বিজিএমইএ) চট্টগ্রাম কার্যালয়ে গ্রুপ বীমা দাবির চেক হস্তান্তর অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন। এতে সভাপতিত্ব করেন বিজিএমইএর প্রথম সহ-সভাপতি মোহাম্মদ আবদুস সালাম। চট্টগ্রামের ১৬টি কারখানার ৩১ জন অসুস্থ শ্রমিককে চিকিৎসা সহায়তা চেক ও মৃত শ্রমিকের ওয়ারিশকে বীমা দাবির চেক দেয়া হয়। গ্রুপ বীমার প্রতিটি দাবির চেক ২ লাখ টাকা।

শ্রম সচিব আলী আজম বলেন, পোশাক কারখানায় যেসব শ্রমিকরা কাজ করেন তারা মালিকদের পরিবারের সদস্য মনে করা ইতিবাচক দিক। শ্রমিক ছাড়া মালিকের অস্তিত্ব নেই। মালিক ছাড়া শ্রমিকের অস্তিত্ব নেই। দুই পক্ষের সুর তাল লয় যত সুন্দর হবে উৎপাদন প্রক্রিয়া তত মসৃণ হবে। উন্নত দেশে আমরা তাই দেখি।
কেএম আলী আজম বলেন, চট্টগ্রামে বস্ত্র খাতের জন্ম। বিভিন্ন কারণে এখন সমস্যা দেখা দিয়েছে। সমন্বিতভাবে কাজ করলে এ সমস্যা থেকে উত্তরণ ঘটাতে পারবো। অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন বিজিএমইএর সহ-সভাপতি এএম চৌধুরী সেলিম, পরিচালক মিরাজ-ই-মোস্তফা কায়সার, মোহাম্মদ আতিক, সাবেক পরিচালক সাইফুল্লাহ মনসুর, শ্রম অধিদফতর চট্টগ্রামের পরিচালক মো. গিয়াস উদ্দিন প্রমুখ।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: পোশাক শিল্প

১৪ জানুয়ারি, ২০১৯
১৩ জানুয়ারি, ২০১৯

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ