Inqilab Logo

ঢাকা, সোমবার, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১ আশ্বিন ১৪২৬, ১৬ মুহাররম ১৪৪১ হিজরী।

সিলেটে বিচার বিভাগীয় কর্মচারী অ্যাসোসিয়েশনের স্মারকলিপি

সিলেট ব্যুরো : | প্রকাশের সময় : ৩০ জুলাই, ২০১৯, ১২:০০ এএম

দেশের অধ:স্তন আদালতের কর্মচারীদের জুডিসিয়াল সার্ভিস বেতন স্কেল আলোকে বেতন ভাতা প্রদান, বøক পদ বিলুপ্তসহ যুগোপযোগী পদ সৃজন ও পদোন্নতির সুযোগ রেখে অভিন্ন নিয়োগ বিধি প্রণয়ন উল্লেখপূর্বক ৩ দফা দাবিতে বাংলাদেশ বিচার বিভাগীয় কর্মচারী অ্যাসোসিয়েশন, সিলেট জেলা শাখা এ স্মারকলিপি প্রদান করেন।

গতকাল সকাল সাড়ে ৯টায় সিনিয়র জেলা ও দায়রা জজ কে.এম রাশেদুজ্জামান রাজার মাধ্যমে যুগ্ম সচিব (প্রশাসন-১) দৃষ্টি আকর্ষণ করেন নেতৃবৃন্দ। আইন বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব বরাবর প্রেরিত এ স্মারকলিপি সংগঠনের কেন্দ্রিয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে জেলা শাখা প্রদান করেন। স্মারকলিপিতে উল্লেখ করা হয়, বিচারকদের জন্য বাংলাদেশ জুডিসিয়াল সার্ভিস বেতন স্কেল নামে স্বতন্ত্র বেতন স্কেল প্রদান করা হয়। কিন্তু বিচারকদের সহায়ক কর্মচারী হিসেবে কর্ম সম্পাদন করা সত্তে¡ও স্বতন্ত্র বেতন স্কেলসহ সকল প্রকার সুযোগ সুবিধা থেকে বঞ্চিত এবং বিচার বিভাগের চাকুরি করা সত্তে¡ও জনপ্রশাসনের কর্মচারী হিসেবে তারা চরম পীড়াদায়ক পরিস্থিতির স্বীকার। বেশিরভাগ কর্মচারীই আর্থিকভাবে মানবেতর জীবন যাপন করেন। সার্বিক পেক্ষাপট বিবেচনায় বর্তমান জনবান্ধব সরকারের নিকট অধ:স্তন আদালতের কর্মচারীদের বাংলাদেশ জুডিসিয়াল সার্ভিস কমিশনের সহায়ক কর্মচারী হিসেবে গণ্য করে বাংলাদেশ জুডিসিয়াল সার্ভিস স্কেলের আলোকে বেতন ভাতা প্রদান, সকল বøক পদ বিলুপ্ত করে যুগোপযোগী পদ সৃজন পূর্বক হাইকোর্ট ও মন্ত্রণালয়ের ন্যায় যোগ্যতা ও জ্যেষ্ঠতার ক্রমানুসারে প্রতি ৫ বৎসর অন্তর অন্তর স্বয়ংক্রিয়ভাবে পদোন্নতি ও উচ্চতর গ্রেড প্রদানের ব্যবস্থা করা। এছাড়া অধ:স্তন আদালতের কর্মচারীদের জন্য অভিন্ন নিয়োগ বিধি প্রণয়নের ৩ দফা দাবি বাস্তবায়ন চান বাংলাদেশ বিচার বিভাগীয় কর্মচারী এসোসিয়েন সিলেট জেলা শাখা।

স্মারকলিপি প্রদানকালে উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের সভাপতি মো. নাজিম উদ্দিন, সিনিয়র সহ-সভাপতি মো. কামাল উদ্দিন চৌধুরী, রতি কান্ত দাস, সহ-সভাপতি কজ্জল কান্তি চক্রবর্তী, মো. আজাদ মিয়া, আমিনুর রশীদ, সাধারণ সম্পাদক মো. সাইফুল ইসলাম, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মো. মিজানুর রহমান, সুব্রত সিংহ, সাংগঠনিক সম্পাদক মো. সোহেল রানা প্রমুখ।

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: স্মারকলিপি


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ