Inqilab Logo

ঢাকা, বুধবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৩ আশ্বিন ১৪২৬, ১৮ মুহাররম ১৪৪১ হিজরী।

ছেলেধরা সন্দেহে গণপিটুনি ঢামেকে মৃত্যু

বিশেষ সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ৩০ জুলাই, ২০১৯, ১২:০০ এএম

টাঙ্গাইলের কালিহাতী উপজেলায় ছেলেধরা সন্দেহে গণপিটুনিতে আহত ভ্যানচালক মিনু মিয়া (২৮) মারা গেছেন। গতকাল সোমবার সকাল ১০টার দিকে চিকিৎসাধীন ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে তার মৃত্যু হয়। এর আগে গত ২১ জুলাই উপজেলার সয়াহাটে এ গণপিটুনির ঘটনা ঘটে। পরে ওইদিন রাতেই তাকে ঢামেক হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়। মিনু টাঙ্গাইলের ভুয়াপুর উপজেলার টেপিপাড়া গ্রামের কোরবান আলীর ছেলে।
নিহত মিনুর শ্যালক জাহাঙ্গীর শেখ হাসপাতালে সাংবাদিকদের জানান, মিনু পেশায় ভ্যানচালক ছিলেন। গত ২১ জুলাই বাড়ি থেকে সয়াহাটে (হাট) মাছ ধরার জন্য জাল কিনতে যান তিনি। সেখানে জাল কেনার সময় এক ছেলে তার পকেটে হাত দেয়। তখন তিনি ছেলেটার হাত ধরে ফেললে সে চিৎকার শুরু করে। এ সময় আশপাশের লোকজন জড়ো হয়ে তাকে ছেলেধরা সন্দেহে গণপিটুনি দেন। এক পর্যায়ে তাকে উদ্ধার করে টাঙ্গাইল সদর হাসপাতালে নেয়া হয়। পরে অবস্থার অবনতি হলে ওইদিন রাতেই তাকে ঢামেক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। চিকিৎসাধীন অবস্থায় সোমবার সকাল ১০টার দিকে ঢামেক হাসপাতালের ২০১ নম্বর ওয়ার্ডে তার মৃত্যু হয়।
তিনি বলেন, গণপিটুনিতে মিনু মিয়ার মৃত্যুতে পুরো পরিবারটি নিঃস্ব হয়ে গেছে। একজন নিরপরাধ মানুষকে গুজব তুলে হত্যা করা হয়েছে। আমরা এর বিচার চাই।
কালিহাতী থানার এসআই এস এম ফারুকুল জানান, গত ২২ জুলাই মিনুর মেঝ ভাই রাজিব বাদী হয়ে ২২ জনকে আসামি করে থানায় মামলা দায়ের করেছেন। মামলাটি এখন হত্যা মামলায় পরিবর্তিত হবে। মামলায় ছয়জনকে গ্র্রেফতার করা হয়েছে। বাকিদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

 

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ