Inqilab Logo

ঢাকা, শুক্রবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৫ আশ্বিন ১৪২৬, ২০ মুহাররম ১৪৪১ হিজরী

ডেঙ্গু বন্যা পরিস্থিতি ও গুজব প্রতিরোধে ডিসিদের চিঠি

ঈদের ছুটি বাতিল স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ৩১ জুলাই, ২০১৯, ১২:০১ এএম

সারাদেশে ডেঙ্গুর প্রাদুর্ভাব রোধে ভূমিকা রাখতে সব সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের আসন্ন ঈদুল আজহার ছুটি নিরুৎসাহিত করেছে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ। সারাদেশে ডেঙ্গু প্রতিরোধ, বন্যা পরিস্থিতি মোকাবেলা ও গুজব প্রতিরোধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে বিভাগীয় কমিশনার ও জেলা প্রশাসকদের (ডিসি) চিঠি দেয়া হয়েছে। সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের আবাস ও কর্মস্থল পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখার নির্দেশ দেয়া হয়েছে।
গতকাল মঙ্গলবার সচিবালয়ে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগে ডেঙ্গু প্রতিরোধ, বন্যা পরিস্থিতি মোকাবেলা ও গুজব প্রতিরোধ সংক্রান্ত একটি পর্যালোচনা সভায় এসব সিদ্ধান্ত হয়েছে।

সভা শেষে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের ভারপ্রাপ্ত সচিব (সমন্বয় ও সংস্কার) শেখ মুজিবুর রহমান সংবাদ সম্মেলনে বলেন, এ মুহূর্তে সবচেয়ে বড় ইস্যু হলো ডেঙ্গু পরিস্থিতি। গত ২৪ ঘণ্টায় সারাদেশে ডেঙ্গু আক্রান্ত ভর্তি রোগীর সংখ্যা তিন হাজার ৮৪৭ জন। এ পর্যন্ত ১৩ হাজার ৭৩৭ জন রোগী বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়েছেন। এরমধ্যে ছাড়পত্র নিয়ে বাড়ি ফিরে গেছেন নয় হাজার ৭৪০ জন। বর্তমানে বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি আছেন তিন হাজার ৮৪৭ জন।

স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের সচিবের দেয়া তথ্য তুলে ধরে শেখ মুজিবুর রহমান বলেন, সরকারি তথ্যমতে, এ পর্যন্ত মৃতের সংখ্যা আটজন। তবে কিছু ক্রিটিক্যাল রোগী আছে, সেজন্য তিনি বলেছেন, এ সংখ্যা আরও বাড়তে পারে। আমাদের সিদ্ধান্ত হয়েছে, বিষয়টা নিঃসন্দেহে একটা পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে। সেজন্য সরকারি যেসব অফিস-আদালত আছে, আমাদের সব কর্মকর্তা-কর্মচারী, তাদের নির্দেশনা দেয়া হয়েছে তারা নিজ নিজ উদ্যোগে কর্মস্থল, আবাসন এবং ডেঙ্গুর প্রাদুর্ভাব হয় যে সোর্স থেকে, সেগুলো পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখবেন।

মুজিবুর রহমান বলেন, পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখার ব্যাপারে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে এ সংক্রান্ত নির্দেশনা যাবে। ঈদের ছুটির ব্যাপারে আমরা স্ট্রংলি, ঈদের ছুটি তো একটা ধর্মীয় অনুষ্ঠান। তারপরও আমরা ঈদের ছুটি সব কর্মকর্তাকে ঢাকায় উপভোগ করার জন্য উৎসাহিত করছি এবং ছুটি না নেয়ার জন্য নিরুৎসাহিত করেছি। কোনো কোনো ক্ষেত্রে ছুটি ক্যান্সেল করা হয়েছে। তার মধ্যে অন্যতম হচ্ছে স্বাস্থ্য বিভাগ। স্বাস্থ্য বিভাগে যেসব কর্মকর্তা সংশ্লিষ্ট তাদের ছুটি বাতিল করা হয়েছে। আশা করবো, আমাদের প্রশাসনের কর্মকর্তারা যথাসম্ভব ঢাকাতেই ঈদ করবেন- এ রকম একটা নির্দেশনা।

ভারপ্রাপ্ত সচিব বলেন, ডেঙ্গু প্রতিরোধ ও চিকিৎসার জন্য স্বাস্থ্য বিভাগ থেকে সব কর্মকর্তা-কর্মচারীর ছুটি বাতিল করা হয়েছে। ডেঙ্গু মহামারী ঘোষণা করা হবে কি না এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, যখন একেবারেই ম্যানেজমেন্টের বাইরে চলে যায়, এ রকম পর্যায়ে এখনও আসেনি। কোনো স্থানে ব্যবস্থাপনার বাইরে চলে গেছে, এ রকম কোনো তথ্য নেই।

তিনি বলেন, সভায় চিকিৎসকের স্বল্পতার বিষয় আলোচনায় এসেছে। যে সব চিকিৎসক বিভিন্ন প্রশিক্ষণ কোর্সে আছেন, তাদের প্রশিক্ষণ বাতিল বা স্থগিত করে চিকিৎসা সেবায় নিয়োজিত করা হবে। হাসপাতালে জায়গা ও বেডের স্বল্পতা দূর করতে যেসব হাসপাতাল এখন ব্যবহার হচ্ছে না, সেগুলো সঠিকভাবে ব্যবহারের জন্য সরকারের পক্ষ থেকে উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।

ডেঙ্গু প্রতিরোধে স্কাউটের সমন্বয়ে ঢাকা দক্ষিণ এবং উত্তরে টিম গঠন, শিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে ডেঙ্গু প্রতিরোধ ও গুজব ছড়ানোর বিষয়ে জনসচেতনতা বাড়ানোর জন্য পরিপত্র জারি করা হয়েছে বলে সভায় জানিয়েছেন শিক্ষাসচিব। শিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকেও নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। তাদের অফিস এবং আবাসস্থল পরিষ্কার রাখার ব্যবস্থা রাখবেন। ডেঙ্গুর চিকিৎসার ফি নিয়ে কথা হয়েছে কি না এমন প্রশ্নে মুজিবুর রহমান বলেন, সাধারণ ডেঙ্গুর ইনভেস্টিগেশন যেটা হয় সেটা অনেক বেশি, দুই থেকে আড়াই হাজার টাকা। এটা কমিয়ে সর্বোচ্চ ৫০০ টাকা এবং মোট এক হাজার ৪০০ টাকার মধ্যে সীমাবদ্ধ রাখতে হবে। এটা স্বাস্থ্য বিভাগ থেকে সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। মুজিবুর রহমান বলেন, মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে উদ্যোগ যে আমাদের কনসার্ন মিনিস্ট্রির আরও তৎপর হওয়া এবং তাদের গৃহীত ব্যবস্থা জানা এবং সরকারের পক্ষ থেকে নির্দেশনাগুলো দেয়ার জন্য এ সভার আয়োজন।

সচিব বলেন, সব বিভাগীয় কমিশনার, জেলা প্রশাসককে ডেঙ্গুর প্রতিরোধ ব্যবস্থা ছেলেধরা গুজব এবং বন্যা নিয়ে যথাযথভাবে প্রতিকারমূলক ব্যবস্থা বা প্রতিরোধমূলক ব্যবস্থা নেয়ার জন্য অনেক আগেই প্রশাসনের সব স্তরে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। বন্যা পরিস্থিতি ইতোমধ্যে উন্নতি হচ্ছে অনেক এলাকায়। এখন পুনর্বাসনের জন্য ব্যবস্থা নিতে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। তিনি বলেন, সিটি করর্পোরেশনের ডেঙ্গুর ওষুধের কার্যকারিতা নিয়ে আলোচনায় এসেছে। সেখানে যথাযথ ব্যবস্থা নেয়ার নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ