Inqilab Logo

ঢাকা রোববার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৫ আশ্বিন ১৪২৭, ০২ সফর ১৪৪২ হিজরী

মাহে রমজান ও বাতব্যথা

প্রকাশের সময় : ৮ জুন, ২০১৬, ১২:০০ এএম

রহমতের মাস রমজান, এই মাসে রোজা রাখার পাশাপাশি সালাতুত তারাবিহ এর নামায রোজাদারগণের জন্য সওয়াব হাসিলের একটি অন্যতম উপলক্ষ্য। কিন্তু অনেক বাত-ব্যথা রোগী বিশেষ করে যারা হাঁটু বা কোমর ব্যথায় আক্রান্ত তারা এসময় বেশ অসুবিধায় পড়ে যান। তাই তাদের জন্য বাড়তি সতর্কতা প্রয়োজন। যারা দাঁড়িয়ে নামায পড়লে সমস্যা বোধ করেন তারা বসেই নামায পড়ুন। ব্যথা তীব্র হলে একজন ফিজিওথেরাপি বিশেষজ্ঞের পরামর্শ মত ফিজিওথেরাপি নেবেন। রমজান মাসে ব্যথার ওষুধ সেবনে বাড়তি সতর্কতা অবলম্বন করুন। কারণ সারাদিন রোজা রাখায় ব্যথার ওষুধ পাকস্থলির প্রদাহ সৃষ্টি করতে পারে অথবা শরীর দুর্বল করে দিতে পারে। সেহেরির পূর্বে আর ইফতারির দুই ঘণ্টা আগে ব্যায়াম করুন। কোমরে বেল্ট পড়ে বা হাঁটুর ক্যাপ পড়ে নামায পড়বেন না, এতে অস্বস্থি আরও বাড়বে। যাদের ওজন বেশি তাদের জন্য রমজান ওজন কমানোর একটি বিরাট নেয়ামত। পরিমিত খাবার গ্রহণ করে এই একমাসে ওজনটা কমিয়ে নিতে পারেন। তবে যারা ব্যথা থাকা সত্ত্বে¡ও স্বাভাবিক নিয়মে নামায আদায় করলে অসুবিধা বোধ করেন না তারা স্বাভাবিক নিয়মেই নামায আদায় করুন। নিয়মিত ফিজিওথেরাপি ব্যথা নিয়ন্ত্রণ করে আপনার স্বাভাবিক জীবন ফিরিয়ে দিতে পারে। তাই এই সময় একজন ফিজিওথেরাপি বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিন। খোশ আমদেদ মাহে রমজান ।
ষ ডা. মোহাম্মদ আলী
চীফ কনসালট্যান্ট
হাসনা হেনা পেইন এন্ড ফিজিওথেরাপি রিসার্চ সেন্টার (এইচ পি আর সি)
বাড়ি-১, শায়েস্তাখান রোড, সেক্টর-০৪, উত্তরা, ঢাকা-১২৩০।
মোবাইল- ০১৭৩২৭৬২৩৩৩, ০১৮৭২৫৫৫৪৪৪ ।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: মাহে রমজান ও বাতব্যথা
আরও পড়ুন