Inqilab Logo

ঢাকা, বুধবার, ০১ এপ্রিল ২০২০, ১৮ চৈত্র ১৪২৬, ০৬ শাবান ১৪৪১ হিজরী

মির্জাপুরে তিনদিন ধরে ডেঙ্গু শনাক্ত পরীক্ষা বন্ধ, রোগীদের ভোগান্তি চরমে

মির্জাপুর (টাঙ্গাইল) উপজেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ৫ আগস্ট, ২০১৯, ২:৫১ পিএম

টাঙ্গাইলের মির্জাপুর কুমুদিনী হাসপাতালে ডেঙ্গু শনাক্তের কিট সংকটের কারণে গত তিনদিন ধরে ডেঙ্গু শনাক্ত পরীক্ষা বন্ধ রয়েছে। ফলে জ্বরে আক্রান্তরা ভোগান্তিতে পড়েছেন বলে জানা গেছে। একই অবস্থা বিরাজ করছে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সসহ বিভিন্ন প্রাইভেট ক্লিনিক গুলোতে।
সূত্র জানায়, ২ আগষ্ট থেকে কিট সংকটের কারণে মির্জাপুর কুমুদিনী হাসপাতাল ডেঙ্গু শনাক্ত করা বন্ধ রয়েছে। একই সংকট চলছে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সসহ এ উপজেলার বিভিন্ন স্থানে গড়ে উঠা বেসরকারি ক্লিনিকেও। ফলে জ্বরে আক্রান্তরা ডেঙ্গু শনাক্ত করার জন্য রাজধাণী ঢাকাসহ বিভিন্ন জেলা শহরের বড় হাসপাতালে গিয়ে ভিড় করছে।
উপজেলার পাথরঘাটা গ্রামের শিল্পী আক্তর, বহুরিয়া গ্রমের জুলেখা বেগমসহ অনেকেই জানান, জ্বর নিয়ে কুমুদিনী হাসপাতালে আসার পর ডাক্তার ডেঙ্গু পরীক্ষা করতে বলেন। কিন্ত ডেঙ্গু শনাক্তের কিট না থাকায় হাসপাতালে পরীক্ষা করা যাচ্ছে না। এজন্য তারা বাড়ি ফিরে যাচ্ছেন বলে জানান।
মির্জাপুর কুমুদিনী হাসপাতালের সহকারী জেনারেল ম্যানেজার অনিমেশ ভৌমিক জানান কিট না থাকার কারনে রোববার তাদের হাসপতালে ডেঙ্গু শনাক্ত করতে আসা কয়েকজনকে টাঙ্গাইল সদর হাসপাতাল পাঠানো হয়েছে।
সদরের বংশাই রোডে অবস্থিত বেসরকারি ক্লিনিক বংশাই ডিজিটাল হাসপাতালের ব্যবস্থাপনা পরিচালক হারুন অর রশিদ বলেন ১৪৫ টাকার কিট ৪০০ টাকাতেও পাওয়া পাওয়া যাচ্ছে না।
কুমুদিনী হাসপাতালে স্থাপিত সিএইচআরএফ ল্যাবের ইনচার্জ সৌমিত্র চক্রবর্তী জানান, প্রতিদিন তাদের ল্যাবে ৫০/৬০ জন রোগীর ডেঙ্গু পরীক্ষা হত। কিন্তু কিট সংকটের কারনে গত তিনদিন ধরে ডেঙ্গু শনাক্তের পরীক্ষা করা বন্ধ রয়েছে। ফলে এসব রোগী তাদের রোগ শনাক্ত না করে ফেরৎ চলে যাচ্ছে। এ বিষয়টি উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে অবহিত করা হয়েছে বলে তিনি জানান।
মির্জাপুর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. শামীম আহমেদ বলেন কিট সংকটের কারনে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ডেঙ্গেু পরীক্ষা হচ্ছেনা। রোগী আসলে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে জেলা সদর হাসপাতালে পাঠানো হচ্ছে বলে তিনি উল্লেখ করেন।#



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: মির্জাপুর


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ