Inqilab Logo

ঢাকা রোববার, ২৯ নভেম্বর ২০২০, ১৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ১৩ রবিউস সানি ১৪৪২ হিজরী

অধিকৃত কাশ্মীর থেকে সংখ্যালঘুদের নিশ্চিহ্ন করবে ভারত

পার্লামেন্টে ইমরান খান

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৭ আগস্ট, ২০১৯, ১২:০১ এএম

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান গতকাল মঙ্গলবার অধিকৃত কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা বাতিল করার জন্য ভারতের অবৈধ ও একতরফা পদক্ষেপ নিয়ে গুরুতর উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন। তিনি প্রকাশ আশঙ্কা করছেন যে, নয়াদিল্লি এই বিতর্কিত উপত্যকা থেকে সংখ্যলঘুদের নিশ্চিহ্ন করে দেবে।

পার্লামেন্টের যৌথ অধিবেশনে দেয়া বক্তব্যে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমি আশঙ্কা করি যে ভারত সরকার এখন কাশ্মীরে জাতিগতভাবে সংখ্যালঘুদের নির্মূল করবে। তিনি বলেন, ‘অধিকৃত কাশ্মীর কবরস্থানে পরিণত হয়েছে। তবে স্বাধীনতার আন্দোলন জোর খাটিয়ে থামিয়ে দেয়া যায় না। কাশ্মীরে তারা যা করেছে তা তাদের আদর্শ অনুসারে। তাদের ধর্ম বিদ্বেষী মতাদর্শ রয়েছে।’

পাক প্রধানমন্ত্রী পুনরায় উল্লেখ করেন, ভারত যদি আক্রমণাত্মক নকশা অনুসরণ করে তবে পাকিস্তানের সশস্ত্র বাহিনী প্রতিশোধ নেবে। তিনি বলেন, সংবিধানের ৩৭০ অনুচ্ছেদ বাতিল করার ভারতের সিদ্ধান্তটি পূর্ব পরিকল্পিত ছিল এবং নরেন্দ্র মোদির নির্বাচনী ইশতেহারের অংশ ছিল।

ইমরান খান বলেন, পাকিস্তান প্রতিবেশী দেশগুলির সাথে আরও ভাল সম্পর্ক চায় তবে ভারত সরকার আরএসএসের ফ্যাসিবাদ আদর্শ অনুসরণ করছে। নয়াদিল্লি আগেও আলোচনায় বসতে প্রত্যাখান করেছে জানিয়ে তিনি বলেন, ভারতকে দৃঢ় ভাবে জানিয়ে দেয়া হয়েছিল যে পুলওয়ামা হামলায় পাকিস্তান জড়িত ছিল না। কিন্তু তারা পাকিস্তানের ঘাড়ে দোষ চাপানোর চেষ্টা করেছিল।’ ইসলামাবাদের আন্তরিকতা প্রকাশ করতে ও শুভেচ্ছার ইঙ্গিত হিসাবে ভারতীয় পাইলটকেও ফিরিয়ে দেওয়া হয়েছিল বলে জানান তিনি। তিনি বলেন, ‘ভারত সরকার তার ধর্ম বিদ্বেষী আদর্শ প্রচারের জন্য নিজেদেরই সংবিধান লঙ্ঘন করেছে এবং অধিকৃত কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদাকে বাতিল করে দিয়েছে।’ সূত্র : এক্সপ্রেস ট্রিবিউন।



 

Show all comments
  • Sk Masum ৭ আগস্ট, ২০১৯, ২:০৬ এএম says : 0
    আল্লাহ যেন কাশ্মীরকে আলাদা একটি মুসলিম রাষ্ট্র হিসেবে কবুল করে নিন । আমরা সবাই আল্লাহর কাছে দোয়া করব।
    Total Reply(0) Reply
  • Arif Hossen Saddam ৭ আগস্ট, ২০১৯, ২:০৮ এএম says : 0
    আমি চাই ভারত এবং পাকিস্তান তারা দুজনেই কিছু ছার দিয়ে একটা সাধীন রাষ্ট্র গঠন করে দিক। এতে সেনা এবং সাধারণ মানুষ উভয়ই বাচবে
    Total Reply(0) Reply
  • Muhammad Rakel ৭ আগস্ট, ২০১৯, ২:০৯ এএম says : 0
    কাশ্মিরের সাংবিধানিক অধিকার কেড়ে নেওয়া রাষ্ট্রীয় ও মানবতাবিরোধী অপরাদ.এই বিশ্ব মন্ডলে ভারতকে এর চরন জবাব দিতে হবে একদিন,সে দিন আসবেই! ইতিহাসে এমন অনেক ঘটনাই আছে!
    Total Reply(0) Reply
  • Effat Ara Era ৭ আগস্ট, ২০১৯, ২:১২ এএম says : 0
    কাশ্মীর একটি স্বাধীন রাষ্ট্রে পরিণত হওয়া সময়ের ব্যপার, কাশ্মীরিরা তোমরা অপেক্ষা কর নিশ্চয় অপেক্ষার ফল অনেক মিষ্টি হয়।।
    Total Reply(0) Reply
  • নজরুল ইসলাম ৭ আগস্ট, ২০১৯, ২:১৩ এএম says : 0
    আল্লাহ তুমি তাদের প্রতি রহমত নাযিল করো।
    Total Reply(0) Reply
  • MD Obydur Rahman ৭ আগস্ট, ২০১৯, ২:১৩ এএম says : 0
    কাশ্বীরের স্বাধীনতা প্রাপ্য।এবার রক্ত চাইলে ভারত খুবই ভুল করবে।হারে হারে মাসুল গুনতে হবে
    Total Reply(0) Reply
  • কাজী মোঃ ফজল উদ্দিন ৭ আগস্ট, ২০১৯, ২:১৪ এএম says : 0
    আমার একটাই দাবি দোনিয়ার যাই করবায় মরার পরে সব হিসাব দিতে হবে তাই নির্যাতন বন্দ করুন।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ