Inqilab Logo

ঢাকা রোববার, ২৯ নভেম্বর ২০২০, ১৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ১৩ রবিউস সানি ১৪৪২ হিজরী
শিরোনাম

কাশ্মীরিদের জন্য দায়িত্ব পালনে প্রস্তুত পাকিস্তান সেনাবাহিনী

কোর কমান্ডারদের বৈঠক

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৭ আগস্ট, ২০১৯, ১২:৪৩ এএম

পাকিস্তানের সামরিক নেতৃত্ব জানিয়েছে, দেশের সেনাবাহিনী কাশ্মীরের জনগণের জন্য সব ধরনের দায়িত্ব পালনে প্রস্তুত রয়েছে। গতকাল পাকিস্তানের আন্তঃবাহিনী জনসংযোগ পরিদপ্তর বা আইএসপিআর থেকে প্রকাশিত এক বিবৃতিতে একথা ঘোষণা করা হয়েছে। রাওয়ালপিন্ডির সেনা সদরদপ্তরে অনুষ্ঠিত কোর কমান্ডারদের বৈঠকের পর এ বিবৃতি প্রকাশ করা হয়।
বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ভারত সরকার কাশ্মীর ইস্যুতে যে পদক্ষেপ নিয়েছে তা পাকিস্তান সরকার প্রত্যাখ্যান করেছে। সামরিক বাহিনী পাকিস্তান সরকারের এ অবস্থানের প্রতি পরিপূর্ণ সমর্থন জানাচ্ছে।
আইএসপিআর’র বিবৃতিতে বলা হয়েছে, জম্মু-কাশ্মীরের ওপর ভারতের দখলদারিত্বকে কখনো পাকিস্তান সরকার স্বীকার করে না, ভারতীয় সংবিধানের ৩৭০ ও ৩৫ নম্বর অনুচ্ছেদ বাতিল করে কাশ্মীরের স্বতন্ত্র মর্যাদা নস্যাতকেও মেনে নেবে না। কাশ্মীর ইস্যুকে কেন্দ্র করেই পাকিস্তান সামরিক কোর কমান্ডারদের এদিনের এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয় এবং সেখানে একটি মাত্র এজেন্ডা নিয়ে আলোচনা হয়েছে।
পাকিস্তান সেনাবাহিনীর আইএসপিআরের মুখপাত্র আসিফ গফুর তার অফিসিয়াল পেজে এক টুইট বার্তায় বলেন, কয়েক দশক আগে অনুচ্ছেদ ৩৭০ বা ৩৫/এ-এর মাধ্যমে জম্মু ও কাশ্মীরের দখলকে বৈধকরণে ভারতীয় প্রচেষ্টাকে কখনোই স্বীকৃতি দেয়নি পাকিস্তান, যেটি এখন ভারত নিজেই বাতিল করে দিয়েছে।
পাকিস্তানের সেনাবাহিনীর প্রধান জেনারেল কামার জাবেদ বলেন, কাশ্মীরিদের শেষ সংগ্রামে কাশ্মীরিদের শেষ লড়াইয় পর্যন্ত পাকিস্তানি সেনাবাহিনী দৃঢ়ভাবে তাদের পাশে রয়েছে। আমাদের দায়বদ্ধতা থেকে যতদূর করতে হয় তার জন্য আমরা প্রস্তুত।
এর আগে সোমবার সকালে ভারতীয় পার্লামেন্টের উচ্চকক্ষ রাজ্যসভায় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ও বিজেপি সভাপতি অমিত শাহ ৩৭০ ধারা বাতিলের প্রস্তাব করেন। সংসদের অনুমোদনের পরই প্রেসিডেন্ট রামনাথ কোবিন্দ এই প্রস্তাবে স্বাক্ষর করেন। প্রেসিডেন্টের সইয়ের সঙ্গে সঙ্গেই কাশ্মীরকে বিশেষ রাজ্যের মর্যাদা দেয়া ৩৭০ ধারা বিলুপ্ত হয়। সেই সঙ্গে একটি স্বায়ত্তশাসিত রাজ্যের মর্যাদাও হারায় কাশ্মীর। এদিকে গতকাল কংগ্রেসসহ বিরোধীদের প্রবল প্রতিবাদের মধ্যে ৩৫১-৭২ ভোটে লোকসভায়ও জম্মু-কাশ্মীর পুনর্গঠন বিল পাস হয়।
আইনটি পাস করার আগে থেকে জম্মু ও কাশ্মীরে ২০১৬ সালের ৪ এপ্রিল থেকে ২০১৮ সালের ১৯ জুন পর্যন্ত মুখ্যমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করা মেহবুবা মুফতিকে গৃহবন্দি করে রেখেছিল ভারত সরকার। পরে তাদের সোমবার রাতে গ্রেফতার করা হয়।



 

Show all comments
  • নাজমুল আলম পাপন ৭ আগস্ট, ২০১৯, ২:০২ এএম says : 1
    বাংলাদেশ পাকিস্তান ভাগাভাগি করার জন্য ভারত বাংলাদেশের পাশে দাড়িয়েছিল, এখন পাকিস্তানের উচিত ভারত কাশ্মীর ভাগাভাগির জন্য কাশ্মীরের পাশে থাকা. কাশ্মীরকে আলাদা মুসলিম রাষ্ট্র হিসেবে ঘোষণা করা
    Total Reply(0) Reply
  • Saiful Islam ৭ আগস্ট, ২০১৯, ২:০৪ এএম says : 4
    এক পাকিস্তানের ক্ষমতার দাম্ভিকতা কারণে মুসলিমরা দুইভাগে বিভক্ত এই বার ভারতের পালা ! কারণ ভারতের বড় শক্র চীন পাকিস্তান কাশ্মীরে সাথে থাকবে !
    Total Reply(0) Reply
  • Rokan Uddin Noyeem ৭ আগস্ট, ২০১৯, ২:০৫ এএম says : 1
    চীন, বাংলাদেশ, পাকিস্তান আর নেপাল মিলে ভারতটাকে ভাগ করে নিলেই পারি। তাহলে আর কোনো সমস্যাই থাকলো না এ অঞ্চলে।
    Total Reply(0) Reply
  • Abdullah Al Sohel ৭ আগস্ট, ২০১৯, ২:০৬ এএম says : 1
    সময়ের সঠিক সিদ্ধান্ত নিয়েছে পাকিস্তানি সেনাবাহিনী। এখন উচিত আমাদের দেশের সেনাবাহিনীকে ও কাশ্মীরদের পাশে দাঁড়ানো। জানি আমাদের সরকার কখনো তা করবে না তারপর ও আমরা আমাদের সরকার কে অনুরোধ করি অসহায় কাশ্মীরদের পাশে দাঁড়ানোর জন্য কাশ্মীর স্বাধীন হোক তাই আমরা চাই, ইনশাআল্লাহ্‌
    Total Reply(0) Reply
  • নাজিম উদ্দিন ৭ আগস্ট, ২০১৯, ২:১২ এএম says : 1
    ভেঙ্গে খন্ড বিখন্ড হোক ভারত। নইলে ওদের মিথ্যে দম্ভ আর জুলমের অবসান হবে না।
    Total Reply(0) Reply
  • Nahid Ahmed ৭ আগস্ট, ২০১৯, ২:১৪ এএম says : 1
    জুলুম নির্যাতন করে মুক্তি কামী মানুষকে দাবিয়ে রাখা যায় না,ইতিহাস তাই বলে।কাশ্মীরা স্বাধীন চেতা হলে তাদের কে দাবিয়ে রাখতে পারবে না। আল্লাহ তুমি সহায় হও। জুলুমবাজ দের ধব্বংস করে দাও।
    Total Reply(0) Reply
  • Homayun kobir ৭ আগস্ট, ২০১৯, ৫:৩৩ এএম says : 1
    Valo
    Total Reply(0) Reply
  • jai hind ৭ আগস্ট, ২০১৯, ১০:৪২ এএম says : 1
    তোমরা... ছেড়ো ;) আর আমিন আমিন করো ........ কাংলার দল !!!!!!!!! ভিখারির জাত !!!!!!!!!!!!
    Total Reply(0) Reply
  • kkio ৭ আগস্ট, ২০১৯, ৭:৫৪ এএম says : 1
    Pakistan should convince China to do the economic suicide that Trump is asking. Japan did that in 1990 to pump up US economy. Waging war on Middle east is not pumping the US economy well enough to tackle its crisis. US is not worried about rising power of China and US does not need India at all. Stop this foolish analysis. If China does economic suicide to boost US economy, US will dump India in tiolet box. Pakistan can get some relief and can suffocate India to death. India has zero value to any country in the world.
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ