Inqilab Logo

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২২ আগস্ট ২০১৯, ০৭ ভাদ্র ১৪২৬, ২০ যিলহজ ১৪৪০ হিজরী।

গুম, হত্যা নিয়ে প্রধানমন্ত্রী অবলীলায় মিথ্যাচার করছেন- রিজভী

ডেঙ্গুর পরামর্শের জন্য ড্যাবের হটলাইন চালু

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ৭ আগস্ট, ২০১৯, ৩:৩৪ পিএম

দেশে অসংখ্য মানুষ গুম, বিচারবহির্ভূত হত্যাকাণ্ডের শিকার হলেও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমে মিথ্যাচার করছেন বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী বিবিসিকে সাক্ষাতকারে বলেছেন, বিচারবহির্ভূত হত্যা ও গুমের কথা নাকি গণমাধ্যম বেশি বেশি প্রচার করছে! আসলে কী তাই? দেশের সাংবাদিক ঢাকা থেকে গুম হয়ে উদ্ধার হয় সুনামগঞ্জে। তারপরও নাকি গণমাধ্যম বেশি বেশি প্রচার করা হচ্ছে বলে সাক্ষাতকার দিয়ে অবলীলায় মিথ্যা বলছেন। তাহলে আমাদের ইলিয়াস আলী, চৌধুরী আলম, সাইফুল ইসলাম হিরু, হুমায়ুন পারভেজ, জাকির, সুমন সহ অন্যরা কই? প্রধানমন্ত্রী জবাব দিন। আসলে সরকার মানুষের সামনে বক্তব্যের ধোয়া উড়াচ্ছে। মানুষের সাথে রং তামাশা করছে। অন্যদিকে বিএনপি সবসময় জনকল্যাণে কাজ করে। আজো ডেঙ্গু নিয়ে বিশিষ্ট চিকিৎসকেরা সচেতন করতে কাজ করছে। লিফলেট বিতরণ করছে।

বুধবার (৭ আগস্ট) দুপুরে নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের নিচতলায় ডেঙ্গু পরামর্শ কেন্দ্র ও হটলাইনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

রুহুল কবির রিজভী বলেন, দেশে একটা ভয়ঙ্কর পরিস্থিতি বিরাজমান। ডেঙ্গু রোগ মহামারীর রূপ নিয়েছে। কিন্তু সরকার কোনো গুরুত্ব দেয়নি। ভোটারবিহীন সরকার ডেঙ্গু সম্পর্কে বিভিন্ন আন্তর্জাতিক ও দেশীয় সংস্থা ও সুশীল সমাজের সতর্ক বার্তাকে ভ্রুক্ষেপ করেনি। বরং মশকরা আর উপহাস করেছে। যিনি প্রধান দায়িত্বে ছিলেন সেই মন্ত্রী দেশের বাইরে গেছেন। শুনেছি প্রধানমন্ত্রীও অসুস্থ তিনিও দেশের বাইরে। কিন্তু এখন কুরবানীর ঈদ উপলক্ষে লাখ লাখ লোক গ্রামে যাবেন। কিন্তু ডেঙ্গু প্রতিরোধে প্রত্যন্ত অঞ্চলে কোনো কার্যকর ব্যবস্থা নেই। যেখানে ঢাকাতেই এই রোগে আক্রান্ত হয়ে চিকিৎসক, শিক্ষার্থীসহ অনেকেই প্রতিদিন মারা যাচ্ছে। তাহলে গ্রামগঞ্জের কী অবস্থা হবে? ৬৪ জেলায় এখন ডেঙ্গু। এটা আরো তীব্রতর হলে কি পরিমাণ মড়ক শুরু হবে? তার ইয়ত্তা নেই। অথচ সরকার কোনো পদক্ষেপ নেয়নি। সরকারের প্রস্তুতি কী। কী করছে তারা?

তিনি বলেন, বিবিসির মতো গণমাধ্যমে আপনি (প্রধানমন্ত্রী) অবলীলায় মিথ্যা বলে গেলেন। নাকি যতটুকু প্রচার করা দরকার ততটুকু তারা প্রচার করতে পারছেনা। গণমাধ্যমের ওপর ভয়ঙ্কর বিধিনিষেধের তরবারি ঝুলিয়ে রাখা হয়েছে। এরমধ্যেও মিডিয়া ডেঙ্গু নিয়ে গুরুত্বপ‚র্ণ ভ‚মিকা পালন করেছে। আসলে যে দেশে মিডিয়ার স্বাধীনতা অনুপস্থিত, গণতন্ত্র নেই, বাকস্বাধীনতা নেই সেখানে তো মড়ক লাগবে, মহামারী লাগবে, দুর্ভিক্ষ লাগে এটাই স্বাভাবিক।

রিজভী বলেন, রাতে বা দিনে কেউ যদি সত্য কথা বলতে চায় তাহলে তার কাছে অজানা টেলিফোন চলে আসে। তারপরও প্রধানমন্ত্রী বিবিসির মতো একটি গণমাধ্যমে অবলীলায় মিথ্যা কথা বলেছেন। এ পরিস্থিতি চলতে পারেনা। এটা চলতে দেয়া যায়না। আজকে এই দুর্দিন ও মহামারী, সরকারের দু:শাসন অনাচার অত্যাচারের বিরুদ্ধে যেনো কোনো কথা বলতে না পারে সেজন্যই দেশের জনগণের প্রাণপ্রিয় নেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে কারাগারে বন্দী করে রাখা হয়েছে।

তিনি বলেন, আজকে সবাই মুখাপেক্ষী। যে আদালত মানুষের আস্থার শেষ ভরসা ছিল সেই আদালতও সরকারের মন্ত্রী এমপিদের ভাষায় কথা বলছে। দেশে ন্যায় বিচার থাকলে বেগম খালেদা জিয়া জেলে থাকতেন না। যে নেত্রী গণতন্ত্রের জন্য সারাজীবন লড়াই করেছেন তাকে বন্দি করা হয়েছে।

ড্যাবের কর্মকাণ্ডের প্রশংসা করে রিজভী বলেন, আজকে ডেঙ্গু আক্রান্ত মানুষের পাশে দাঁড়ানোর জন্য ড্যাব হটলাইন চালু করেছে যা খুবই গুরুত্বপ‚র্ণ। যে কেউ ডেঙ্গু বিষয়ে পরামর্শ জানতে চাইলে সহজেই সহযোগিতা পাবেন। ০১৩০৬৮৫৯৬৬৪ নাম্বারে কল করলে যে কেউ ডেঙ্গু বিষয়ে পরামর্শ জানতে পারবেন। বিএনপির অন্য অঙ্গ সংগঠনগুলোও পাড়ায় মহল্লায় ডেঙ্গু সচেতনতায় লিফলেট বিতরণ করছে।

ড্যাবের সভাপতি অধ্যাপক ডাঃ হারুন আল রশিদ বলেন, আমরা মানবিক কারণে কাজ করছি। আজকে ডেঙ্গু আক্রান্ত মানুষের পদভারে হাসপাতালে ঠাঁই নেই অবস্থা। এজন্য মানুষের পাশে দাঁড়াতে আমরা ড্যাবের পক্ষে বিভিন্ন কর্মস‚চি পালন করে আসছি। আমাদের হটলাইনে যে কেউ ফোন করে ডেঙ্গু রোগ নিয়ে পরামর্শ জানতে পারবেন।

ড্যাবের মহাসচিব আবদুস সালাম বলেন, ডেঙ্গু এখন সারা দেশে মহামারী আকার ধারণ করেছে। কিন্তু সরকার প্রকৃতপক্ষে কোনো পদক্ষেপ নেয়নি। ডেঙ্গু রোগ সামাল দেয়া যাচ্ছে না। অবিলম্বে ডেঙ্গুকে মহামারী ও জাতীয় দুর্যোগ ঘোষণা করা হোক। এজন্য আমরা সরকারকে দাবি জানাচ্ছি। তাহলে সবাই ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণে উদ্যোগ নিবে। সবাইকে সচেতন হতে হবে এর কোনো বিকল্প নেই।

বিএনপিপন্থী চিকিৎসকদের সংগঠন ডক্টরস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ড্যাব) এর উদ্যোগে এই কর্মসূচীর আয়োজন করা হয়। ড্যাবের সভাপতি অধ্যাপক ডাঃ হারুন আল রশিদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। অন্যদের মধ্যে আরো বক্তব্য রাখেন ড্যাবের সিনিয়র সহসভাপতি মো: আবদুস সেলিম, মহাসচিব অধ্যাপক ডাঃ আব্দুল সালাম, কোষাধ্যক্ষ ডাঃ জহিরুল ইসলাম শাকিল, ডা: মোঃ ফখরুজ্জামান, ড্যাবের তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক ডা: মোঃ সায়েম, ফারুক কাশেম, মশিউর রহমান কাজল প্রমুখ। হটলাইন উদ্বোধনের পর নয়া পল্টন এলাকায় লিফলেট বিতরণ করেন রুহুল কবির রিজভী।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: রিজভী


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ