Inqilab Logo

ঢাকা, বুধবার, ২১ আগস্ট ২০১৯, ০৬ ভাদ্র ১৪২৬, ১৯ যিলহজ ১৪৪০ হিজরী।

মীরসরাইয়ে ব্যস্ত ছাতা কারিগররা

ইমাম হোসেন, মীরসরাই (চট্টগ্রাম) থেকে | প্রকাশের সময় : ১১ আগস্ট, ২০১৯, ১২:০১ এএম

রোদ কিংবা বৃষ্টি ছাতাতেই তুষ্টি। তবে বর্ষাকালে ছাতার ব্যবহার অন্য সময়ের তুলনায় বেড়ে যায়। সেই সঙ্গে বাড়ে ছাতা কারিগরদের ব্যস্ততা। ব্যতিক্রম নয় মীরসরাই উপজেলাও। বৃষ্টির কারণে উপজেলার বিভিন্ন স্থানে মানুষ ভিড় করছে নষ্ট ছাতা মেরামত করতে। ফলে এখন সময় ছাতা কারিগরদের।
উপজেলার বিভিন্ন বাজার ঘুরে ছাতা কারিগরদের ব্যস্ততা চোখে পড়ে। টানা বৃষ্টিতে অন্য ব্যবসায়ীরা বসে অলস সময় পার করলেও ব্যস্ত সময় পার করছে ছাতা কারিগররা।
উপজেলার বারইয়ারহাট, করেরহাট মিঠাছরা, নিজামপুর, মীরসরাই, বড়তাকিয়া, আবু-তোরাব, জোরারগঞ্জসহ বিভিন্ন বাজার ঘুরে দেখা গেছে, অন্য সময়ের তুলনায় ছাতা কারিগরদের ব্যস্ততা চোখে পড়ার মত। তারা নাওয়া-খাওয়া ভুলে রাত-দিন কাজ করে যাচ্ছেন। তবে ছাতা মেরামতের সামগ্রীর দাম বেড়ে যাওয়ায় একটু বেশি টাকা নিচ্ছে বলে অভিযোগ জনসাধারণের।
বারইয়ারহাট পৌরসদরে ছাতা কারিগর ইমরান হোসেন জানান, টানা বৃষ্টিতে উপজেলার বিভিন্ন স্থান থেকে পুরনো ও নষ্ট ছাতা মেরামত করতে কারিগরদের কাছে ছুটছে সাধারণ মানুষ। তিনি দৈনিক ১৫ থেকে ২০টি ছাতা মেরামত করে থাকেন। ছাতা মেরামত করে দৈনিক এক হাজার থেকে এক হাজার ৫০০ টাকা আয় করে থাকেন। তবে বছরের অন্য সময় ব্যস্ততা তেমন থাকে না।
বারইয়ারহাট পৌরসভায় ছাড়া মেরামত করতে আসা দিদারুল আলম জানান, তার ঘরে দুটি ছাতা নষ্ট হয়ে গেছে। তিনি ছাতাগুলো মেরামত করতে বারইয়ারহাট পৌরসভায় এসেছেন। একটি ছাতা মেরামত করতে ১০০ টাকা নিচ্ছে ছাতার কারিগর ইমরান হোসেন। কারিগর ইমরান হোসেন আরো জানান, তার বাড়ি ফরিদপুর। তিনি প্রত্যেক বছর বৃষ্টির সময় চট্টগ্রামসহ বিভিন্ন জেলা উপজেলায় ছাতা মেরামত করতে বের হন। প্রতিদিন ২৫ থেকে ৩০টি ছাতা মেরামত করে থাকেন। এতে দৈনিক দেড় হাজার থেকে দুই হাজার টাকা আয় করেন।
আবুতোরাব বাজারের ভ্রাম্যমাণ ছাতা কারিগর সিরাজুল ইসলাম জানান, ছাতা মেরামত করা তার পৈতৃক পেশা। তিনি গ্রামে গ্রামে ঘুরে ছাতা মেরামত করে থাকেন। তিনি দৈনিক প্রায় ৩০টি ছাতা মেরামত করে থাকেন। তা দিয়ে বৃষ্টি মৌসুমে ভালোই চলে তার সংসার। তবে অন্য সময়ে অলস বসে থাকতে হয়।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ