Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার, ২০ আগস্ট ২০১৯, ০৫ ভাদ্র ১৪২৬, ১৮ যিলহজ ১৪৪০ হিজরী।

শেষ সময়ে জমজমাট ছাগলনাইয়ার পশুর হাট

ছাগলনাইয়া (ফেনী) উপজেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ১১ আগস্ট, ২০১৯, ১২:০১ এএম

রাত পোহালেই ঈদ। তাই সবাই পছন্দের পশু সংগ্রহ করতে ব্যস্ত সময় পার করছেন। ঈদুল আজহা উপলক্ষে ফেনীর ছাগলনাইয়া উপজেলায় শেষ মুহূর্তে জমে উঠেছে কোরবানির পশুর হাট। ঈদ যতো এগিয়ে আসছে, ততই বাড়ছে বেচাবিক্রি। ক্রেতাদের পাশাপাশি বিভিন্ন জেলা থেকে আসা ব্যাপারীরাও হাটগুলোতে ভিড় করছেন। ছাগলনাইয়া প্রধান পশুর হাটগুলো হচ্ছে, ছাগলনাইয়া বাজার, চাঁদগাজী বাজার, মির্জার বাজার, জঙ্গলমিয়া বাজার, দারোগারহাট বাজার, বাংলাবাজার, শুভপুর বাজার, মধুগ্রাম জিনারহাট বাজার, মনুরহাট বাজার, মুহুরীগঞ্জ বাজার।
সরেজমিনে গতকাল উপজেলার জঙ্গলমিয়া বাজার, দারোগারহাট বাজার ও মনুরহাট বাজারে গিয়ে দেখা যায়, ছোট-বড় ও মাঝারি আকারের অসংখ্য দেশি গরু হাটে উঠেছে। ৪০ হাজার থেকে শুরু করে দুই লাখ টাকার গরুও হাটে এসেছে। অসংখ্য দেশি গরুতে সয়লাব হাট-বাজারগুলো। দেশীয় খামারীরা ভালো দাম পাওয়ায় সন্তোষ প্রকাশ করছেন।
বিক্রেতারা জানান, এবার ভারতীয় গরু আমদানি হলে দেশের উৎপাদিত গরু বেচাকেনার জন্য সমস্যা হতো। এছাড়া হাটে উল্লেখযোগ্য সংখ্যক ছাগল ও মহিষ নিয়ে এসেছেন বিক্রেতারা। উপজেলার সর্বত্র গরু-ছাগলের হাটের উপর সর্বোচ্চ নিরাপত্তা থাকবে বলে জানিয়েছেন নির্বাহী অফিসার শাহিদা ফাতেম চৌধুরী ও থানার ওসি মেজবাহ উদ্দিন আহমেদ। উপজেলার বিভিন্ন হাটে জাল টাকা, মলম পার্টি ও ছিনতাইকারী ধরতে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর বিশেষ টিম সার্বক্ষণিক কাজ করবে বলে জানিয়েছেন উপজেলা প্রশাসনের এই দুই কর্মকর্তা।
ফেনী জেলা প্রশাসক মো. ওয়াহিদুজ্জামান বলেন, জেলার প্রতিটি পশুর হাটে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর বিশেষ টিম সার্বক্ষণিক নিয়োজিত থাকবে। মলম পার্টি, ছিনতাইকারী কিংবা জাল টাকা লেনদেনে যারা জড়িত থাকবে তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।
সম্প্রতি পুলিশের এক সভায় জেলা পুলিশ সুপার খোন্দকার নুরুন নবী যেকোন মূল্যে পশুর হাটে আইন শৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণে রাখার ঘোষণা দিয়েছেন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন