Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৫ অক্টোবর ২০১৯, ৩০ আশ্বিন ১৪২৬, ১৫ সফর ১৪৪১ হিজরী
শিরোনাম

ড. মঈন খানের বাসায় কূটনীতিকদের নৈশভোজ

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১৫ আগস্ট, ২০১৯, ১২:০১ এএম

ঈদের ছুটিতে গত ১৩ আগস্ট মঙ্গলবার সন্ধ্যায় বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. আবদুল মঈন খানের বাসায় বিভিন্ন দেশের কূটনীতিক ও জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের নেতারা ঈদ-পরবর্তী শুভেচ্ছা বিনিময় করেছেন। পরে সকলেই নৈশভোজে অংশগ্রহণ করেন। বিএনপি চেয়ারপারসনের মিডিয়া উইংয়ের সদস্য শায়রুল কবির খান জানান, ড. মঈন খানের বাসায় ক‚টনীতিকদের ঈদের শুভেচ্ছা বিনিময় ছিল।

বিএনপির দায়িত্বশীল সূত্রে জানা গেছে, মঈন খানের গুলশান-২ এর বাসায় এ নৈশভোজে যুক্তরাজ্য, যুক্তরাষ্ট্র ও অস্ট্রেলিয়ার হাইকমিশনার, জার্মানি, ফ্রান্স, সুইডেন, সুইজারল্যান্ডসহ বিভিন্ন দেশের কূটনীতিক এবং জাতিসংঘের প্রতিনিধিরা অংশগ্রহণ করেন। এছাড়া ছিলেন জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের শরিক দল জেএসডির সভাপতি আ স ম আব্দুর রব, নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না, গণফোরামের নির্বাহী সভাপতি অ্যাডভোকেট সুব্রত চৌধুরী। সূত্র জানায়, বৈঠকে লন্ডন সফরকালে বিবিসি বাংলাকে দেয়া প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সাক্ষাৎকারে উঠে আসা বিষয়গুলো ও একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন নিয়ে আলোচনা হয়েছে। অন্য একটি সূত্র জানায়, জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের পক্ষ থেকে একাদশ সংসদ নির্বাচন বাতিল করে পুনর্নির্বাচনের বিষয়টিও আলোচনায় নিয়ে আসা হয়। তবে কূটনীতিকরা এ বিষয়ে সুনির্দিষ্ট কোনো কিছু বলেননি। অ্যাডভোকেট সুব্রত চৌধুরী জানান, আলোচনায় নির্দিষ্ট কোনো এজেন্ডা ছিল না। তবে সার্বিক রাজনৈতিক পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনা হয়েছে।

বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া কারাগারে যাওয়ার আগে প্রতি ঈদেই কূটনীতিকদের সঙ্গে ঈদের শুভেচ্ছা বিনিময় করতেন। গত বছর থেকে তিনি কারাগারে। খালেদা জিয়া কারাগারে যাওয়ার পর দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. মঈন খান কূটনীতিকদের নিয়ে শুভেচ্ছা বিনিময়ের প্রথাটি চালু রেখেছেন। তবে বিএনপির চেয়ারপারসন কার্যালয়ের একাধিক নির্ভরযোগ্য সূত্র জানায়, মঈন খানের বাসায় প্রতি বছর অন্তত তিনবার কূটনীতিকদের এ ধরনের আপ্যায়ন করা হয়। ঈদুল ফিতর, ঈদুল আজহা ও গত কয়েক বছর ধরে পহেলা বৈশাখে এ আয়োজন করা হয়ে থাকে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ