Inqilab Logo

ঢাকা, শুক্রবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৫ আশ্বিন ১৪২৬, ২০ মুহাররম ১৪৪১ হিজরী

গফরগাঁওয়ে সালিস বৈঠকেই খুন

গফরগাঁও (ময়মনসিংহ) উপজেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ১৬ আগস্ট, ২০১৯, ১২:০৩ এএম

গফরগাঁও উপজেলার দক্ষিণে টাংগাবর ইউনিয়নের দুবাসিয়া গ্রামে প্রবাসীর স্ত্রীর সাথে ভাসুরের পরকীয়া নিয়ে সালিশ বৈঠক চলাকালে প্রতিপক্ষের হাতে মোঃ রফিকুল ইসলাম ওরফে রহিত (৫৪) নামে এক ব্যক্তি খুন হয়েছে। এঘটনাটি ঘটেছে মঙ্গলবার সকালে টাঙ্গাব ইউনিয়নের দুবাসিয়া হোয়ালিটেক গ্রামে।

পাগলা থানার ওসি শাহীনুজ্জামান জানান, ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে উছমান আলী ও মুক্তা বেগম নামে এক গৃহবধূকে আটক করা হয়েছে বলে জানান।

গত মঙ্গলবার রাতে নিহতের মেয়ে মোছাঃ শাহনাজ বেগম বাদী হয়ে হত্যা মামলা দায়ের করেন। এলাকাবাসী সুত্রে জানা গেছে, ওই গ্রামের মালয়েশিয়া প্রবাসী মোঃ এখলাছ মিয়ার স্ত্রী মুক্তা বেগমের সাথে দীর্ঘদিন ধরে মন দেয়া নেয়া চলছিল প্রতিবেশী ভাসুর উছমান আলীর। মন দেয়া নেয়ার এক পর্যায়ে মুক্তা বেগমের গর্ভে জন্ম নেয় এক সন্তান। মুক্তার গর্ভের সন্তানটি প্রবাসী এখলাছ মিয়ার নাকি ভাসুর উছমান আলীর। এনিয়ে এলাকাবাসীর মনে সন্দেহ সৃষ্টি হয়। ঈদের আগের দিন প্রবাসী এখলাছ মিয়া মালয়েশিয়া থেকে বাড়ি আসেন। এখলাছ এলাকাবাসীকে জানান, মুক্তা বেগম তার স্ত্রী এবং গর্ভের সন্তানটি তার। অপর উছমান আলীও নাকি দাবি করেন মুক্তা বেগমকে সে বিয়ে করেছে। মুক্তার গর্ভের সন্তানটি তার। এ নিয়ে মঙ্গলবার সকালে উছমান আলী তার বাড়িতে সালিশ বৈঠকের আয়োজন করে। সালিশে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে উছমান আলী প্রবাসী এখলাছ আলীর চাচাতো ভাই রফিকুল ইসলাম রহিতকে বাঁশের লাঠি দিয়ে মাথায় আঘাত করলে ঘটনা স্থলেই তিনি মারা যায়। টাঙ্গাব ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মোঃ মোফাজ্জল হোসেন সাগর জানান, পরকীয়ার ঘটনার প্রতিবাদ করায় রফিকুল ইসলাম রহিতকে খুন করা হয়েছে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন