Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৭ আশ্বিন ১৪২৬, ২২ মুহাররম ১৪৪১ হিজরী

পঁচা চামড়া খুঁজতে গিয়ে বেরিয়ে এলো বস্তাভর্তি হাড্ডি

সিলেট ব্যুরো : | প্রকাশের সময় : ১৮ আগস্ট, ২০১৯, ১২:০০ এএম

সিলেটের দক্ষিণ সুরমার লালমাটিয়া এলাকায় সিটি কর্পোরেশনের ডাম্পিং থেকে পচা চামড়ার দুর্গন্ধ ছড়িয়ে পড়ার খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে ছুটে গিয়ে বস্তাভর্তি হাড্ডির সন্ধান পেলেন মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী। গতকাল সকালে তিনি ওই এলাকায় গিয়ে এর সন্ধান পান।
কয়েকটি গণমাধ্যমে সিসিকের ডাম্পিংয়ে পচা চামড়ার দুর্গন্ধ নিয়ে সংবাদ ছাপার পর সিসিক মেয়র লালমাটিয়ায় যান। তবে তার আগে সিসিকের ডাম্পিংয়ে চামড়ার ছবি ছড়িয়ে পড়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। কিন্তু সিসিক জানায়, চামড়ার বিষয়টি অবগত হয়ে তা এস্কেভেটর দিয়ে মাটিতে পুতে ফেলা হয়। তারপরও কোরবানির পশুর চামড়া থেকে দুর্গন্ধ ছড়িয়ে পড়ার খবর ছাপা হয়। আর তার অনুসন্ধানে গিয়ে লালমাটিয়া এলাকার ডাম্পিংয়ের আধা কিলোমিটারের মধ্যে বস্তাভর্তি হাড্ডি রাখার সন্ধান পান মেয়র আরিফ।

এবার চামড়া শিল্পের ব্যবসায় ব্যাপক ধসের কারণে কোরবানির চামড়া কিনে নেয়নি কেউ। যে কারণে নগরবাসী রাস্তার পাশে তা ফেলে রাখেন। পরে তা দক্ষিণ সুরমার লালমাটিয়া এলাকায় ডাম্পিংয়ে ফেলে দেন সিসিকের পরিচ্ছন্নতায় নিয়োজিত কর্মীরা। গত দুদিন থেকে এসব চামড়া পচা দুর্গন্ধের কারণে স্থানীয়রা টিকতে পারছেন না। দক্ষিণ সুরমার প্রগতি সিএনজি ফিলিং স্টেশন থেকে পীর হবিবুর রহমান চত্বর পর্যন্ত এই দুর্গন্ধ ছড়িয়ে পড়ে। তবে সিসিকের দাবি, এসব চামড়া মাটির নিচে পুতে ফেলা হয়। কিন্তু কয়েকটি গণমাধ্যমে চামড়া থেকে দুর্গন্ধ ছড়িয়ে পড়ার খবর বেরোয়।
দক্ষিণ সুরমা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আবু জাহিদ বলেছেন, দক্ষিণ সুরমাবাসী এই দুর্গন্ধের সাথে অভ্যস্ত হয়ে গেছে। দীর্ঘদিন থেকেই সিলেট সিটি কর্পোরেশন এই স্থানে ময়লা ফেলে আসছে। আমরা বিভিন্ন সময় লালমাটিয়া থেকে ময়লা ফেলার স্থান সরানোর জন্য বলেছি। কিন্তু সিটি কর্পোরেশন তা করেনি। উল্টো এবার কোরবানির পশুর চামড়া ফেলে দক্ষিণ সুরমারবাসীর দুর্ভোগ আরো বাড়িয়েছে।

তবে সিসিক মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী বলছেন অন্য কথা। তিনি জানান, সেখানে যেসব চামড়া ফেলা হয়েছিলো তা মাটিতে পুতে দেওয়া হয়। কিন্তু বিভিন্ন গণমাধ্যমে চামড়া থেকে দুর্গন্ধ ছড়িয়ে পড়ার খবর ছাপা হয়। শনিবার সকালে আমি নিজে ওই এলাকায় তা অনুসন্ধানে যাই। সেখানে বেশ কিছু জায়গা জুড়ে প্রায় অর্ধশতাধিক বস্তায় পশুর হাড্ডির সন্ধান পাই। পরে এর সাথে জড়িত ব্যবসায়ীদের খুঁজে ডেকে এনে সেগুলো দ্রুত সেখান থেকে সরানোর নির্দেশ দিয়েছি।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন