Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৭ আশ্বিন ১৪২৬, ২২ মুহাররম ১৪৪১ হিজরী

সাবেক প্রতিমন্ত্রীর বাড়ি ভাঙচুর প্রকাশ্যে ঘুরে বেড়াচ্ছেন অভিযুক্তরা

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা সংবাদদাতা : | প্রকাশের সময় : ১৯ আগস্ট, ২০১৯, ১২:০০ এএম

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় সাবেক প্রতিমন্ত্রী হারুন আল রশিদের বাড়ি ভাঙচুরে জড়িত রাজনৈতিক পদধারীদের ধরতে পুলিশের অনীহার অভিযোগ উঠেছে। দিব্যি শহরে ঘুরে বেড়াচ্ছেন। ২/১ জন বিদেশও পালিয়েছেন। 

বিদেশে সেলফি তুলে ফেসবুক পোস্ট দিচ্ছেন। ঘটনায় আঁড়ালে অনেক রাগব-বোয়াল বাড়ি ভাঙায় মদদ দেন। বাড়ি ভেঙে জায়গা দখল করে প্রস্তাবিত হাসপাতালে যাওয়ার রাস্তা করে দেয়ার শর্তে হাসপাতালের অংশীদারিত্ব নেন তারা। ঘটনাটি টক অব দি ডিস্ট্রিকে পরিনত হয়েছে। এর আগেও শহরে বাড়ি-জায়গা দখল হয়েছে। তারা বলছে, ৫ বারের সংসদ সদস্য ও সাবেক প্রতিমন্ত্রীর বাড়ি ভেঙে দখল হয় তাহলে সাধারণ মানুষের কি হবে। সাবেক প্রতিমন্ত্রীর চাচাতো ভাই শামীম রশিদ কয়েকজনের নামোল্লেখ করে থানায় অভিযোগ দেন। এরা হলেন হাসপাতালের ব্যবস্থাপনা পরিচালক চিকিৎসক জাকারিয়া। তিনি মালদ্বীপ রয়েছেন। সদর উপজেলা যুবলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও হলি ল্যাব হাসপাতালের পরিচালক আবু কাউসার। ঘটনার পরদিনই কাউসার সিঙ্গাপুর চলে যান। তিনি ছবি তুলে ফেসবুকে পোস্ট দেন। শহর যুবলীগের আহবায়ক আমজাদ হোসেন রনি, স্বেচ্ছাসেবক লীগের যুগ্ম আহবায়ক শফিকুল ইসলাম তৌছির, শহরের শেরপুরের বাছির ওরফে ধোপা বাছির, দাড়িয়াপুরের মিজান ওরফে জামাই মিজান, উত্তর পৈরতলার মো. মিজান মিয়া, হলি ল্যাব হাসপাতালের পরিচালক ওবায়দুল হক সূচী, নাসিরনগরের রুবেল মিয়া।
প্রস্তাবিত হাসপাতালের চেয়ারম্যান হিসেবে অভিযোগে নাম রয়েছে জেলা আ.লীগের সহ-সভাপতি পুনিয়াট গ্রামের মো. হেলাল উদ্দিনের। অভিযোগ রয়েছে, শহরে দিব্যি ঘুরে বেড়ালেও রাজনৈতিক পদধারীদের কাউকে স্পর্শ করছেনা পুলিশ। চুনোপুঁটিদের গ্রেফতারে শুধু অভিযান চালানো হচ্ছে। সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. সেলিম উদ্দিন অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, নমনীয় নই। তদন্তে যাকে পাওয়া যাবে তাকেই গ্রেফতার করা হবে। মোবাইল ফোনে লোকেশন চিহ্নিত করে গ্রেফতারে অভিযান চালানো হচ্ছে। ইতিমধ্যে জেলা সদরের বাইরে আশুগঞ্জ, ভৈরবে অভিযান চালানো হয়।
উল্লেখ্য, প্রস্তাবিত ডা. জাকারিয়া মা ও শিশু জেনারেল হসপিটালে যাওয়ার রাস্তা করার জন্যে সাবেক প্রতিমন্ত্রী হারুন আল রশিদের বাড়িটি ভাঙা হয়। ১৫ আগস্ট বিকেলে উবায়দুল হক সূচীকে গ্রেফতার করে ৫দিনের রিমান্ডের আবেদন করে পুলিশ। পুলিশ জানায়, বাড়ি ভাঙায় জড়িতদের তথ্য দিয়েছে সুচী।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন