Inqilab Logo

ঢাকা, সোমবার, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১ আশ্বিন ১৪২৬, ১৬ মুহাররম ১৪৪১ হিজরী।

দেড় মাস আটক থাকার পর অবশেষে জিব্রাল্টার ছাড়ল সেই ইরানি ট্যাংকার

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৯ আগস্ট, ২০১৯, ১০:৩৬ এএম

ইরানি সুপার তেল ট্যাংকার গ্রেস-১ দেড় মাস আটক থাকার পর অবশেষে নাম পাল্টে জিব্রাল্টার বন্দর ত্যাগ করেছে।

বর্তমানে এটির নাম পরিবর্তন করে আদরিয়ান দারিয়া-১ রাখা হয়েছে। এর আগে ব্রিটিশ নৌবাহিনীর হাতে আটক হওয়ার সময় এটির নাম ছিল গ্রেস-১। খবর সিএনএন ও দ্যা গার্ডিয়ানের।

জিব্রাল্টার বন্দর ত্যাগ করে আদরিয়ান দারিয়া-১ পূর্বদিকে ভূমধ্যসাগর অভিমুখে রওনা দিলেও এটির গন্তব্য এখনও স্পষ্ট নয়। এর আগে জিব্রাল্টারের স্থানীয় সরকার রোববার তেল ট্যাংকারটি আমেরিকার কাছে হস্তান্তরের অনুরোধ প্রত্যাখ্যান করে।

বৃহস্পতিবার জিব্রাল্টারের সুপ্রিমকোর্ট তেল ট্যাংকারটি মুক্ত করে দেয়ার নির্দেশ দেয়ার পর শুক্রবার মার্কিন বিচার বিভাগ এটিকে আমেরিকার কাছে হস্তান্তরের অনুরোধ করেছিল।

লন্ডনে নিযুক্ত ইরানি রাষ্ট্রদূত হামিদ বায়িদিজেনাদ এক টুইটার বার্তায় তার দেশের সুপার তেল ট্যাংকারের জিব্রাল্টার ত্যাগের খবর নিশ্চিত করে লিখেছেন, এই মুহূর্তে আমি নিশ্চিত করছি যে, ৪৫ দিন জিব্রাল্টারের বন্দরে আটক থাকার পর ইরানি তেলবাহী ট্যাংকারটি আন্তর্জাতিক পানিসীমার দিকে যাত্রা শুরু করেছে।

ব্রিটিশ নৌবাহিনী গত ৪ জুলাই জিব্রাল্টার প্রণালির আন্তর্জাতিক পানিসীমা থেকে ২১ লাখ ব্যারেল তেলবাহী ইরানি ট্যাংকারটি আটক করে।

ট্যাংকারটি সিরিয়ায় যাচ্ছিল বলে দাবি করে ব্রিটেন জানায়, সিরিয়ার ওপর ইউরোপীয় ইউনিয়নের নিষেধাজ্ঞা কার্যকর করতে গিয়ে ইরানি তেল ট্যাংকার আটক করা হয়েছে।

কিন্তু পশ্চিমা গণমাধ্যমগুলো জানায়, ইরানের ওপর আরোপিত আমেরিকার একতরফা নিষেধাজ্ঞা কার্যকর করতে ওয়াশিংটনের অনুরোধে লন্ডন এটিকে আটক করে।

এর পর কূটনৈতিক চ্যানেলে ইরানের ব্যাপক প্রচেষ্টার পর গত বৃহস্পতিবার জিব্রাল্টারের সুপ্রিমকোর্ট সুপার তেল ট্যাংকারটি মুক্ত করার নির্দেশ দেন।

কিন্তু শনিবার মার্কিন বিচার বিভাগ তেল ট্যাংকারটিকে মুক্ত না করে আমেরিকার কাছে হস্তান্তর করার জন্য জিব্রাল্টারকে অনুরোধ জানান।

জিব্রাল্টার রোববার সরাসরি আমেরিকার অনুরোধ আনুষ্ঠানিকভাবে প্রত্যাখ্যান করে ট্যাংকারটি জিব্রাল্টার ত্যাগের নির্দেশ দেয়।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ইরান


আরও
আরও পড়ুন
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ