Inqilab Logo

ঢাকা, সোমবার, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১ আশ্বিন ১৪২৬, ১৬ মুহাররম ১৪৪১ হিজরী।

কাশ্মীর নিয়ে বাংলাদেশের আগ বাড়িয়ে কিছু বলার নেই

গণমাধ্যমকে অধ্যাপক ড. ইমতিয়াজ আহমেদ

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২২ আগস্ট, ২০১৯, ১২:০১ এএম

জম্মু ও কাশ্মীর নিয়ে ভারত সরকারের ৩৭০ অনুচ্ছেদ বাতিল করা বিষয়ে বাংলাদেশের আগ বাড়িয়ে কিছু বলার বা করার নেই বলে মন্তব্য করেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের অধ্যাপক ড. ইমতিয়াজ আহমেদ। গতকাল বুধবার গণমাধ্যমকে তিনি এ কথা বলেন।

অধ্যাপক ইমতিয়াজ বলেন, ভারত সংবিধানের ৩৭০ অনুচ্ছেদ বাতিল করে সংকট আরও বাড়িয়ে দিল। বিষয়টি নিয়ে ভারতেই সমালোচনা শুরু হয়েছে; অমর্ত্য সেন, অরুন্ধতী রায়ের মতো ব্যক্তিরাও বলছেন-এটি গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়ায় হওয়া উচিৎ ছিল। তবে বাংলাদেশ চাইবে জম্মু ও কাশ্মীরে শান্তি বজায় থাকুক এবং সেখানে যা ঘটছে তাতে কাশ্মীরি জনগণের সম্মতি থাক।

জম্মু ও কাশ্মীর নিয়ে বাংলাদেশের অবস্থান ব্যাখ্যা করে গতকাল বুধবার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এক বিবৃতি দিয়ে বলেছে-ভারত সরকারের ৩৭০ অনুচ্ছেদ বাতিল করা দেশটির অভ্যন্তরীণ বিষয়। বাংলাদেশ সর্বদা নীতিগতভাবে সমর্থন জানিয়েছে যে, আঞ্চলিক শান্তি ও স্থিতিশীলতা বজায় রাখার পাশাপাশি উন্নয়নের বিষয়টিও সব দেশের অগ্রাধিকার হওয়া উচিত।

বাংলাদেশ-ভারত পররাষ্ট্রমন্ত্রী পর্যায়ের দ্বিপক্ষীয় বৈঠক গত মঙ্গলবার অতিথি ভবন যমুনায় অনুষ্ঠিত হয়। এর পর গতকাল বুধবার এ বিবৃতি দেওয়া হয়।

এ ব্যাপারে অধ্যাপক ইমতিয়াজ বলেন, জম্মু ও কাশ্মীরে যে সংকট ছিল, ৩৭০ অনুচ্ছেদ ধারা বাতিল করে তা আরও বিস্তার লাভ করেছে। বর্তমানে জম্মু ও কাশ্মীরে হাজার হাজার সৈন্য মোতায়েন করছে ভারত। হয়ত এটি আরও বাড়িয়েছে তারা। আমার ব্যক্তিগত ধারণা যে, জঙ্গিবাদ এখানে চলছিল তার জন্য শুধু পাকিস্তানকে দোষ দিয়ে লাভ নেই। এখানে কাশ্মীরি জনগণের দ্বারাই একটি জঙ্গিবাদ তৈরি করা হয়েছিল। এখানে সব কিছুই যে পাকিস্তান বাইরে থেকে করছে, এটা বলা ঠিক নয়। সৈন্য দিয়ে এ অঞ্চলে নিয়ন্ত্রণ যে করা যাবে না তার সমালোচনা খোদ ভারতেই শুরু হয়ে গেছে।

তিনি বলেন, ভারত সরকার ভেবেছে ৩৭০ ধারা রেখে ৪০ বছরে জম্মু ও কাশ্মীরের সমস্যার সমাধান করা যায়নি। তাই এ ধারা তুলে দিয়ে একটি সমাধান বের করার চেষ্টা করা হয়েছে। এর ফলে সংকট আরও ঘনীভূত হয়েছে। গত নির্বাচনে কাশ্মীরের বাইরে জনগণের ভোটে একটি বিশাল সমর্থন ছিল এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেবার। কিন্তু শেষ বিচারে জম্মু কাশ্মীরের জণগণের বিরুদ্ধে গিয়ে সিদ্ধান্ত ভালো ফল বয়ে আনবে না।



 

Show all comments
  • Adnan Mahi ২২ আগস্ট, ২০১৯, ৩:৩৫ এএম says : 0
    বাংলাদেশের মানুষ সব সময় কাশ্মিরের জনগনের পাশে ছিল আছে এবং থাকবে।
    Total Reply(0) Reply
  • Alam Gir ২২ আগস্ট, ২০১৯, ৩:৩৬ এএম says : 0
    বাংলাদেশ না ভারতের পোষা দালালরা ভারতের সঙ্গে আছে।
    Total Reply(0) Reply
  • Muna Jannat ২২ আগস্ট, ২০১৯, ৩:৩৮ এএম says : 0
    I am always support Kasmir because India is our enemy country.
    Total Reply(0) Reply
  • Ambar Kumar Mallick ২২ আগস্ট, ২০১৯, ৩:৪০ এএম says : 0
    হাছিনা সরকার খুব ভালো ভাবেই জানে ভারত বাংলাদেশের প্রথম বন্ধু দেশ। কারন বাংলাদেশের কোনও প্রকার আঁচ লাগার আগে ভারতের আঁচ লাগবে বাংলাদেশ খুব সুরক্ষিত জায়গায় আছে । বাংলাদেশ যদি ভারতের ভিতরে না থেকে ভারতের বাইরে যেমন চিন, মায়ানমারের পাশে হলে হারে হারে টের পেত ।
    Total Reply(0) Reply
  • Majharul islam ২২ আগস্ট, ২০১৯, ৬:১২ এএম says : 0
    আমর মুসলমান হিসেবে এটা মেনে নিতে পারিনা
    Total Reply(0) Reply
  • Nannu chowhan ২২ আগস্ট, ২০১৯, ৯:৩৪ এএম says : 0
    99%Bangladeshi support the legal & democratic right of the kashmiri people but it's only Bangladesh govorment is supporting Indian authority .....
    Total Reply(0) Reply
  • Amirulislam ২২ আগস্ট, ২০১৯, ৭:৪৬ এএম says : 0
    বাংলাদেশ না ভারতের পোষা দালালরা ভারতের সঙ্গে আছে।
    Total Reply(0) Reply
  • ash ২২ আগস্ট, ২০১৯, ১০:৪৬ এএম says : 0
    CHINA IS NOT LIKE INDIA, IF CHINA LIKE INDIA, CHINA SHOULD TAKE BHUTAN,NEPAL, NOTH KOREA OFCOURSE TAIWAN LONG TIME AGO
    Total Reply(0) Reply
  • MD Shafiul Azam Shohan ২২ আগস্ট, ২০১৯, ১১:১৪ এএম says : 0
    স্যার একদম ঠিক কথা বলেছেন
    Total Reply(0) Reply
  • Suruj ali ২২ আগস্ট, ২০১৯, ৯:০৮ পিএম says : 0
    আমরা ভারতের সাপোর্টে এটা বললো কে আমরা সবসময়ই কাশ্মীর এর জনগণের পাশে আছি। কিছু বাংলাদেশের দালাল যাদের জন্ম... ঘরে তারাই শুধু বাংলাদেশকে নিয়ে বলতেছে আমরা ভারতের সাথে আছি ওরা বাংলাদেশি নয় ওরাই হচ্ছে প্রকৃত রাজাকার আমরা মুসলিম সব সময় মুসলমান মুসলমান ভাই ভাই সুতরাং ভারতের দালাল তারাই শুধু এসব কথা বলতে পারে আর একটা কথা বলি এটার জন্য এই দালালদের জন্য আমাদের কেউ কষ্ট করতে হচ্ছে মনের দিক থেকে যাও আমরা এমন এক জাতি এমন এক দেশে বসবাস করি যেখানে গণতন্ত্র নামে ফাজলামি করতাছে আমাদের জনগণের কোনো মূল্যায়ন করে না যদি করি তাহলে কাশ্মীর কে নিয়ে এই ধরনের আচরণ কথাবার্তা বাংলাদেশের নেতা-নেত্রীরা বলতো না এদেরকে নেতা-নেত্রী বলতেও আমার ঘেন্না হয় এরা কি মানুষ না জানোয়ার একদিন আমরাও কাশ্মীরের মত ছিলাম সেদিন এই জানোয়ার টা কোথায় ছিল যেদিন আমাদেরকে পাকিস্তান শোষণ করত। আমারতো মনে হয় আরো স্বাধীনতাবিরোধী নিজের বাবা-মা কেউ বিক্রি করে দিতে পারে ক্ষমতার লোভে
    Total Reply(0) Reply
  • Abulalamkhan ২২ আগস্ট, ২০১৯, ৯:২৬ পিএম says : 0
    Always remember India occupied kasmir,our present govment support India for ileagal support, but we can't, inshallah now kasmir freedom is near . After 48 , this is the ugly decision of any govt. India should be decided , no one can stop them.
    Total Reply(0) Reply
  • muslim khan ২৮ আগস্ট, ২০১৯, ৬:৪৫ পিএম says : 0
    যদি কাশ্মীরে জনগন নিজেদের ভূমি অধিকার রক্ষায় যদি জঙ্গি হয় তাহলে আমার দেশের সব মুক্তি যোদ্ধা ও তো জঙ্গি
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: কাশ্মীর

১৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৯

আরও
আরও পড়ুন
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ