Inqilab Logo

ঢাকা, সোমবার, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১ আশ্বিন ১৪২৬, ১৬ মুহাররম ১৪৪১ হিজরী।

তিন তালাক আইন পরীক্ষা করে দেখবে ভারতের শীর্ষ আদালত

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৩ আগস্ট, ২০১৯, ৪:৩১ পিএম

ভারতে তিন তালাকের নতুন আইন, যার ফলে তাৎক্ষণিক বিবাহ বিচ্ছেদ ঘোষণা করার ইসলামি প্রথার প্রয়োগে শাস্তি হতে পারে স্বামীর, তা পরীক্ষা করে দেখবে শীর্ষ আদালত। এই মর্মে কেন্দ্র সরকারকে একটি নোটিস পাঠিয়ে এবিষয়ে তাদের প্রতিক্রিয়া জানতে চাওয়া হয়েছে।

গত মাসে ভারতের সংসদে পাস হয় ‘তিন তালাক' বিল। মুসলিম ব্যক্তিদের মধ্যে যে প্রথা রয়েছে তিনবার ‘তালাক’ উচ্চারণ করে তাৎক্ষণিক ভাবে বিবাহ বিচ্ছেদ ঘোষণা করার, তার অবলুপ্তি ঘটাতেই ওই বিল। লোকসভায় প্রবল বিরোধিতার মধ্যে পড়তে হলেও রাজ্যসভায় অনায়াসেই পাস হয়ে যায় বিলটি। বিলটি রাজ্যসভায় পাস হয়ে যাওয়ার পরে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি টুইট করে জানান, এই জয় লিঙ্গসাম্যের জয়।

এই আইনের বিরুদ্ধে যে পিটিশন জমা পড়েছে তার উত্তরে বিচারপতিদের বেঞ্চ জানিয়েছে, ‘আমরা এটা পরীক্ষা করে দেখব।’ অন্যতম পিটিশন দাখিলকারী কংগ্রেস নেতা ও বর্ষীয়ান আইনজীবী সলমন খুরশিদ জানিয়েছেন, যেহেতু এই বিলের বহু দিক রয়েছে। তিন বছরের জেলবাসের সাজা ঘোষণার দিকটি আদালতের খতিয়ে দেখা হোক।

রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ বিলটির প্রতি তার সমর্থন জানানোর পরের দিনই পিটিশন পেশ করা হয়। সরকার প্রথম থেকেই বলে এসেছে এই বিল লিঙ্গসাম্য ও ন্যায়ের দিকে পদক্ষেপ। যদিও বিরোধীরা এর মধ্যে রাজনৈতিক উদ্দেশ্য থাকার দাবি করেছে। বিরোধীদের বক্তব্য ছিল, এই বিল পর্যালোচনার জন্য কমিটির কাছে পাঠা‌নো হোক। তাদের দাবি ছিল, শাস্তিস্বরূপ তিন বছরের জেলের সাজা ঘোষণা করা হলে এই বিল মুসলিমদের আক্রান্ত করার কাজে লাগানো হতে পারে। সূত্র: পিটিআই।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ভারত

১৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৯
১৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৯

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ