Inqilab Logo

ঢাকা, শনিবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৬ আশ্বিন ১৪২৬, ২১ মুহাররম ১৪৪১ হিজরী

রোহিঙ্গাদের মুখে খাবার তুলে দেয়া সেই যুবককে গুলি করে হত্যা

কক্সবাজার জেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ২৪ আগস্ট, ২০১৯, ১২:০২ এএম

গত ২০১৭ সালের ২৫ আগস্ট মিয়ানমারের রাখাইনে সহিংস ঘটনায় যখন প্রাণ বাঁচাতে রোহিঙ্গারা বাংলাদেশে আশ্রয়ের জন্য আসে, তখন অন্যান্য মানবতাবাদি মানুষের মত মোহাম্মদ ওমর ফারুক (৩০) নামের এক যুবক রোহিঙ্গাদের মুখে খাবার তুলে দিতে ব্যস্ত ছিলেন। কিন্তু আজ দু’বছর পর সেই রোহিঙ্গারাই তাকে গুলি করে হত্যা করেছে।

বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে টেকনাফ উপজেলার হ্নীলা ইউনিয়নের জাদিমুরা এলাকায় তাকে গুলি করে হত্যা করে একদল রোহিঙ্গা সন্ত্রাসী। নিহত যুবক ওই এলাকার মোহাম্মদ মোনাফ কোম্পানির ছেলে এবং হ্নীলা ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ড যুবলীগ ও জাদিমুরা এম আর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি। খবর পেয়ে নিহত যুবকের পরিবার লাশ আনতে গেলেও বাধা দেয় রোহিঙ্গা সন্ত্রাসীরা।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, ওইদিন রাতে নিহত যুবকের বাড়ির সামনে থেকে ফিল্মী স্টাইলে তুলে নিয়ে যায় রোহিঙ্গা ডাকাত সর্দার সেলিমের নেতৃত্বে একদল অস্ত্রধারি সন্ত্রাসী। এক পর্যায়ে তাকে পাহাড়ে নিয়ে গুলি করে হত্যা করে। খবর পেয়ে ফারুকের ভাই আমির হামজা ও উসমানসহ স্বজনেরা সেখানে গেলে সন্ত্রাসীরা তার লাশ আনতেও বাধা দেয়। পরে খবর পেয়ে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে।

নিহতের ভাই আমির হামজা জানান, রাখাইনে রোহিঙ্গাদের দমন নিপীড়ন শুরু হলে সীমান্ত পার হয়ে বাংলাদেশে পালিয়ে আসা অসহায় রোহিঙ্গাদের পাশে অন্যদের মত আমার পরিবারও সাহায্য সহযোগিতা নিয়ে এগিয়ে এসেছিল। রোহিঙ্গাদের বিভিন্নভাবে সাহায্যের পাশাপাশি অসংখ্য মানুষের মুখে খাবার তুলে দেয়া হয়। বিশেষ করে আমার ভাই নিহত ওমর ফারুক রাতদিন পরিশ্রম করে অনেক রোহিঙ্গাকে সাহায্য সহযোগিতা করেছেন। অথচ, আজ সেই রোহিঙ্গারা আমার ভাইকে গুলি করে হত্যা করেছে। খবর পেয়ে আমরা জাদিমুরা পাহাড়ের পাশে পড়ে থাকা লাশের জন্য গেলেও উগ্রবাদি একদল রোহিঙ্গা আমাদের লাশ আনতে বাধা দেয়। পরে পুলিশের সহায়তা লাশ নিয়ে আসা হয়।
টেকনাফ থানার ওসি তদন্ত এবিএম এস দোহা জানিয়েছেন, খবর পেয়ে নিহতের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। রাতেই ময়নাতদন্তের জন্য কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। তবে কী কারণে এ হত্যাকান্ড ঘটলো তা নিশ্চিত করে বলা যাচ্ছে না। এ ঘটনায় জড়িতদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।



 

Show all comments
  • Sharup Barua ২৪ আগস্ট, ২০১৯, ১:১৭ এএম says : 0
    এটা কোন ব্যাপার না, কয়দিন পরেই দক্ষিণ চট্টগ্রামের স্বাধীনতা চাইবে রোহিঙ্গারা, বললাম লিখে রাখেন।
    Total Reply(0) Reply
  • শূন্য জীবন ২৪ আগস্ট, ২০১৯, ১:১৭ এএম says : 0
    ওদের ব্যবহারে কষ্ট পাবেন না।।।ওরা আমাদের ভাই।।আমরা তাদের কষ্টের সময় জায়গা দেওয়ার জন্য মরিয়া হয়ে পড়েছিলাম।।।।দেশের হাজার হাজার গরিব পরিবারকে সাহায্য না করে তাদের সাহায্য করেছি।।।তাদের জন্য রাজপথে নেমেছি।।।তাই তারা যেটা করবে সেটা আমাদের মেনে নিতে হবে।। তবে বিষয় হলো যারা তাদের জন্য এত মায়াকান্না করলো তাদের ছায়াও এখন দেখা যাচ্ছে না।।।
    Total Reply(0) Reply
  • Kamrul Hasan ২৪ আগস্ট, ২০১৯, ১:১৮ এএম says : 0
    বেশি আশ্রয় প্রচ্ছয়ে মাথায় উঠে যাচ্ছে। দেশে ফিরতে চাইছে না,,,ওদের সুযোগ সুবিধা কমিয়ে কষ্টে রাখলে জাত হবে,,
    Total Reply(0) Reply
  • Md Kanchan ২৪ আগস্ট, ২০১৯, ১:১৮ এএম says : 0
    এই রোহিগারা এক সময় বাংলাদেশের গলার কাটা হবে
    Total Reply(0) Reply
  • Harun Or Rashid ২৪ আগস্ট, ২০১৯, ১:১৮ এএম says : 0
    উপকার করলে অপকার হয় । এটাই স্বাভাবিক বতমান সরকার ও টের পাবে পরে
    Total Reply(0) Reply
  • শহীদুল ইসলাম ২৪ আগস্ট, ২০১৯, ১:১৯ এএম says : 0
    দেশ আমরা সয়ে যাচ্ছি কিন্তু রোহিঙ্গারা সইতে পারে না। আমরা রোহিঙ্গাদের চেয়েও অধম। কতটা অত্যাচারের পর মানুষ মানুষ কে ডেকে হত্যা করে সেটা চিন্তার বিষয়। যাকে হত্যা করা হয়েছে খুজে দেখ সে কি কুকামে লিপ্ত ছিল। মরার পরে যেন শয়তান ও সাধু হয়ে যায়।
    Total Reply(1) Reply
    • kuli ২৪ আগস্ট, ২০১৯, ৮:৪৭ পিএম says : 0
      ঠিক বলসেন।আমি নিশ্চিত জাকে মারসে সে কোন একটা কুকাম করসে।কিন্তু খবরে এমন ভাবে বলতাসে যে মনে হয় সব রহিঙ্গাগারা খারাপ।
  • Sohel Hossain ২৪ আগস্ট, ২০১৯, ১:২০ এএম says : 0
    এই রোহিঙ্গারা যত আগে বাংলার থেকে বের হবে ততই দেশের জন্য ভালো।
    Total Reply(0) Reply
  • HarunurRashid ২৪ আগস্ট, ২০১৯, ১:২০ এএম says : 0
    আমি আগে থেকেই রোহিঙ্গাদের বিরুদ্ধে! এখন দেখি আমার সিন্ধান্ত সঠিক! মুসলমান কখনো পালিয়ে যায় না! তাঁরা ইসলামের পতাকার জন্য যুদ্ধ করে!
    Total Reply(0) Reply
  • Touhidul Alam Shipu ২৪ আগস্ট, ২০১৯, ৮:৩২ এএম says : 0
    Khaal kete kumir ansey tai hatta kanda
    Total Reply(0) Reply
  • kuli ২৪ আগস্ট, ২০১৯, ৮:৫৯ পিএম says : 0
    কমেন্ট সেকশনে অনেকে দেখি রোহিঙ্গা বিরধি কথা বলতাসে।না বুঝে কমেন্ট করা উচিৎ না।কেও কি জানে জাকে মারা হইসে সে ভাল না খারাপ।সে একবার রোহিঙ্গা দের কে খাদ্য বিতরন করসে বলে ভাল হয়া গেসে। আমাদের অনেক নেতারাও লোক দেখানোর জন্য এরকম খাদ্য বিতরণ করে।তাঁর মানে আমাদের সব নেতাদের চরিত্র ফুলের মত পবিত্র ঠিক না? অনেক বাঙ্গালি আসে যারা রোহিঙ্গা মেয়েদের দিয়ে দেহ বেবসা করাচ্ছে।অনেকে মাদক বেবসা করাচ্ছে। যে মারা গেসে সে যে এরকম কিসু করে নাই তাঁর গেরেনটী কি? আর রোহিঙ্গা দের মধ্য ভাল খারাপ আসে যেমন বাঙ্গালিদের মধ্য আসে।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ