Inqilab Logo

ঢাকা, সোমবার, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১ আশ্বিন ১৪২৬, ১৬ মুহাররম ১৪৪১ হিজরী।

চ্যাম্পিয়নের মতোই শুরু বাংলাদেশের

বাংসাফ অনূর্ধ্ব-১৫ চ্যাম্পিয়নশিপ

স্পোর্টস রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২৪ আগস্ট, ২০১৯, ১২:০১ এএম

বাংলাদেশ ৫-২ ভুটান

 

বর্তমান চ্যাম্পিয়ন তারা। দেশ ছাড়ার আগে শিরোপা ধরে রাখার স্বপ্ন নিয়েই পা রেখেছিল ভারতে। সেই মিশনের শুরুটাও হয়েছে চ্যাম্পিয়নের মতোই। ছেলেদের সাফ অনূর্ধ্ব-১৫ চ্যাম্পিয়নশিপে গোল উৎসব করে ভুটানকে উড়িয়ে দিয়েছে বাংলাদেশ। গতকাল ভারতের পশ্চিমবঙ্গের নদীয়া জেলার কল্যাণী স্টেডিয়ামে লাল-সবুজের জয়টি ৫-২ গোলের।

শুরু থেকে ভুটানের রক্ষণে চাপ ধরে রাখা বাংলাদেশ এগিয়ে যেতে পারত অষ্টম মিনিটে। গোলরক্ষককে একা পেয়ে তার গায়ে মেরে সুযোগ নষ্ট করেন আল মিরাদ। পঞ্চদশ মিনিটে ফরোয়ার্ড আল আমিনের হেডে এগিয়ে যায় বাংলাদেশ। দুই মিনিট পরই সমতায় ফেরে গতবার গ্রæপ পর্ব থেকে ছিটকে যাওয়া ভুটান। ২১তম মিনিটে ফ্রি-কিকের পর ডি-বক্সের জটলার ভেতর থেকে দলকে এগিয়ে নেন মিরাদ। গোলরক্ষকের হাস্যকর ভুলে ৩৩তম মিনিটে সমতা ফেরে। দুর্বল গোল কিকে প্রতিপক্ষের পায়ে বল তুলে দিয়ে গোল হজম করেন সাব্বির গাজী। প্রথমার্ধের শেষ দিকের গোলে এগিয়ে থেকে বিরতিতে যায় বাংলাদেশ। বাঁ দিক থেকে সতীর্থের ক্রসে একজন পা ছোঁয়ানোর পর গোলমুখ থেকে নিখুঁত টোকায় জাল খুঁজে নেন বদলি মিডফল্ডার শুভ। ৮৩তম মিনিটে মিরাদের প্লেসিং শট জালে জড়ালে ব্যবধান আরও বাড়িয়ে নেয় বাংলাদেশ। দ্বিতীয়ার্ধের যোগ করা সময়ে দারুণ ফ্রি কিকে দলের বড় জয় নিশ্চিত করেন ইমন ইসলাম বাবু।
প্রচÐ গরমের কারণে কয়েকবার কুলিং ব্রেক দিয়েছেন রেফারিরা। গরমে শিষ্যরা স্বাভাবিক খেলাটা খেলতে পারেনি জানিয়ে ভুলগুলো নিয়ে কাজ করার কথা বলেন দলের কোচ মোস্তফা আনোয়ার পারভেজ, ‘যে কোনো দলের জন্য জয় মুখ্য ব্যাপার। ব্যবধান বেশি হলে তো খুবই ভালো। প্রচÐ গরম ছিল। ছেলেদের খুব কষ্ট হয়েছে। ৫-০ হলে আরও ভালো হতো। গোলরক্ষকের একটা ভুল হয়েছে। ডিফেন্স লাইনের মিসটেকের কারণে আমরা গোল খেয়েছি। সামনে এটা নিয়ে কাজ করব। টুর্নামেন্টের প্রথম ম্যাচ দেখে (গোলরক্ষকের দুর্বলতা নিয়ে) বলা মুশকিল। মাঠ, আবহাওয়ার সঙ্গে মানিয়ে নেওয়ার বিষয় ছিল। এরা তরুণ খেলোয়াড়। সময় দিতে হবে। প্রথম ম্যাচ হিসেবে তারা যেটা খেলেছে, আমি খুশি। কয়েকজন খেলোয়াড় পানিশূন্যতায়ও ভুগেছে। আশা করি, সামনের খেলাগুলোয় ছেলেরা তা কাটিয়ে উঠবে।’
এই বিশাল হারে ভুটানের বিদায় প্রায় নিশ্চিত হয়েই গেল। টুর্নামেন্টের প্রথম দিন তারা ৩-২ গোলে হেরেছিল শ্রীলঙ্কার কাছে। ভারতও প্রথম দিনে ৫-০ গোলে উড়িয়ে দিয়েছিল নেপালকে। রাউন্ড রবিন লিগ পদ্ধতির এই টুর্নামেন্টে খেলছে সাফের ৫টি দেশ বাংলাদেশ, ভারত, নেপাল, ভুটান ও শ্রীলঙ্কা। আগামীকাল একই ভেন্যুতে নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে শ্রীলঙ্কার মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ। এরপর ২৭ ও ২৯ আগস্ট যথাক্রমে নেপাল ও ভারতের মুখোমুখি হবে শিরোপাধারীরা।
এই ভারতের সঙ্গেই বড় পরীক্ষাটা বাংলাদেশের। তার আগের তিনটি ম্যাচ জিতলে ফাইনালে ওঠার রাস্তায় থাকবে লাল-সবুজ কিশোররা। লিগ ভিত্তিতে সর্বোচ্চ পয়েন্ট পাওয়া দুটি দলের ফাইনাল ৩১ আগস্ট। ২০১৮ সালে নেপালে অনুষ্ঠিত পঞ্চম আসরে পাকিস্তানকে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল বাংলাদেশের কিশোররা। আর ২০১৫ সালে সিলেটে (অনূর্ধ্ব-১৬) টাইব্রেকারে ভারতকে হারিয়ে প্রথম শিরোপার স্বাদ পেয়েছিল লাল-সবুজের দল।

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: চ্যাম্পিয়ন

১৫ মার্চ, ২০১৯

আরও
আরও পড়ুন
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ