Inqilab Logo

ঢাকা, সোমবার, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১ আশ্বিন ১৪২৬, ১৬ মুহাররম ১৪৪১ হিজরী।

সুদের জন্য ভাইকে কুপিয়ে জখম

কমলনগর (ল²ীপুর) উপজেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ২৫ আগস্ট, ২০১৯, ১২:০২ এএম

ল²ীপুরের কমলনগরে সুদের টাকার জন্য মো. ফারুক হোসেনে নামের এক এক ব্যবসায়ীকে কুপিয়ে এবং পিটিয়ে আহত করার অভিযোগ উঠেছে চাচাতো ভাই মো. সোহাগের বিরুদ্ধে। ফারুক বর্তমানে কমলনগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। এ ঘটনায় ভুক্তভোগীর ভাই মো. জসিম উদ্দিন বাদি হয়ে কমলনগর থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন। ফারুক ওই তোরাবগঞ্জ ইউনিয়নের চরপগালা এলাকার রুহুল আমিনের ছেলে এবং চররেন্স বাজারের ভুষামালের ব্যবসায়ী। তার মাথায় ও শরীরে যথেষ্ট আঘাতের ছিহ্ন রয়েছে। 

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, প্রায় সাত মাস আগে উপজেলার তোরাবগঞ্জ ইউনিয়নের ৯ নম্বর ওয়ার্ডের চরপাগলা এলাকার চাচা আহসান উল্লাহ থেকে দুই লক্ষ টাকা সুদের উপরে নেন ফারুক। ওই টাকার প্রতিমাসে ১০হাজার টাকা করে সুদ পরিশোধ করেন তিনি। কিন্তু চলতি মাসে ফারুক চাচার সকল টাকা সুদে আসলে উঠিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করেন এবং সে এ মাসের ১০তারিখে ৭৪হাজার টাকা পরিশোধ করেন। বাকি টাকা এ মাসের শেষের দিকে পরিশোধ করার কথা রয়েছে। গত বুধবার (২১আগস্ট) বিকেল ৩টার দিকে ফারুক চরলরেন্স বাজারের তার দোকান থেকে বাড়িতে যাওয়ার পথে চাচাতো ভাই মো. সোহাগ বাকি টাকার জন্য ফারুকের সাথে কথা কাটাকাটি করেন। খবর পেয়ে সোহাগের বাবা আহসান উল্যাহ ও তার ভাই শাহদাত হোসেন সারু দৌড়ে এসে এক পর্যায়ে ফারুককে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে ও পিটিয়ে জখম করে। পরে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে কমলনগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন।
হাসপাতালে চিকিৎসাধীন মো, ফারুক জানান, তার চাচা আহসান উল্লাহ থেকে প্রতি মাসে ১০হাজার টাকার সুদ দিবেন বলে দুই লক্ষ টাকা নেন। এ পর্যন্ত তিনি প্রতি মাসে সুদের টাকা পরিশোধ করেন। কিন্তু এ মাসে ফারুক চাচার সকল টাকা সকল টাকা উঠিয়ে দেওয়ার পরিকল্পনা করেন এবং তার আরেক চাচার মাধ্যমে ৭৪হাজার টাকা পরিশোধ করেন। বাকি টাকা মাসের শেষের দিকে পরিশোধ করার কথা রয়েছে। গত বুধবার সে তার দোকান থেকে বাড়িতে যাওয়ার পথে তার চাচা ও দ্ইু চাচাতো ভাই মিলে তাকে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে পিটিয়ে জখম করে।
এদিকে এসব অভিযোগ অস্বীকার করে মো. সোহাগ জানান, তার জেটাতো ভাই ফারুকের কাছে তারা সয়াবিনের সাড়ে তিন লক্ষ টাকা পান।কিন্তু ফারুক টাকা না দেওয়ায় সামান্য হাতাহাতি হয়েছে।
কমলনগর থানার এ এসআই মো. হুমায়ুন কবির জানান, এ বিষয়ে থানায় একটি অভিযোগ দেওয়া হয়েছে। বিষয়টি স্থানীয়ভাবে মিমাংসার চেষ্টা চলছে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ