Inqilab Logo

বুধবার, ১৮ মে ২০২২, ০৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ১৬ শাওয়াল ১৪৪৩ হিজরী

ইউটিউব থেকেই লাখপতি এই ইন্টারনেট-কৃষক

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৬ আগস্ট, ২০১৯, ৪:৩১ পিএম

হরিয়ানার এক কৃষক পরিবারে জন্ম দর্শন সিংহের। দাদা-বাবার দেখানো পথে বড় হয়ে তিনিও চাষাবাদ করছেন। আর এই চাষের সুবাদে তার মাসিক উপার্জন প্রায় ৩ লাখ টাকা! ভারতে সব্জির দাম আকাশছোঁয়া হলেও তাতে যে কৃষকের খুব একটা লাভ হয় না, তা বলার বোধহয় প্রয়োজন নেই। দর্শনের এই উপার্জন আসে ইউটিউব থেকে। মাঠে চাষের পাশাপাশি দর্শন একজন ইউটিউব ফার্মারও। তার ইউটিউব চ্যানেল ‘ফার্মিং লিডার’-এর ফলোয়ার ২ কোটি ১০ লক্ষ। আর তা থেকে প্রতি মাসে দর্শনের আয় ২ লক্ষ টাকা।

ছোট থেকে পারিবারিক চাষাবাদে সাহায্য করতেন দর্শন। পড়াশোনা শেষ করার পর ২০১৫ সাল থেকে পারিবারিক ১২ একর জমিতে চাষের হাল ধরেন তিনি। ২০১৭ সালে উপার্জন বাড়ানোর জন্য ডেয়ারি ফার্ম খোলেন। কিন্তু এই সংক্রান্ত কিছু প্রশিক্ষণ ছিল না। তাই ডেয়ারি ফার্মিং এবং অর্গানিক ফার্মিং সংক্রান্ত ইউটিউব ভিডিও দেখতে শুরু করেন। তবে কোনও ভিডিওই তার পছন্দ হয়নি। দর্শন বুঝতে পারেন, প্রকৃত অর্থে শেখার জন্য তাকে সফল কৃষকের কাছে যেতে হবে। পাঞ্জাব এবং হরিয়ানার সমস্ত সফল কৃষকের দোরে দোরে ঘুরতে শুরু করেন দর্শন। এর পরই তার মাথায় আসে যে, তার মতো এ রকম বহু কৃষককে সঠিক প্রশিক্ষণ দিতে পারলে অনেক সমস্যার সমাধান হবে।

দর্শন যত সফল কৃষকের কাছে যেতেন, তাদের বক্তব্যের পুরোটাই নিজের মোবাইলে শুট করে নিতেন। পরে সেটা ইউটিউবে আপলোড করতে শুরু করেন। ২০১৭ সালের সেপ্টেম্বরে নিজের ইউটিউব চ্যানেল ‘ফার্মিং লিডার’ চালু করেন দর্শন। মাত্র ৬ মাসের মধ্যেই লক্ষের গণ্ডি ছুঁয়ে ফেলে তার চ্যানেলের ভিউ। প্রথম দিকে শুধুমাত্র কৃষকদের সাহায্যের জন্যই ভিডিও আপলোড করতেন তিনি। কয়েক মাসের মধ্যেই ইউটিউব থেকে আয় তার চাষাবাদের আয়কে ছাপিয়ে গেল। এর পর আরও বেশি মন দিয়ে, আরও ভিডিও আপলোড করতে শুরু করেন দর্শন। এখন তার চ্যানেলে ৫০০টি ভিডিও রয়েছে। মোবাইলের বদলে ভিডিও শুট করার জন্য অত্যাধুনিক ক্যামেরাও কিনে ফেলেছেন দর্শন। চাষ থেকে লাভ তো করছেনই, ইউটিউব থেকেও তিনি প্রতি মাসে ৩ লাখ টাকা আয় করছেন। সঙ্গে বাড়তি পাওনা পরিচিতি। ইউটিউবের সুবাদে দর্শনকে এখন অনেকেই চেনেন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ইউটিউব

১৪ অক্টোবর, ২০১৯

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ