Inqilab Logo

ঢাকা, শুক্রবার, ১৮ অক্টোবর ২০১৯, ০২ কার্তিক ১৪২৬, ১৮ সফর ১৪৪১ হিজরী

সুবিধাভোগীরা ঋণ পাবে না অন্য ব্যাংকেও দুই শতাংশ ডাউন পেমেন্ট

অর্থনৈতিক রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ৩০ আগস্ট, ২০১৯, ৮:১৮ এএম

ঋণের ২ শতাংশ ডাউন পেমেন্টের সুবিধা সুবিধা গ্রহণকারীরা অন্য কোনো ব্যাংক থেকে ঋণ নিতে পারবেন না। এ আদেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। গতকাল বৃহস্পতিবার বিচারপতি জেবিএম হাসান এবং বিচারপতি খায়রুল আলমের ডিভিশন বেঞ্চ এ আদেশ দেন। আদালত থেকে বেরিয়ে পিটিশনার পক্ষের কৌঁসুলি মনজিল মোরসেদ জানান, ঋণখেলাপিদের ২ শতাংশ সুবিধা গ্রহণের জন্য বিজ্ঞপ্তির আওতাভুক্তরা অন্য কোনো ব্যাংক থেকেও ঋণ নিতে পারবেন না বলে আদেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। আগামি ২০ অক্টোবর পর্যন্ত তারা এই সুবিধা পাবেন না । এর আগে বাংলাদেশ ব্যাংক যে নীতিমালা জারি করেছে তার কার্যক্রমের ওপর হাইকোর্টের দেয়া স্থিতাবস্থার আদেশ ২ মাসের জন্য স্থগিত করেছিল আপিল বিভাগ। গত ৮ জুলাই প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বাধীন আপিল বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

হাইকোর্টের এ আদেশ আরও ২ মাসের জন্য স্থগিত করেন আপিল বিভাগ। তবে যারা ২ শতাংশ ডাউন পেমেন্টের সুবিধা নিবেন তারা নতুন করে ঋণ নিতে পারবেন না বলেও আদেশ দিয়েছেন আদালত। আর এ রিটটি বিচারপতি জেবিএম হাসানের নেতৃত্বাধীন বেঞ্চে শুনানি হবে। গতকাল ওই বিষয়ে নতুন করে দায়ের করা এক আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে এই আদেশ দেন আদালত। গত ১৬ মে বাংলাদেশ ব্যাংকের ব্যাংকিং প্রবিধি ও নীতি বিভাগ থেকে এ সংক্রান্ত সার্কুলার জারি করা হয়। পরে রিটকারীদের আবেদনের শুনানি নিয়ে গত ২১ মে ওই সার্কুলারের উপর ২৪ জুন পর্যন্ত স্থিতাবস্থা বজায় রাখার জন্য আদেশ দিয়েছিলেন হাইকোর্ট। ২৪ জুন এ স্থিতাবস্থার মেয়াদ আরও দুইমাস বাড়ানো হয়। পরে এ আদেশ স্থগিত চেয়ে আপিল বিভাগে আবেদন করে অর্থ মন্ত্রণালয়ের অর্থ বিভাগ। অর্থ বিভাগের ওই আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে মঙ্গলবার (০২ জুলাই) আপিল বিভাগের চেম্বার আদালতের বিচারপতি মো. নূরুজ্জামান হাইকোর্টের আদেশে স্থগিতাদেশ দেন। পরে আপিল বিভাগে তা স্থগিত করে এই বেঞ্চে শুনানির জন্য পাঠান। আদেশের পর মনজিল মোরসেদ সাংবাদিকদের বলেন, ২ শতাংশ ডাউন পেমেন্ট দিয়ে ঋণখেলাপির হাত থেকে মুক্তি পাবে, এ কারণে সিআইবিতে ( ক্রেডিট ইনফরমেশন ব্যুরো) তাদের নাম থাকবে না। তখন নতুন করে হাজার হাজার কোটি টাকা ঋণ নিয়ে যাবে। মানবাধিকার সংগঠন এইচআরপিবির করা এক রিট আবেদনে হাইকোর্ট গত ১৩ ফেব্রæয়ারি এক আদেশে ঋণখেলাপির তালিকা দাখিলের জন্য বাংলাদেশ ব্যাংকের প্রতি নির্দেশ দেন।

একই সঙ্গে রুল জারি করেন। রুলে আর্থিক খাতে অনিয়ম, দুর্নীতি, অব্যবস্থাপনা বন্ধে কমিশন গঠনের কেন নির্দেশ দেয়া হবে না এবং এই কমিশনের সুপারিশ অনুযায়ী ব্যবস্থা নিতে কেন নির্দেশ দেওয়া হবে না, তা জানতে চাওয়া হয়। ২৪ জুন হাইকোর্টে ঋণ খেলাপিদের তালিকা দাখিল করা হয়। এ রিটের সঙ্গে সম্পূরক আবেদন হিসেবে ঋণখেলাপিদের সুবিধা দিয়ে বাংলাদেশ ব্যাংক যে নীতিমালা জারি করেছিলো তা স্থগিতে আবেদন করে রিটকারীরা।

 

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ঋণ

৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৯

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ