Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার, ২০ অক্টোবর ২০১৯, ০৪ কার্তিক ১৪২৬, ২০ সফর ১৪৪১ হিজরী

নদীতে নেই সাগরে ইলিশের প্রাচুর্য

মু. আব্দুর রশীদ, ঝালকাঠি থেকে | প্রকাশের সময় : ৩১ আগস্ট, ২০১৯, ১২:০১ এএম

সাগরে ঝাঁকে ঝাঁকে ইলিশের দেখা মিললেও দখিনে জেলা ঝালকাঠির নদীগুলোতে ইলিশের আকাল চলছে। মাছের আড়তগুলোতে সুগন্ধা ও বিষখালী নদীর ইলিশ নেই বললেই চলে। গত এক সপ্তাহে জেলেদের জালে ইলিশ ধড়া পড়েছে হাতোগোনা কয়েকটি। ফলে এ অঞ্চলের মাছ ব্যবসায়ী ও জেলেদের মধ্যে হতাশা দেখা দিয়েছে। ক্রেতারাও স্থানীয় নদীর ইলিশ কিনতে পারছেন না। সমুদ্রের বরফ দেয়া ইলিশ মাঝে মধ্যে বাজারে উঠলেও দাম চড়া বলে ক্রেতারা অভিযোগ করেছেন। 

সরেজমিন ঝালকাঠির নলছিটি ও রাজাপুরের সুগন্ধা ও বিষখালী নদী তীরবর্তী এলাকার মৎস্য আড়ত ও স্থানীয় বাজার ঘুরে এ তথ্য পাওয়া গেছে।
ঝালকাঠির মাছ ব্যবসায়ী দ্রুব মালো বলেন, সাগরে প্রচুর ইলিশ ধরা পরছে, অথচ সুগন্ধা নদীতে ইলিশের দেখা নেই। মাঝে মধ্যে কয়েকটি মাছ পাওয়া গেলেও দাম চড়া। সাগরের মাছ বাজারে পাওয়া যায় ঠিকই, কিন্তু এখানকার ক্রেতারা তাজা মাছ পছন্দ করেন। সাগরের ইলিশেরও চড়া দামের কারণে একমণ মাছ বিক্রি করতে ১৫ দিন সময় লাগে।
নলছিটির মাছ ব্যবসায়ী মো. নান্নু বলেন, মাছের দাম অত্যাধিক। সাগরের ইলিশ এনে বাজারে বিক্রি করতে হচ্ছে বেশি দামে। কারণ মহিপুর থেকে মাছ আনতে খরচ বেশি হচ্ছে।
রাজাপুরের বাদুরতলা বন্দরের মাছ ব্যবসায়ী মো. মীনা হাওলাদার বলেন, ‘বর্তমানে সাগরে প্রচুর ইলিশ ধরা পড়লেও নদীতে মাছের দেখা নেই। গত এক সপ্তাহে আড়তে হাতেগোনা কয়েকটি ইলিশ এসেছে। গত দু’দিনে আমার আড়তে মাত্র চারটি ইলিশ এসেছে। ইলিশের এমন আকাল বিষখালীতে আগে দেখিনি।’
বিষখালী নদীর জেলে মো. ইসাহাক আলী বলেন, ‘আগে আষাঢ় ও শ্রাবণ মাসে নদীতে ভালই ইলিশ ধরা পড়তো। কিন্তু এখন আগের মতো নদীতে ইলিশের দেখা নেই। বর্ষা মৌসুমে নদীর ইলিশের চাহিদা একটু বেশিই থাকে। কারণ, এই সময় নদীর ইলিশে খুব স্বাদ হয়। তাই দাম একটু বেশি হলেও ক্রেতারা মাছ কিনতে আসেন। কিন্তু এ বছর ক্রেতা-বিক্রেতা সবাই হতাশ।’
রাজাপুর সদরের মাছ ব্যবসায়ী মো. হাকিম হাওলাদার বলেন, ‘বর্তমানে সাগরে প্রচুর ইলিশের দেখা মিললেও নদী ইলিশশূন্য। বরফ দেয়া সাগরের ইলিশ হাট-বাজারে পাওয়া যাচ্ছে প্রচুর। দামও ক্রেতাদের নাগালের মধ্যে। সাগরের এক কেজি ইলিশ আকাড়ভেদে ৪০০-৭০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। অপরদিকে নদীর তাজা ইলিশ ১২শ’ থেকে শুরু করে তিন হাজার টাকা পর্যন্ত বিক্রি হচ্ছে।’
রাজাপুর সদরের মো. মোসলেম আলী বলেন, ‘বাজারে প্রচুর সাগরের বরফ দেয়া ইলিশ পাওয়া যাচ্ছে। তবে সেই মাছের স্বাদের চেয়ে বর্ষা মৌসুমে নদীর তাজা মাছের স্বাদ অনেক বেশি। তাই নদীর মাছের দামও বেশি। বাঘরি হাটে গিয়েছিলাম নদীর ইলিশ কেনার আশায়, কিন্তু পাইনি।’
ঝালকাঠি জেলা মৎস্য কর্মকর্তা বাবুল কৃষ্ণ ওঝা বলেন, এখন ইলিশের মৌসুম থাকলেও মাছ বেশি মিলছে সাগরে। সুগন্ধা ও বিষখালীতে মাছ কিছুটা কম পাওয়া যাচ্ছে। এ কারণে বাজারে স্থানীয় তাজা ইলিশের দাম বেশি। তবে এ পরিস্থিতি বেশি দিন থাকবে না।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ইলিশ

২৪ জুলাই, ২০১৮
২৩ জুন, ২০১৮
২৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৭

আরও
আরও পড়ুন