Inqilab Logo

ঢাকা, বুধবার, ২৩ অক্টোবর ২০১৯, ০৭ কার্তিক ১৪২৬, ২৩ সফর ১৪৪১ হিজরী

জীবন নয় কিস্তির মূল্য বড়!

সারা দেশে আরো ৭ জনের আত্মহত্যা

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ১২:০২ এএম

মো. নুরুন্নবী (৫৫)। মুদি ব্যবসা করে জীবিকা নির্বাহ করতেন। ব্যবসায় অর্থায়নের জন্য কড়া সুদে বিভিন্ন এনজিও ও স্থানীয়দের কাছ থেকে অর্থ সংগ্রহ করেছেন। কিন্তু সময়সত কিস্তি ও সুদ শোধ করতে না পারায় বাড়তে থাকে ঋণের বোঝা। এক সময় মানসিকভাবে ভেঙে পড়ে বেছে নিলেন আত্মহননের পথ। নীলফামারীতে ছেলের চিকিৎসা করাতে না পেরে মায়ের আত্মহত্যার খবর পাওয়া গেছে। বাবার সঙ্গে রাগ করে সউদী প্রবাসী আত্মহত্যা করেছে। এছাড়া লক্ষীপুরে কলেজছাত্রী, ঈশ্বরদীতে গৃহবধূ কুষ্টিয়ায় কলেজছাত্রী, ইন্দুরকানীতে কলেজছাত্রী ও উজিরপুরে কলেজছাত্রীর আত্মহত্যার ঘটনা ঘটেছে।

ভোলা : ভোলার বোরহানউদ্দিন উপজেলায় সুদের টাকা ও এনজিওর ঋণ পরিশোধে ব্যর্থ হয়ে মো. নুরুন্নবী (৫৫) নামে এক মুদি ব্যবসায়ী আত্মহত্যা করেছেন। গতকাল সকালে উপজেলার হাসাননগর ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ডে নিজ বাড়ি থেকে তার ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করা হয়। নিহত নুরুন্নবী উপজেলার হাসাননগর ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ডের ফজলে রহমানের ছেলে ও ওই এলাকার কাজীরহাটে বাজারের মুদি ব্যবসায়ী। নিহতের ছোট ভাই রুহুল আমিন জানান, নুরুন্নবী দীর্ঘদিন ধরে বোরহানউদ্দিন উপজেলার কাজীরহাটে বাজারে মুদি ব্যবসা করতেন। ব্যবসা পরিচালনা করতে গিয়ে স্থানীয়দের কাছে প্রায় ৫-৬ লাখ টাকা আটকে যায়। সে টাকা ওঠাতে না পেরে ব্যবসা পরিচালনা করতে তার সমস্যা সৃষ্টি হয়।

পরে বাধ্য হয়ে ব্যবসা চালাতে গিয়ে তিনি বিভিন্ন এনজিও ও স্থানীয় লোকজনের কাছ থেকে সুদে প্রায় ৮-১০ লাখ টাকা ধার করেন। কিন্তু আবারও ক্রেতাদের কাছে অনেক টাকা বাকি পড়ে যায়। এতে এনজিও ও সুদের টাকা পরিশোধ করতে সমস্যা সৃষ্টি হয়। এরপর এনজিও ও পাওনাদাররা টাকা পরিশোধের জন্য চাপ প্রয়োগ করে আসছিলেন।

একদিকে দেনা পরিশোধের চাপ, অন্যদিকে দোকানে মালামাল না থাকায় বেচাকেনা বন্ধ হয়ে যাওয়ার উপক্রম হয়। এতে তিনি মানসিকভাবে ভেঙে পড়েন। এ কারণেই তিনি গতকাল ভোরে তার দোকানের আড়ার সঙ্গে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেন।

নীলফামারী : অর্থাভাবে ক্যানসার আক্রান্ত ছেলের চিকিৎসা করাতে না পেরে সাবিনা বেগম (৪৫) নামে এক হতাশাগ্রস্ত মা বিষপানে আত্মহত্যা করেছেন। গত রোববার ভোরে নীলফামারী জেলার সৈয়দপুর উপজেলার খাতামধুপুর ইউনিয়নের খামাতপাড়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটেছে।

জানা যায়, খামাতপাড়ার দরিদ্র মনোয়ার হোসেনের ৩ ছেলে ২ মেয়ে। তাদের মধ্যে মেঝ ছেলে সবুজ (২৫) ক্যানসারে আক্রান্ত হয়ে দীর্ঘদিন থেকে অসুস্থ হয়ে শয্যাশায়ী। অর্থাভাবে তার চিকিৎসা করাতে পারছেন না ওই দম্পতি। এ নিয়ে স্ত্রী সাবিনা বেগমের সঙ্গে প্রায়ই বাক-বিতন্ডাসহ মনোমালিন্যের সৃষ্টি হয়। একপর্যায়ে রোববার ভোরে বিষপানে আত্মহত্যা করেন সাবিনা।

ঈশ্বরদী (পাবনা) : স্বামীকে ইয়াবা সেবন ও বিক্রয়ে বাধা দেওয়ায় নির্যাতনের শিকার লাকী খাতুন (২২) নামের এক গৃহবধূ গত রোববার সকালে গলায় ফাঁস নিয়ে আত্মহত্যা করেছেন। তিনি ঈশ্বরদীর পাকশী ইউনিয়নের রুপপুর বিশুতলা এলাকার জহুরুল ইসলাম মালিথার ছেলে শুভ মালিথার স্ত্রী।

মাদারীপুর : মাদারীপুর সদর উপজেলায় বাবার সঙ্গে রাগ করে গলায় ওড়না পেচিয়ে শামীম হাওলাদার (২৩) নামের এক সৌদি প্রবাসীর আত্মহত্যার অভিযোগ উঠেছে। গত রোববার সকাল ১০টায় উপজেলার মস্তফাপুর এলাকায় এ ঘটনা ঘটেছে।

লক্ষীপুর : লক্ষীপুরের রায়পুরে বাবার উপরে অভিমান করে এক কলেজছাত্রী আত্মহত্যা করেছেন বলে খবর পাওয়া গেছে। নিহত ওই কলেজ ছাত্রীর নাম মাহমুদা আক্তার (১৯)। গত শনিবার বিকেলে উপজেলার দক্ষিণ চরবংশী ইউনিয়নের চরবংশী গ্রাম থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। মাহমুদা ওই গ্রামের হারুন জমাদ্দারের মেয়ে ও হায়দরগঞ্জ মডেল কলেজের দ্বাদশ শ্রেণির ছাত্রী।

উজিরপুর (বরিশাল) : মায়ের সাথে অভিমান করে বরিশালের উজিরপুরে এক কলেজ ছাত্রী গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে। নিহত কলেজ ছাত্রীর নাম গঙ্গা মন্ডল (১৭)। গত রোববার দুপুরে উপজেলার জল্লা ইউনিয়নের কারফা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। নিহ গঙ্গা ওই গ্রামের সৈলান মন্ডলের মেয়ে ও স্থানীয় জল্লা ইউনিয়ন আইডিয়াল কলেজের একাদশ শ্রেণির ছাত্রী।

ঠাকুরগাঁও : ঠাকুরগাঁওয়ের রানীশংকৈল পৌর শহরে ‘রাণীশংকৈল ডিগ্রী কলেজ’এর পশ্চিম পাড়ায় আনুমানিক সকাল সাড়ে ৭ টায় ইউনুসআলী (পিয়ন)এর বাসায় গলায় ফাঁস দিয়ে কলেজ ছাত্রীর আত্মহত্যার ঘটনা ঘটে বলে খবর পাওয়া গেছে। সীমা রায় হরিপুরের মালিপাড়া চৌরঙ্গী গ্রামের নিখিল চন্দ্ররায়ের কন্যা।

কুষ্টিয়া : কুষ্টিয়ার পৌর গোরস্থান এলাকার একটি ভাড়া বাসা থেকে তাসনিহা তাহরিন তমা (২২) নামে এক কলেজ ছাত্রীর লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। গতকাল সোমবার সকালে লাশটি উদ্ধার করে পুলিশ। নিহত তমা কুষ্টিয়ার দৌলতপুর উপজেলার তারাগুনিয়া গঙ্গারামপুর গ্রামের তাসিকুল ইসলামের মেয়ে এবং কুষ্টিয়া সরকারি কলেজের ব্যবস্থাপনা বিভাগের অনার্স ১ম বর্ষের ছাত্রী।

ইন্দুরকানী (পিরোজপুর) : এসএসসি পরীক্ষায় জিপিএ-৫ না পাওয়ায় ইন্দুরকানীতে এক কলেজ ছাত্রী আত্মহত্যা করেছে। সোমবার সকালে উপজেলার পত্তাশী এলাকায় সাবেক ইউপি সদস্য হেদায়েত উদ্দিনের মেয়ে পত্তাশী জনকল্যাণ কলেজের একাদশ শ্রেণির ছাত্রী তাসলিম আকতার জিপিএ-৫ না পাওয়ায় অভিমান করে ঘরের বারান্দায় সিলিং ফেনের সাথে ওড়না জড়িয়ে আত্মহত্যা করে। পরে খবর পেয়ে ইন্দুরকানী থানা পুলিশ লাশ উদ্ধার করে একটি ইউডি মামলা করে ময়না তদন্তের জন্য পিরোজপুর মর্গে পাঠিয়েছে। কলেজ ছাত্রী তাসলিম আকতার ২০১৯ সালের এসএসসি পরীক্ষায় জনকল্যান মাধ্যমিক বিদ্যালয় থেকে জিপিএ – ৪.৮৯ পেয়েছে। তার আশা ছিল জিপিএ ৫। কিন্তু জিপিএ ৫ না পাওয়ায় সে ভারসাম্যহীন হয়ে পড়ে। পরিবারের লোকজন ডাক্তার দেখালেও তার স্বাভাবিক অবস্থা ফেরেনি। অবশেষে আত্মহত্যার পথ বেছে নিল।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: আত্মহত্যা

১৭ অক্টোবর, ২০১৯

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ