Inqilab Logo

ঢাকা বৃহস্পতিবার, ০৩ ডিসেম্বর ২০২০, ১৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ১৭ রবিউস সানি ১৪৪২ হিজরী

শঙ্খ নদের বাঁধে আবারো ভাঙন

নুরুল আবছার তালুকদার, আনোয়ারা (চট্টগ্রাম) থেকে | প্রকাশের সময় : ৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ১২:০১ এএম

চট্টগ্রামের আনোয়ারায় শঙ্খ নদের কুল ঘেষে নির্মিত পানি উন্নয়ন বোর্ডের বেড়িবাঁধে আবারো ভাঙন ধরেছে। গত কয়েক দিনের মধ্যে উপজেলার মধ্য জুঁইদন্ডী এলাকায় বাঁধের ১০০ মিটারের অধিকঅংশ ধসে পড়ে। বেড়িবাঁধ নির্মাণের মধ্যে বাঁধটি ধসে যেতে শুরু করায় আতঙ্কে রয়েছেন স্থানীয় বাসিন্দারা। 

সরেজমিনে দেখা যায়, অমবশ্যর জোয়ার ভাটায় শঙ্খনদের পানির চাপে জুঁইদন্ডী এলাকায় সদ্য নির্মিত বাঁধের বহুলাংশ ধসে পড়েছে। ধসে পড়া ওই বাঁধের দুই পাশ দুর্বল হয়ে নতুন করে ফাটল দেখা দিয়েছে। লোকালয়ে পানি ঢুকতে বেড়িবাঁধের আর বেশি অংশ নেই। এতে ঝুঁকির মধ্যে রয়েছে ওই এলাকার অসংখ্য ঘরবাড়িসহ বিভিন্ন স্থাপনা। মধ্য জুঁইদন্ডীর বাসিন্দা জসিম উদ্দিন জানান, শঙ্খের প্রবল স্রোতের কারণে হঠাৎ পাউবোর ওই অংশের বেড়িবাঁধে ধস নামায় ভাঙনের সৃষ্টি হয়েছে। জরুরি ভিত্তিতে ভেঙে যাওয়া বেড়িবাঁধ মেরামত করা না হলে যে কোনো মুহুর্তে পানি ঢুকে বিস্তীর্ণ এলাকা প্লাবিত হওয়ার আশঙ্কা করছেন তিনি। বেড়িবাঁধ নির্মাণ কাজ শেষ না হতেই শঙ্খের পেটে বিলীন শুরু হওয়ায় এলাকার মানুষের মধ্যে ক্ষোভ দেখা দিয়েছে। স্থানীয়দের অভিযোগ,পাউবোর নিয়োগ করা ঠিকাদার যেমন তেমনভাবে বাঁধটি তৈরি করায় অল্প দিনের মধ্যেই ধস নেমেছে। তবে পাউবোর কর্মকর্তারা বলেছেন, সংশ্লিষ্ট ঠিকাদার বাঁধটি পুরোপুরি সংস্কার করে বুঝে না দিলে পানি উন্নয়ন বোর্ড বুঝে নেবে না।
পাউবো সূত্র জানায়, গত ২০১৭-১৮ অর্থ বছরে উপজেলার বরুমচড়া থেকে বরৈয়া পর্যন্ত ১৬ কিলোমিটার এলাকায় পাউবোর ৬৩/১-এ পোল্ডারের দরপত্র আহবান করা হয়। কাজ পেয়ে আহসান-জামান এন্টারপ্রাইজ নামের ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান চলতি অর্থ বছরে ২ কোটিরও বেশি টাকা ব্যয়ের এ কাজ শুরু করে। বর্তমানে আনোয়ারা উপকূল সুরক্ষায় সেখানে ২৮০ কোটি টাকার কাজ চলছে। পানি উন্নয়ন বোর্ড চট্টগ্রামের উপ-সহকারি প্রকৌশলী সিজেন চাকমা বলেন, আনোয়ারায় বেড়িবাঁধ নির্মাণ কাজ চলমান রয়েছে। ধসে পড়া বাঁধের ওই অংশ দ্রæত মেরামতের জন্য ঠিকাদারকে বলা হয়েছে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন