Inqilab Logo

ঢাকা, বুধবার, ২৩ অক্টোবর ২০১৯, ০৭ কার্তিক ১৪২৬, ২৩ সফর ১৪৪১ হিজরী

টেবিল টেনিসে তুঘলকি কাণ্ড!

স্পোর্টস রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ৮:৪৯ পিএম

বাংলাদেশ টেবিল টেনিস (টিটি) অঙ্গনে একের পর এক তুঘলকি কাণ্ড ঘটেই চলেছে। দিন যতই গড়াচ্ছে ততই টিটি ফেডারেশন কর্মকর্তা আর খেলোয়াড়দের মাঝে দ্বন্দ্ব প্রকট হচ্ছে। নানা ঘটনার পর আসন্ন নেপাল সাউথ এশিয়ান (এসএ) গেমসের টিটি’র জাতীয় দলের ক্যাম্প থেকে বাদ পড়েছেন পাঁচবারের সাবেক জাতীয় চ্যাম্পিয়ন মানস চৌধুরী। মূলত অনুশীলন ক্যাম্পে অনুপস্থিতির কারণেই তাকে বাদ দিয়েছে ফেডারেশন। র‌্যাঙ্কিংয়ের দুই’য়ে থাকা মানসের পরিবর্তে দলে জায়গা পেয়েছেন নবমস্থানের খেলোয়াড় বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর নাছির উদ্দিন। এছাড়া এসএ গেমসের ক্যাম্পে থাকা জাতীয় দলের তিনজন মহিলা খেলোয়াড় চাকরি করার কারণে দুইবেলা অনুশীলন করতে পারছেন না। তারা একবেলা অনুশীলন করার দাবী জানালেও তা নাকচ করে দিয়েছে বাংলাদেশ অলিম্পিক অ্যাসোসিয়েশন (বিওএ)। গত বৃহস্পতিবার টিটি খেলোয়াড় কল্যাণ সমিতির সদস্যরা ঈদ পুর্নমিলনী অনুষ্ঠান করতে চেয়েছিলেন শহীদ তাজ উদ্দিন আহমেদ উডেন ফ্লোর জিমনেসিয়ামে। কিন্তু ফেডারেশনের পুলিশি বাধায় নির্দিষ্ট স্থানে ঈদ পুর্নমিলনী অনুষ্ঠান করতে পারেননি খেলোয়াড়রা। পরে ওইদিন রাতেই তারা বিওএ’র মহাপরিচালকের অনুমতিক্রমে বিওএ ভবনে অনুষ্ঠানটি করেন। এ প্রসঙ্গে টিটি ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক শেখ মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম বলেন, ‘ খেলোয়াড়রা যে একটা অনুষ্ঠান করবে সে ব্যাপারে আমাদের কাউকে জানায়নি। তারা কোন কর্মকর্তাকে পাত্তা না দিয়ে খেয়াল খুশী মতো যা ইচ্ছা তাই করতে চাচ্ছে। এখন এসএ গেমসের ক্যাম্প চলছে। কোন অনুমতি ছাড়া তারা কিভাবে শহীদ তাজ উদ্দিন আহমেদ উডেন ফ্লোর জিমনেসিয়ামে অনুষ্ঠান করবে। এরপরও তারা আদেশ অমান্য করে বুঝাতে চেয়েছে ‘পারলে ঠেকাও’। যে কারণে ক্যাম্পের সুরক্ষায় আইনের আশ্রয় নেয়া হয়েছে।’ এদিকে ১৫ সেপ্টেম্বর থেকে ইন্দোনেশিয়ার জাকার্তায় শুরু হচ্ছে এশিয়ান টিটি চ্যাম্পিয়নশিপ। ১৩ সেপ্টেম্বর ঢাকা ছাড়ার কথা বাংলাদেশ দলের (মানস, হৃদয় ও পরাগ)। 

কর্মকর্তা হিসেবে ফেডারেশনের সহ-সভাপতি খোন্দকার হাসান মুনীরেরও যাওয়ার কথা। টিকিট কাটা হয়ে গেলে জানা যায়, মানস ও মুনীরের পাসপোর্টের মেয়াদ কম রয়েছে। আগামি তিনদিনের মধ্যে যদি পাসপোর্ট নবায়ণ করতে পারে ফেডারেশন তাহলেই তাদের যাওয়া সম্ভব। এ নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেন মানস। তিনি বলেন, ‘আমাদের পাসপোর্টের কপি তো ফেডারেশনেই জমা রয়েছে। এশিয়ান টিটি চ্যাম্পিয়নশিপে দল খেলতে যাবে- এ সিদ্ধান্ত হওয়ার পর কেন ফেডারেশন পাসপোর্টের কপি চেক করেনি? পাসপোর্টের মেয়াদ ৬ মাস বাকি আছে কি না তা জানা থাকলে তো এমন বিব্রতকর পরিস্থিতিতে পড়তে হতো না।’ তবে ফেডারেশন সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর জানান, পাসপোর্টের কারণে শেষ পর্যন্ত মানস যেতে না পারলে অন্যজনকে পাঠানো হবে। এমন একজনকে প্রস্তুত রাখা হয়েছে।

এদিকে ফেডারেশন সহ-সভাপতি হাসান মুনীরও রয়েছেন বেকায়দায়। তিনি বলেন, ‘অনেক সময় খেয়াল করা হয় না। ভুল তো মানুষেরই হয়। আমার পাসপোর্টের মেয়াদ তো আর মাত্র ক’দিন বাদেই শেষ হবে। আমার পাসপোর্টের মেয়াদ নিয়ে যদি ঝামেলা না হতো তাহলে তো মানস বুঝেই নিতো ইচ্ছে করেই এমনটি করা হয়েছে। দেখি রোববার জমা দিয়ে নতুন পাসপোর্ট পাওয়া যায় কিনা।’

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: টেবিল টেনিস

৬ এপ্রিল, ২০১৯
৫ এপ্রিল, ২০১৯

আরও
আরও পড়ুন