Inqilab Logo

ঢাকা, শুক্রবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৫ আশ্বিন ১৪২৬, ২০ মুহাররম ১৪৪১ হিজরী

খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে ১১ ও ১২ সেপ্টেম্বর মানববন্ধন করবে বিএনপি

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ১২:৪৩ পিএম

বিএনপি চেয়ারপরসন বেগম খালেদা জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তি ও সুচিকিৎসার দাবিতে আগামী ১১ ও ১২ সেপ্টেম্বর মানববন্ধন করবে বিএনপি। এর মধ্যে ১১ সেপ্টেম্বর রাজধানীতে এবং ১২ সেপ্টেম্বর সারাদেশে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করবে দলটির নেতাকর্মীরা। রোববার (০৮ সেপ্টেম্বর) দুপুরে নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এ কর্মসূচি ঘোষণা করেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

তিনি বলেন, দেশের সবচেয়ে জনপ্রিয় নেত্রী এবং সাবেক তিনবারের প্রধানমন্ত্রীকে সম্পূর্ণ মিথ্যা মামলায় কারাবন্দী করে রাখা হয়েছে। এর একটাই মাত্র উদ্দেশ্য রাজনৈতিক প্রতিপক্ষকে সম্পূর্ণভাবে নিশ্চিহ্ন করে দেয়া। এটা কখনো মেনে নেয়া যায় না। আমরা বিএনপির পক্ষ থেকে অবিলম্বে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তি দাবি করছি। মুক্তি দিয়েই তার সুচিকিৎসার ব্যবস্থা করতে হবে।

মির্জা ফখরুল বলেন, শুধুমাত্র ক্ষমতায় টিকে থাকার জন্য আওয়ামী লীগ সরকার দেশের সবচেয়ে জনপ্রিয় নেত্রীকে কারাবন্দী করে রেখেছে। মিথ্যা মামলায় সাজা দিয়ে বেআইনিভাবে দীর্ঘ দিন ধরে আটক করে রেখেছে এই অনির্বাচিত সরকার। বেগম জিয়া প্রায় ১৮ মাস ধরে কারারুদ্ধ, তিনি বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত। ৭৪ বছর বয়স্ক এই নেত্রী শুধুমাত্র গণতান্ত্রিক আন্দোলনে নেতৃত্ব দিচ্ছেন বলেই অমানবিকভাবে আটকে রাখা হয়েছে। তিনি অত্যন্ত অসুস্থ থাকার কারণে আমরা বারবার বিভিন্নভাবে বলে, আন্দোলন করে চিকিৎসকদের পরামর্শে ফলে পিজি হাসপাতালে চিকিৎসার ব্যবস্থা করা হয়েছে। আমরা তখনো বারবার বলেছিলাম তাকে তার পছন্দমত হাসপাতালে চিকিৎসার সুযোগ দেয়া হোক। কিন্তু সেই সুযোগ দেয়া হয়নি।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, বেগম জিয়া এখনো প্রচ- অসুস্থ। কিন্তু সরকারের গঠিত মেডিকেল টিমের সদস্যরা বলছেন তিনি সুস্থ। তাকে চিকিৎসা না দিয়ে আবারও কারাগারে নেয়ার ষড়যন্ত্র হয়েছে। অথচ আমরা নেতৃবৃন্দ ও ম্যাডামের পরিবারের সদস্যরা যারা তার সাথে হাসপাতালে দেখা করেছি তারা জানি তার শারীরিক অবস্থা কতটা খারাপ। যখন তার সাথে দেখা করতে গিয়েছি, দেখেছি তিনি বিছানা থেকেও উঠতে পারছেন না। বিছানা থেকে বাথরুমে নিয়ে যাওয়া হয় হুইল চেয়ারে করে। তিনি এখনো পা বাকা করতে পারেন না। হুইল চেয়ারে বসলে পা সোজা করে রাখতে হয়। তার দুই কাধ ফ্রোজেন, হাতগুলোতে প্রচ- ব্যাথা। রাতে ঘুমাতে পারেন না। আর্থ্রাইট্রিসের রোগে ভুগছেন। চিকিৎসকরাই বলছেন, চিকিৎসা না হলে পঙ্গু হয়ে যেতে পারেন। এছাড়া ২০ বছর ধরে ডায়াবেটিসে ভুগছেন, হাইপার টেনশনে ১০ বছর ধরে, সুগার ওঠানামা কর। ডাক্তাররা বলছেন তার চিকিৎসা যদি সঠিকভাবে না হয় তাহলে প্রতিদিনই তার স্বাস্থ্যের অবনতি হবে। অথচ চিকিৎসার যে বিকল্প ব্যবস্থা আছে সেগুলো থেকে তাকে বঞ্চিত করা হয়েছে। তাকে তার প্রাপ্য জামিন দেয়া হোক।

এসময় সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন- স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, ড. আবদুল মঈন খান, আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, ভাইস চেয়ারম্যান ডা. এ জেড এম জাহিদ হোসেন, সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী, স্বেচ্ছাসেবক বিষয়ক সম্পাদক মীর শরাফত আলী সপু, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক আবদুস সালাম আজাদ প্রমুখ।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: বিএনপি


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ