Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার, ২২ অক্টোবর ২০১৯, ০৬ কার্তিক ১৪২৬, ২২ সফর ১৪৪১ হিজরী

মোসাদ্দেক-মুশফিকের বিদায়ে বিপদে বাংলাদেশ

জিততে হলে সাকিবদের চাই ৩৯৮

ইমরান মাহমুদ, চট্টগ্রাম থেকে | প্রকাশের সময় : ৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ৩:১৯ পিএম

চট্টগ্রাম টেস্টের চতুর্থ দিনে মুখোমুখি বাংলাদেশ ও আফগানিস্তান। জিততে হলে সাকিব আল হাসানদের গড়তে হবে নিজেদের রান তাড়ার রেকর্ড।

মোসাদ্দেক হোসেনের বিদায়ের যে চাপ অভিজ্ঞ মুশফিকুর রহিমকে নিয়ে সেটি ভালোই কাটিয়ে উঠছিলেন সাদমান ইসলাম। তবে দারুণ এক ডেলিভারিতে এক হঠাৎই এলোমেলো বাংলাদেশ শিবির।

দলের অন্যতম এই সেরা ব্যাটসম্যানও পারলেন না দলকে ভরসা জোগাতে। ২৩ রানে এলবিডব্লিউ হয়ে গেলেন রশিদ খানের বলে। পাশাপাশি বাংলাদেশ হারাল একটি রিভিউও।

২৪ ওভার শেষে ৩ উইকেট হারানো বাংলাদেশের সংগ্রহ ৭৮।

উইকেট বিলিয়ে এলেন মোসাদ্দেক

ওপেনিংয়ের পরিবর্তনের মতো ব্যাটিং অর্ডারের তিন নম্বরেও চমক উপহার দিল বাংলাদেশ। পাঠানো হয় মোসাদ্দেক হোসেনকে। তবে শুরুটা ভালো করলেও প্রতিপক্ষকে উইকেট উপহার দিয়ে এলেন এই অলরাউন্ডার।

রান বাড়ানোর আশায় আসগর আফগানের ঝুলিয়ে দেয়া একটি বল উড়িয়ে মারতে গিয়ে লং অফে ধরা পড়েন আসগর আফগানের হাতে। ১২ রানে মোসাদ্দেকের বিদায়ে আরও বিপদে পড়ে গেল বাংলাদেশ।

২২ ওভার শেষে ২ উইকেট হারানো বাংলাদেশের সংগ্রহ ৭১। ৩০ রানে ব্যাট করছেন সাদমান। মুশফিকুর রহিম খেলছেন ১৮ রান নিয়ে।

জিততে হলে এখনও বাংলাদেশের চাই ৩২৭, হাতে ৮ উইকেট।

লাঞ্চ থেকে ফিরেই আউট লিটন

রেকর্ড রান তাড়ার শুরুটা ভালোই করেছিলেন সাদমান ইসলাম ও লিটন কুমার দাস। দুই ওপেনারের সলিড বাটিংয়ে ৯ ওভারে বিনা উইকেটে ৩০ রান নিয়ে মধ্যবিরতিতে যায় বাংলাদেশ।

তবে সেখান থেকে ফিরেই বিপত্তি। প্রথম উইকেট হারাল বাংলাদেশ।

একটু আগেই রিভিউ নিয়ে কট বিহাইন্ড থেকে বেঁচে গেলেও বেশিক্ষণ আর টিকলেন না লিটন। ৩০ বলে ৯ রান করে জহির খানের বলে ফিরে গেলেন এলবিডব্লিউ হয়ে।

১৬ ওভার শেষে এক উইকেট হারানো বাংলাদেশের সংগ্রহ ৫০। সাদমান খেলছেন ২৮ রান নিয়ে, মোসাদ্দেক হোসেনের ঝুলিতে ১১ রান।

থেমেছে বৃষ্টি, চলছে খেলা শুরুর প্রস্তুতি

দফায় দফায় বৃষ্টি বাগড়া বেঁধেছে চট্টগ্রাম টেস্টের চতুর্থ দিনে। লাঞ্চ বিরতিতে বেশ কিছুক্ষণ ঝিরিঝিরি বৃষ্টি হয়েছে। তবে আশার খবর আবার থেমেছে বৃষ্টি। ফলে কভার সরানোর কাজ করছেন মাঠকর্মীরা। ২টা ১০ মিনিটে ফের শুরু হবে খেলা।

ফের বৃষ্টির বাগড়া

সকালে বৃষ্টির কারণে খেলা শুরু হতে দুই ঘণ্টা দেরি হয়। এরপর প্রথম সেশন কাটে নির্বিঘ্নেই। তবে লাঞ্চ বিরতিতে ঝিরিঝিরি বৃষ্টি হয়েছে কিছুক্ষণ। ফলে উইকেট ঢেকে রাখা হয়েছে কভারে।

দ্বিতীয় সেশনের খেলা শুরু হওয়ার কথা ছিল দুপুর ১টা ৪০ মিনিটে। কিন্তু বৃষ্টির কারণে তা নির্ধারিত সময়ের পরে শুরু হবে।

রেকর্ড তাড়ায় স্বস্তি নিয়ে লাঞ্চে বাংলাদেশ

প্রথম ইনিংসে রানের খাতায় কিছু যোগ হওয়ার আগেই উইকেট হারিয়েছিল বাংলাদেশ। তবে দ্বিতীয় ইনিংসের শুরুটা হয়েছে বেশ ভালো। লাঞ্চ পর্যন্ত সময়টা নিরাপদেই কাটিয়েছেন দুই ওপেনার।

বিশেষ করে সাদমান ইসলাম করছেন ইতিবাচক ব্যাটিং। ঝুঁকি নেননি কোনো, বাজে বল পেলে সেটাকে বাউন্ডারিতে পরিণত করতেও দ্বিধা করেননি। ইনিংসের দ্বিতীয় ওভারেই মোহাম্মদ নবির বলে মারেন দুটি চার।

ওপেনিং জুটিতে বদল

তবে কিছুটা পরিবর্তন এসেছে অর্ডারে। ডান-বাঁহাতি কম্বিনেশনের কারণে হোক বা অন্য কোনো কারণে, রান তাড়ার ইনিংসে ওপেনিং জুটিতে পরিবর্তন এনেছে বাংলাদেশ। সাদমান ইসলামের সঙ্গে ইনিংস শুরু করেছেন লিটন দাস।

প্রথম ইনিংসে সাদমানের সঙ্গে ওপেন করেছিলেন সৌম্য সরকার।

তিন নম্বর থেকে ওপেনিংয়ে উঠে আসা লিটন দাস নিজেকে এখনও মানিয়ে নিতে পারেননি। দু-একটি আগ্রাসী শট খেলারও চেষ্টা করেছেন। তবে তাতে বিপদ হয়নি।

লাঞ্চের আগ পর্যন্ত ৯ ওভার খেলে বাংলাদেশের সংগ্রহ বিনা উইকেটে ৩০ রান। লিটন ৯ ও সাদমান ২১ রানে উইকেটে আছেন। জয়ের জন্য এখনও দরকার ৩৬৮ রান। 

জিততে হলে গড়তে হবে রেকর্ড

৩৯৮ রানের বিশাল লক্ষ্য সামনে রেখে দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাটিং করতে নেমেছে বাংলাদেশ। ওপেনিং জুটিতে এসেছে পরিবর্তন। সাদমান ইসলামের সঙ্গে নেমেছেন লিটন দাস। প্রথম ইনিংসে সাদমানের সঙ্গী হয়েছিলেন সৌম্য সরকার।

টেস্টে এর আগে সর্বোচ্চ ২১৫ রান তাড়া করে জিতেছিল বাংলাদেশ, ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে। আফগানদের হারাতে হলে ওই রেকর্ড ছাড়িয়ে বহুদূর এগোতে হবে সাকিবদের।

শুধু তাই নয়, টেস্ট ইতিহাসেরই অন্যতম সেরা রান তাড়ার নজির স্থাপন করতে হবে বাংলাদেশকে। কারণ এই ফরম্যাটে ৩৯৮ রানের চেয়ে বেশি লক্ষ্য তাড়া করে জয়ের নজির আছে মাত্র চারটি।

বাংলাদেশের লক্ষ্য ৩৯৮

চতুর্থ দিন সকালে খুব বেশিক্ষণ স্থায়ী হলো না আফগানিস্তানের ইনিংস। ৬.৩ ওভার খেলে হাতে থাকা ২ উইকেট হারিয়ে তারা যোগ করতে পারল ২৩ রান। তবে কাজের কাজটা আগেই সেরে রেখেছিল তারা। দলটি পেয়েছে ৩৯৭ রানের বিশাল লিড।

২৬০ রানে থামল আফগানিস্তান

চতুর্থ দিনে নিজের প্রথম বলেই মেহেদী হাসান মিরাজ পেলেন সাফল্য। রাউন্ড দা উইকেটে করা বলে ফরোয়ার্ড ডিফেন্স করেছিলেন বাঁহাতি জহির খান। বল রাখতে পারেননি নিচে। সিলি পয়েন্টে ক্যাচ নেন মুমিনুল।

শেষ ব্যাটসম্যান হিসেবে খালি হাতে জহিরের বিদায়ে আফগানিস্তান অলআউট ২৬০ রানে। আরেক পাশে আফসার জাজাই অপরাজিত থেকে গেলেন ৪৮ রানে।

সংক্ষিপ্ত স্কোর :

আফগানিস্তান ১ম ইনিংস : ৩৪২

বাংলাদেশ ১ম ইনিংস : ২০৫

আফগানিস্তান ২য় ইনিংস : ৯০.১ ওভারে ২৬০ (আগের দিন ২৩৭/৮) (আফসার ৪৮*, ইয়ামিন ৯, জহির ০*; সাকিব ১৯-৩-৫৮-৩, মিরাজ ১২.১-৩-৩৫-২, তাইজুল ২৮-৬-৮৬-২, নাঈম ১৭-২-৬১-২, মুমিনুল ১০-৬-১৩-০, মোসাদ্দেক ৪-১-৩-০)।

রান আউট ইয়ামিন

রান আউট থেকে দিনের প্রথম উইকেট পেল বাংলাদেশ। দ্রুত একটি রান নেওয়ার চেষ্টায় রান আউট হয়ে গেলেন ইয়ামিন আহমাদজাই। ফিল্ডারের থ্রো ধরে বেশ ক্ষিপ্রতায় স্টাম্প ভেঙে দেন কিপার মুশফিক।

৯ রানে রান আউট ইয়ামিন। আফগানদের রান ৯ উইকেটে ২৬০। লিড ৩৯৭।

বিলম্বিত শুরু

বাংলাদেশ-আফগানিস্তানের একমাত্র টেস্টের ৪র্থ দিনের খেলা শুরু হয়েছে। শনিবার ২০ মিনিট আগে খেলা শেষ করতে বাধ্য হওয়ায় রোববার লক্ষ্য ছিল ২০ মিনিট আগে খেলা শুরুর। রোববার সকাল ৯টা ৪০ মিনিটে খেলা শুরুর কথা থাকলেও বৃষ্টির বাধায় খেলা শুরু হয় বেলা ১১টা ৫০ মিনিটে।

এদিকে দেরিতে খেলা শুরু হয় লাঞ্চ বিরতিসহ দিনের খেলার সূচীতে পরিবর্তন আনা হয়েছে। বেলা ১১টা ৫০ মিনিটে খেলা শুরু হয়েছে। এরপর দুপুর ১টায় লাঞ্চ বিরতিতে যাবে দুই দল। চা বিরতি হবে ৩টা ৪০ মিনিটে। আর ৫টা ৪০ মিনিট পর্যন্ত চলবে দিনের খেলা।

অবশ্য বৃষ্টির হুমকি থেকেই যাচ্ছে। এর আগে শনিবার রাত থেকে রোববার সকাল পর্যন্ত থেমে থেমে বৃষ্টি হয়। এতে চট্টগ্রামের মাঠ খেলার অনুপযোগী হয়ে পড়েছিল। ফলে চতুর্থ দিনের খেলা শুরু হতে দেরি হয়।

চট্টগ্রাম টেস্টে বৃষ্টির হানা

চট্টগ্রাম টেস্টে হানা দিয়েছে বৃষ্টি। শনিবার রাত থেকে বন্দরনগরীর আকাশ ভেঙে থেমে থেমে বৃষ্টি হচ্ছে। এতে সাগরিকার মাঠ খেলার অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। কাভার দিয়ে উইকেট ঢেকে রাখা হয়েছে। ড্রেসিংরুমে বন্দি আছেন ক্রিকেটাররা।

ফলে চতুর্থ দিনের খেলা শুরু হতে বিলম্ব হচ্ছে। আবহাওয়া অফিস বলছে, রোববার সারাদিন মেঘ-বৃষ্টির খেলা চলার সম্ভাবনা রয়েছে। আলোক স্বল্পতার কারণে গতদিন কিছুক্ষণ আগে খেলা শেষ। ফলে চতুর্থ দিন ২০ মিনিট আগে তা শুরু হওয়ার কথা ছিল। তবে বৃষ্টির কারণে সম্ভব হয়নি।
 
রেকর্ড রানের বোঝা

এখন পর্যন্ত এ টেস্টে চালকের আসনে আফগানিস্তান। কোণঠাসা হয়ে রয়েছে বাংলাদেশ। তৃতীয় দিন শেষে ৮ উইকেটে ২৩৭ রান সংগ্রহ করেছে আফগানরা। ইতিমধ্যে ৩৭৪ রানের লিড পেয়েছে তারা। নিঃসন্দেহে দুদলের একমাত্র টেস্টের নাটাই তাদের হাতে।

লিড বাড়িয়ে নেয়ার সুযোগও থাকছে সফরকারীদের। আফসার জাজাই ৩৪ রান নিয়ে অপরাজিত আছেন। নতুন ব্যাটসম্যান হিসেবে ক্রিজে রয়েছেন ইয়ামিন আহমেদজাই। তারা শুরু করবেন নতুন দিনের খেলা।

নিজেদের প্রথম ইনিংসে স্বপ্নের মতো ব্যাটিং করে আফগানিস্তান। রহমত শাহর ইতিহাস গড়া সেঞ্চুরিতে তোলে দলীয় সর্বোচ্চ ৩৪২ রান। জবাবে প্রথম ইনিংসে ২০৫ রানে গুটিয়ে যায় বাংলাদেশ।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন