Inqilab Logo

ঢাকা, শনিবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৬ আশ্বিন ১৪২৬, ২১ মুহাররম ১৪৪১ হিজরী

যশোরে গৃহবধূ গণধর্ষণ মামলায় গ্রেফতার ৩ আসামিকে ৩ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছে আদালত

বেনাপোল অফিস | প্রকাশের সময় : ৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ৪:১৭ পিএম

যশোরের শার্শা উপজেলায় গৃহবধূ গণধর্ষণ মামলায় গ্রেফতার ৩ আসামিকে ৩ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। আজ রোববার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক সাইফুদ্দিন হুসাইন শুনানি শেষে রিমান্ড আবেদন মঞ্জুর করেন।
আসামিরা হলেন- শার্শার লক্ষনপুর ইউনিয়নের চটকাপোতা গ্রামের কামরুজ্জামান ওরফে কামরুল (৪০) লহ্মণপুর গ্রামের আব্দুল লতিফ )৩৮) ও আব্দুল কাদের (৪৭)।
তদন্ত কর্মকর্তা
যশোর পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশ’র (পিবিআই) তদন্ত কর্মকর্তা ওসি শেখ মোনায়েম হোসেন জানান, রোববার শুনানি শেষে বিচারক তিন আসামির ৩ দিনের রিমান্ড আবেদন মঞ্জুর করেছেন। ইতোমধ্যে আসামিদের রিমান্ডে নেওয়া হয়েছে। তাদের জিজ্ঞাসাবাদ চলছে। রিমান্ড শেষে আসামিদের ডিএনএ টেস্টের জন্য আলামত সিআইডিতে পাঠানো হবে।
মামলায় অজ্ঞাত আসামি প্রসঙ্গে তদন্ত কর্মকর্তা শেখ মোনায়েম হোসেন বলেন, অজ্ঞাত আসামি শনাক্তে তদন্ত কাজ চলছে। তদন্ত শেষ না হওয়া পর্যন্ত মন্তব্য করা সম্ভব নয়।
উল্লেখ্য গত ২ সেপ্টেম্বর শার্শা উপজেলার লহ্মণপুর গ্রামে ওই গৃহবধূর বাড়িতে গভীর রাতে যায় এসআই খায়রুল, সোর্স কামরুলসহ চারজন। তারা ওই গৃহবধূর কাছে ৫০ হাজার টাকা দাবি করে তার স্বামীকে সহজে জামিন পাইয়ে দেয়ার জন্য। এ নিয়ে বাক বিতন্ডার এক পরযায়ে টাকা না দেওয়ায় ক্ষিপ্ত হয়ে এসআই খায়রুল ও কামরুল তাকে ধর্ষণ করে বলে ওই গৃহবধূ সাংবাদিকদের কাছে অভিযোগ করেন।
গত ৩ সেপ্টেম্বর মহিলা শার্শা থানায় ৩ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত একজনের নামে মামলা করেন। মামলাটি বৃহস্পতিবার পুলিশ হেড কোয়ার্টার্সের নির্দেশে তদন্তের দায়িত্ব পেয়েছে পিবিআই যশোর। মামলার তদন্ত কর্মকর্তা নিযুক্ত করা হয়েছে ইনসপেক্টর শেখ মোনায়েম হোসেনকে।
দায়িত্ব পেয়েই ৬ সেপ্টেম্বর তিনি ওই গৃহবধূর বাড়ি পরিদর্শন করে জবানবন্দি গ্রহণ করেন। আর আজ রোববার আদালত আসামিদের তিন দিনের রিমান্ড চাইলে আদালত তা মঞ্জুর করেন।
এ মামলায় গোড়পাড়া পুলিশ ফাড়ির ইনচার্জ খায়রুল আলমকে ঘটনার পরপরই প্রত্যাহার করে নেয়া হয়। পরে বিভিন্ন পত্র পত্রিকায় ব্যাপক লেখালেখি করার কারণে গতকাল শার্শা থানার ওসি মশিউর রহমানকে প্রত্যাহার করা হয়।
মহসিন মিলন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ধর্ষণ মামলা


আরও
আরও পড়ুন