Inqilab Logo

সোমবার, ০৪ জুলাই ২০২২, ২০ আষাঢ় ১৪২৯, ০৪ যিলহজ ১৪৪৩ হিজরী
শিরোনাম

গেমস-হোমফ্রন্ট

প্রকাশের সময় : ১৩ জুন, ২০১৬, ১২:০০ এএম

আজ যে গেমটি নিয়ে আলোচনা করা হবে সেটি একটি বেশ উপভোগ্য কাহিনীনির্ভর সায়েন্স ফিকশন ফাস্ট পারসন শূটিং গেম। গেমের পটভূমি হচ্ছে অদূর ভবিষ্যতের অর্থাৎ ২০২৭ সালের আমেরিকার সীমান্ত এলাকা, যেখানে দেখানো হয়েছে পারমাণবিক অস্ত্রে সজ্জিত হয়ে কোরিয়ান সৈন্যবাহিনী আমেরিকার মিসিসিপি নদী তীরবর্তী এলাকায় অবস্থিত সবগুলো স্টেট দখল করে নিয়েছে। তবে মজার ব্যাপার হচ্ছে গেমে প্রথমে কোরিয়ার বদলে চীনকে শত্রুপক্ষ বানানো হয়েছিল, কিন্তু গেমের এই কাহিনীর ফলে বাস্তবেই আমেরিকার সাথে চীনের বাণিজ্যিক সম্পর্কের অবনতি হতে পারে, সেই আশঙ্কায় পরে উত্তর কোরিয়াকে শত্রুপক্ষ করা হয়েছে। ২০১১ থেকে শুরু করে ২০২৭ পর্যন্ত ঘটা কিছু ঘটনার ভিত্তিতে এ যুদ্ধের ঘোষণা করা হবে। নতুন ধরনের কাহিনী গেম খেলার স্বাদ বাড়িয়ে তুলতে সক্ষম হবে বলে আশা রাখি। অন্যান্য গেমের তুলনায় এ গেমে বেশ কিছু নতুন ফিচার যোগ করা হয়েছে, যা গেমটিকে আরও উপভোগ্য করে তুলেছে।
সিঙ্গেল প্লেয়ার মোডটি গেমের পুরনো ভার্সন ফ্রন্টলাইন্স-ফুয়েল অব ওয়ারের চেয়ে আরও সুন্দর করে সাজানো হয়েছে। গেমের ডিজাইন ডিরেক্টর ডেভিড ভোটাইপকা গেমটি সাজিয়েছেন হাফ-লাইফ ২ গেমের সজ্জার সাথে মিল রেখে। গেমে বায়োশক ও আনরিয়েল টুর্নামেন্ট গেমগুলোর ছাপও দেখা যাবে। ডিফিকাল্টি লেভেলের ওপরে ভিত্তি করে গেমের গেমপ্লের সময় ৫-১০ ঘণ্টা হতে পারে। মাল্টিপ্লেয়ার মোডে গাড়ি নিয়ে যুদ্ধ করার প্রবণতা বেশি লক্ষ করা যাবে। মিশন সম্পন্ন করার ফলে প্লেয়ার পয়েন্ট পাবে, যা তার কর্মদক্ষতা বাড়াবে। অর্থের বিনিময়ে ছোটখাটো অস্ত্র কেনার পাশাপাশি হেলিকপ্টার ও ট্যাঙ্কও কেনা যাবে। মাল্টিপ্লেয়ার মোডে ৩২ জন খেলা যাবে। দুটি টিমে খেলা হবে, যাতে প্রত্যেক টিমে ১৬ জন করে প্লেয়ার থাকবে। গেমে প্রায় ৭টি ম্যাপ আছে পিসি ভার্সন ও প্লেস্টেশন ভার্সনের জন্য। তবে সুবুর্বস নামে বিশেষ একটি ম্যাপ আছে, যা শুধু এক্সবক্স ভার্সনের জন্য অবমুক্ত করা হয়েছে।
গেমটি খেলার জন্য দরকার
ইন্টেল কোর টু ডুয়ো ৩.০ গিগাহার্টজ বা এএমডি অথলন ৬৪ এক্স২ ৩৬০০+ সমমানের প্রসেসর,
১ গিগাবাইট র্যােম, ৫১২ মেগাবাইট ভিডিও মেমরিসহ গ্রাফিক্সকার্ড ও হার্ডডিস্কে প্রায় ৮ গিগাবাইট পরিমাণ ফাঁকা স্থান। গেমটি পিসির জন্য ডেভেলপ করেছে ডিজিটাল এক্সট্রিমস
কনসোলের জন্য ডেভেলপ করেছে কাওস স্টুডিওস।
গেমটি পাবলিশ করেছে টিএইচকিউ।
গেমটি বানাতে ব্যবহার করা হয়েছে নামকরা গেম ইঞ্জিন আনরিয়েল।
গেমের কাহিনী লিখেছেন আমেরিকার বিখ্যাত স্ক্রিনরাইটার, প্রডিউসার ও ডিরেক্টর মিস্টার জন ফ্রেডরিক মিলিয়াস।
# শিবলু



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: গেমস-হোমফ্রন্ট

১৩ জুন, ২০১৬
আরও পড়ুন