Inqilab Logo

ঢাকা, শনিবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৬ আশ্বিন ১৪২৬, ২১ মুহাররম ১৪৪১ হিজরী

গৃহবধূ ধর্ষণে অভিযুক্ত সাবেক ছাত্রলীগ নেতা

সোনারগাঁয়ে স্কুলের কক্ষে ছাত্রীসহ শিকার আরো ২ : আটক ৪

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ১২:০১ এএম

কুড়িগ্রামের উলিপুরে গৃহবধূকে ধর্ষণ করেছে সাবেক ছাত্রলীগ নেতা সুমন। এ ঘটনায় গৃহবধূ তিনমাসের অন্তঃসত্ত্বা। অভিযুক্ত শাহজাহান আলী সুমন ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাবেক আহ্বায়ক ছিলেন। নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ে বিদ্যালয়ের কক্ষে স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণ করল দপ্তরি। মাদারীপুরে অষ্টম শ্রেণির স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এদিকে, বরগুনায় একসঙ্গে ৩ ছাত্রীকে ধর্ষণ চেষ্টা ঘটনায় দুইজনসহ বিভিন্ন স্থানে ৪ জনকে আটক করেছে পুলিশ।

উলিপুর (কুড়িগ্রাম) : কুড়িগ্রামের উলিপুরে সাবেক ছাত্রলীগ নেতার বিরুদ্ধে এক গৃহবধূকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। এ ব্যাপারে জনপ্রতিনিধিরা স্থানীয় ভাবে রাতভর সালিশ করে কোন সমাধান না হওয়ায় তাকে থানা পুলিশের কাছে সোর্পদ করা হয়। এ ঘটনায় গৃহবধূ বাদি হয়ে গত শনিবার রাতেই থানায় মামলা করেন।

মামলার বিবরণে জানা গেছে, উপজেলার তবকপুর ইউনিয়নের বামনাছড়া সরকারপাড়া গ্রামের এক হতদরিদ্রের কন্যার (২০) সাথে দুই বছর পূর্বে একই ইউনিয়নের উমানন্দ মিয়াজীপাড়া গ্রামের দুলাল মিয়ার পুত্র সফিকুল ইসলামের (২৬) সাথে বিয়ে হয়। গৃহবধূর স্বামী কাজের সন্ধানে বেশির ভাগ সময় বাড়িতে না থাকার সুযোগে প্রতিবেশি প্রভাবশালী আহসান হাবীবের পুত্র তবকপুর ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাবেক আহবায়ক শাহজাহান আলী সুমন ওই গৃহবধূকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে প্রায় সময় কু-প্রস্তাব দিত। এক পর্যায়ে ওই গৃহবধূর সাথে জোর পূর্বক শারীরিক সম্পর্ক গড়ে তোলে। এতে ওই গৃহবধূ তিন মাসের অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়েন। এদিকে ঘটনা জানাজানি হলে স্বামীর পরিবারের লোকজন গৃহবধূকে বাড়ি থেকে তাড়িয়ে দেন। এ ঘটনার পর শাহজাহান আলী সুমন ওই গৃহবধূর পিতার বাড়িতে যাতায়াত শুরু করেন। গৃহবধূ তাকে বিয়ে করার জন্য চাপ দিলে তিনি কৌশলে সময় ক্ষেপন করেন।

গত শুক্রবার রাত ১০টার দিকে পুনরায় গৃহবধূর বাড়িতে গেলে পরিবারের লোকজন ও এলাকাবাসী তাকে আটক করে ইউপি চেয়ারম্যান ওয়াদুদ হোসেন মুকুলকে খবর দেন। চেয়ারম্যান রাতভর বিষয়টি আপোষ মিমাংসার চেষ্টা করে ব্যর্থ হন। পরে স্থানীয়রা থানায় খবর দিলে পুলিশ তাকে আটক করে থানায় নিয়ে আসেন। এ ঘটনায় গত শনিবার রাতে গৃহবধূ বাদি হয়ে শাহাজাহান আলী সুমনের বিরুদ্ধে তাকে ধর্ষণের অভিযোগে মামলা করেন। মামলা নং-০৯। নির্যাতিত ওই গৃহবধূর সাথে থানায় কথা হলে তিনি দাবি করেন, সুমন আমাকে বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে শারীরিক সম্পর্ক গড়ে তোলে। বর্তমানে আমি তিন মাসের অন্তঃসত্ত্বা। গর্ভের সন্তানের পিতৃপরিচয় সুমন অস্বীকার করায় বাধ্য হয়ে মামলা করেছি।

তবকপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ওয়াদুদ হোসেন মুকুল বলেন, ঘটনাটি মিমাংসা করার জন্য এলাকাবাসীকে সঙ্গে নিয়ে রাতভর বৈঠক করা হয়েছে। কিন্তু উভয় পক্ষ সমঝোতায় না আসায় সমাধান করা সম্ভব হয়নি। উলিপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (তদন্ত) আনোয়ারুল ইসলাম জানান, আটক শাহজাহান আলী সুমনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে। গতকাল ভিকটিমকে ডাক্তারি পরীক্ষা করার জন্য কুড়িগ্রাম সদর হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।

নারায়ণগঞ্জ : নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁ উপজেলায় মোগরাপাড়া ইউনিয়নের সোনাখালী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পঞ্চম শ্রেণির এক ছাত্রীকে ধর্ষণ করেছে বিদ্যালয়ের দপ্তরি মনির হোসেন। ঘটনার পর থেকে পলাতক রয়েছে দপ্তরি মনির। গত বুধবার সকালে সোনাখালী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের একটি কক্ষে এ ধর্ষণের ঘটনা ঘটে। ঘটনার পর ছাত্রী অসুস্থ হয়ে পড়লে গত শনিবার সকালে বিষয়টি জানাজানি হয়। এ ঘটনায় সন্ধ্যায় সোনারগাঁ থানায় মামলা করেছেন স্কুলছাত্রীর মা। বিষয়টি জেনে দপ্তরি মনির হোসেন বাড়ি ছেড়ে পালিয়ে যায়।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, উপজেলার মোগরাপাড়া ইউনিয়নের সোনাখালী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পঞ্চম শ্রেণির ওই ছাত্রী গত বুধবার সকাল সাড়ে ৮টার দিকে বিদ্যালয়ে যায়। তখন বিদ্যালয়ে কোনো শিক্ষার্থী-শিক্ষক উপস্থিত হয়নি। এ সুযোগে বিদ্যালয়ের দপ্তরি একই গ্রামের সিরাজুল ইসলামের ছেলে মনির হোসেন ওই ছাত্রীকে কৌশলে বিদ্যালয়ের একটি কক্ষে ডেকে নিয়ে ধর্ষণ করে। পরে অসুস্থ অবস্থায় স্কুলছাত্রী বিদ্যালয় থেকে বাড়ি চলে যায়। শনিবার সকালে শারীরিক অবস্থা অবনতি হলে বিষয়টি চাচীকে জানায় স্কুলছাত্রী। পরে তাকে স্থানীয় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেই সঙ্গে শনিবার সন্ধ্যায় বাদী হয়ে সোনারগাঁ থানায় মামলা করেন স্কুলছাত্রীর মা।

মাদারীপুর : মাদারীপুর সদর উপজেলার কালিকাপুর গ্রামের অষ্টম শ্রেণির এক স্কুলছাত্রী (১৩) ধর্ষণের শিকার হয়েছে। গত শনিবার দুপুরে ধর্ষণের অভিযোগে স্কুল ছাত্রী মাদারীপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে। স্কুল ছাত্রীর পরিবারের পক্ষ থেকে শনিবার বিকেলে থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।

স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, সদর উপজেলার কালিকাপুর গ্রামের আক্তার মাতুব্বর ছেলে আশরাফ মাতুব্বর (২৭) এর বিরুদ্ধে একই এলাকার বাড়ীর পাশের অষ্টম শ্রেণির এক স্কুলছাত্রীকে জোরপূর্বক ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। শনিবার দুপুরে ধর্ষণের অভিযোগে স্কুল ছাত্রী মাদারীপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে। এ বিষয়ে সদর মডেল থানায় অভিযোগ দায়ের করেছে স্কুলছাত্রীর পরিবার। ধর্ষণের শিকার ঐ ছাত্রী কালিকাপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণিতে পড়ে।

মাদারীপুর সদর হাসপাতালের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক ডা. মাহাবুব আবির বলেন, একটা মেয়ে ধর্ষণের অভিযোগে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে। তাকে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। মাদারীপুর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার বদরুল আলম মোল্লা বলেন, কালিকাপুর এলাকা থেকে এক স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। আমরা তদন্ত করছি। ঘটনার সত্যতা পেলে ধর্ষণকারীকে আইনের আওতায় আনা হবে।

বরগুনা : বরগুনায় একটি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের তিন ছাত্রীকে ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগে দুই স্কুলছাত্রকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গত শনিবার সকালে বরগুনার বামনা উপজেলার রামনা লঞ্চঘাট এলাকার একটি পরিত্যক্ত বাড়িতে তিন স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণচেষ্টার অভিযোগে তাদের গ্রেফতার করা হয়। এরা হলো উপজেলার উত্তর রামনা গ্রামের বাসিন্দা দশম শ্রেণির শিক্ষার্থী (১৬) এবং একই গ্রামের নবম শ্রেণির শিক্ষার্থী। তারা দুজন বন্ধু। এ ঘটনায় শনিবার রাতে নির্যাতিত এক ছাত্রীর অভিভাবক বাদি হয়ে বামনা থানায় ধর্ষণচেষ্টার অভিযোগে একটি মামলা করেছেন।



 

Show all comments
  • মোঃআকবর হোসাইন ৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ৫:৫৬ এএম says : 0
    গৃহ বধূ অন্তঃসত্ত্বা ! এটা কি ধর্ষণ? ছাত্র লীগ নেতার লীলাকীর্তণ।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ধর্ষণ

২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৯
১৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৯
১৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৯

আরও
আরও পড়ুন