Inqilab Logo

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ০৬ আগস্ট ২০২০, ২২ শ্রাবণ ১৪২৭, ১৫ যিলহজ ১৪৪১ হিজরী

স্পিকারকে জাতীয় পার্টির চিঠি

রওশনকে বিরোধীদলীয় নেতা করার প্রস্তাব

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১০ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ১২:০২ এএম

জাতীয় সংসদের বিরোধী দলীয় নেতা হিসেবে রওশন এরশাদের নাম প্রস্তাব করে স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীকে চিঠি দিয়েছে জাতীয় পার্টি। গতকাল রোববার সন্ধ্যায় জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য ব্যারিস্টার শামিম হায়দার পাটোয়ারী জাতীয় পার্টির পক্ষে এই চিঠি স্পিকারের দপ্তরে পৌছে দেন। জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান জিএম কাদের চিঠিতে স্বাক্ষর করেন। এর আগে বিকেলে জাতীয় সংসদের লবীতে জাতীয় পার্টির সংসদীয় দলের সভা অনুষ্ঠিত হয়। ওই সভায় বিরোধীদলীয় নেতা হিসেবে রওশন এরশাদের নাম সর্বসম্মতভাবে প্রস্তাব করা হয়। তবে বিরোধীদলীয় উপনেতা কে হবেন তা এখনও ঠিক করতে পারেনি জাতীয় পার্টি। চলতি সংসদে রওশন এরশাদ বিরোধীদলীয় উপনেতার দায়িত্বে আছেন। তিনি বিরোধী দলীয় নেতার দায়িত্বে আসীন হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে উপনেতার পদটি শূন্য হবে। এরপরপরই এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেবে জাতীয় পার্টি।
সংসদীয় দলের বৈঠকে শেষে জাতীয় পার্টির মহাসচিব ও বিরোধীদলীয় চিফ হুইপ মশিউর রহমান রাঙ্গা সাংবাদিকদের বলেন, ‘আমাদের দলের সংসদ সদস্যরা সংসদীয় দলের সভায় বিরোধী দলের নেতা হিসেবে রওশন এরশাদকে মনোনয়ন করে স্পিকারের কাছে চিঠি দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। দলের পক্ষ থেকেও একটি চিঠি দিয়ে জানিয়ে দেয়া হয়েছে’। তিনি বলেন, রোববার জাতীয় সংসদের কার্যউপদেষ্টা কমিটির বৈঠকে রওশন এরশাদ বিরোধী দলীয় উপনেতা হিসেবে যোগ দিয়েছেন। একটু আগে আমরা লবীতে মিটিং করেছি। এখানে প্রায় অধিকাংশ সংসদ সদস্য উপস্থিত ছিলেন। তবে বিরোধী দলীয় উপ-নেতার বিষয়টি এখনও ঠিক হয়নি। বিরোধীদলীয় নেতাসহ অন্যান্যরা বসে এটি ঠিক করা হবে’।
এর আগে শনিবার রাতে বারিধারা ক্লাবে রুদ্ধদ্বার বৈঠকে সিদ্ধান্ত হয় জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালন করবেন জিএম কাদের। জাতীয় সংসদের বিরোধীদলীয় নেতার দায়িত্ব পালন করবেন রওশন এরশাদ। আর পার্টির প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের মৃত্যুতে শূন্য হওয়া রংপুর-৩ আসনের উপনির্বাচনে প্রার্থী হবেন তার ছেলে সাদ এরশাদ। এভাবেই সমঝোতায় পৌছান জাতীয় পার্টির দুই শীর্ষ নেতা জিএম কাদের এবং রওশন এরশাদ। দলের চেয়ারম্যান, সংসদে বিরোধীদলীয় নেতা নির্বাচন এবং রংপুর-৩ আসনের উপ-নির্বাচনে প্রার্থী মনোনয়ন নিয়েই মূলত এই বৈঠক হয়।
জিএম কাদের, রওশন এরশাদ এবং জাতীয় পার্টির মহাসচিব মশিউর রহমান রাঙ্গা এমপি ছাড়াও বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন দলটির প্রেসিডিয়াম সদস্য ব্যারিস্টার আনিসুল ইসলাম মাহমুদ এমপি, ফখরুল ইমাম এমপি, মুজিবুল হক চুন্নু এমপি, একেএম সেলিম ওসমান এমপি, অ্যাডভোকেট কাজী ফিরোজ রশীদ এমপি, জিয়াউদ্দিন আহমেদ বাবলু, সৈয়দ আবুল হোসেন বাবলা এমপি, লে. জেনারেল (অব.) মাসুদ উদ্দীন চৌধুরী এমপি এবং এসএম ফয়সল চিশতী।
উল্লেখ্য, গত একসপ্তাহ ধরে জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান ও সংদের বিরোধীদলীয় নেতা হওয়া নিয়ে অভ্যন্তরীণ সঙ্কট তৈরি হয় জাতীয় পার্টির ভেতরে। গত বৃহস্পতিবার এক সংবাদ সম্মেলনে জাতীয় পার্টির একাংশ রওশন এরশাদকে দলের চেয়ারম্যান ঘোষণা করেন। পরবর্তী সময়ে ওইদিনই সংবাদ সম্মেলন ডেকে জিএম কাদের বলেন, ‘রওশন এরশাদকে সম্মান করি, যতটুকু শুনেছি, তিনি নিজে থেকে নিজের কথা বলেননি। শৃঙ্খলা ভঙ্গকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে। বিষয়টি নিয়ে অস্থির হওয়ার কিছু নেই। জাতীয় পার্টি ভাঙেনি। কোনও ভাঙনের মুখে পড়েনি। যেকোনও ব্যক্তি যেকোনও ঘোষণা দিলেই তো তা বাস্তবায়িত হয় না’।
এর আগে মঙ্গলবার বিকেলে জাতীয় পার্টির দলীয় প্যাডে নিজেকে সংসদে বিরোধীদলীয় নেতার পদে নিয়োগ দিতে স্পিকারকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে চিঠি দেন জিএম কাদের। পরদিন বুধবার জিএম কাদেরের চিঠির বৈধতা নিয়ে প্রশ্ন তুলে তা গ্রহণ না করার অনুরোধ জানিয়ে পাল্টা চিঠি দেন রওশন এরশাদ। এ অবস্থার মধ্যেই সঙ্কট উত্তোরণে বৈঠক করেন দলটির দুই শীর্ষ নেতা জিএম কাদের এবং রওশন এরশাদ। রাত সোয়া ১১ টা পর্যন্ত এই বৈঠক চলে।
এই বৈঠকে বিরোধীদলীয় নেতা হিসেবে রওশন এরশাদকে সর্বসম্মতভাবে নির্বাচিত করে তা লিখিতভাবে স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীকে অবহিত করার সিদ্ধান্ত হয়।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ