Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার, ২০ অক্টোবর ২০১৯, ০৪ কার্তিক ১৪২৬, ২০ সফর ১৪৪১ হিজরী

এরশাদকে নিয়ে গণতন্ত্র হত্যা করেছে শেখ হাসিনা -মির্জা ফখরুল

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ৩:৫৬ পিএম

হুসেইন মুহম্মদ এরশাদকে নিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশের গণতন্ত্র হত্যা করেছে বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তিনি বলেন, ভোটারবিহীন বর্তমান অবৈধ সরকারের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এরশাদকে ক্ষমতা দখলের সুযোগ করে দিয়েছিলেন। এমনকি পরবর্তীকালে এরশাদকে সঙ্গে নিয়েই এদেশের গণতন্ত্রকে হত্যা করেছেন এবং এরশাদকে গৃহপালিত বিরোধীদলীয় নেতা বানিয়েছেন শেখ হাসিনা।

সোমবার (০৯ সেপ্টেম্বর) দুপুরে জাতীয়তাবাদী মহিলা দলের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষ্যে রাজধানীর শের-ই বাংলা নগরে চন্দ্রিমা উদ্যানে বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা ও সাবেক প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের কবরে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানানোর পর সাংবাদিকদের কাছে তিনি এসব কথা বলেন।

এক প্রশ্নের জবাবে মির্জা ফখরুল বলেন, তিনি (প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা) সংসদে প্রায়ই অসত্য কথা বলেন। যে কথাগুলোর কোনও ভিত্তি নেই। ইতিহাস যার সাক্ষ্য দেয় না। বরং সত্য হচ্ছে এটাই, একজন নির্বাচিত প্রেসিডেন্টকে (জিয়াউর রহমান) সরিয়ে এরশাদ যখন রাষ্ট্রক্ষমতা দখল করেন, তখন তিনি (শেখ হাসিনা) ভারত সীমান্তে বলেছিলেন, ‘আই অ্যাম নট আনহ্যাপি’। অর্থাৎ তিনি ‘অখুশি নন’। পরবর্তীকালে তাঁর কাজে কর্মে আমরা সেটাই বুঝতে পারি।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, এরশাদকে সঙ্গে নিয়েই এই দেশের গণতন্ত্রকে ধ্বংস করেছেন, মানুষের অধিকার কেড়ে নিয়েছেন শেখ হাসিনা। বরাবরই তিনি এরশাদকে সঙ্গে নিয়ে এ্যালায়েন্স করেছেন। তাদেরকে বিরোধীদলে বসিয়েছেন। যেটাকে আমরা সবসময় বলি, এরশাদ হচ্ছেন শেখ হাসিনার গৃহপালিত বিরোধীদলীয় নেতা।

মির্জা ফখরুল বলেন, বাংলাদেশের গণতন্ত্রের পুনঃপ্রবর্তক ও আধুনিক বাংলাদেশের রূপকার ছিলেন জিয়াউর রহমান। আজকের গণতন্ত্রের অন্যতম সেনানী- যিনি আজীবন গণতন্ত্রের জন্য লড়াই করেছেন সেই খালেদা জিয়াকে অবৈধ দখলদার সরকার বেআইনিভাবে কারাগারে আটকে রেখেছে।

বেগম জিয়ার শারীরিক অবস্থা তুলে ধরে তিনি বলেন, দেশনেত্রী আজ অত্যন্ত অসুস্থ। আজকের এই দিনে মহিলা দলের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে আল্লাহর কাছে এই দোয়া করছি, মহান করুণাময় আল্লাহ তাঁকে যেন অবিলম্বে মুক্ত করেন, সুস্থ করেন। আমাদের মাঝে নেতৃত্ব দিয়ে দেশ ও গণতন্ত্রকে আবার যেন মুক্ত করতে পারেন আপসহীন নেত্রী খালেদা জিয়া।

বিএনপির অনত্যম এই শীর্ষ নেতা বলেন, আজকে খালেদা জিয়াকে মুক্ত করার, গণতন্ত্রকে পুনরুদ্ধার করার শপথ নিয়েছে মহিল দল। আমরা আশা করি, সম্মিলিত আন্দোলন-সংগ্রামের মধ্য দিয়ে দেশনেত্রী খালেদা জিয়াকে এবং গণতন্ত্রকে মুক্ত করবো ইনশাল্লাহ।

এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন মহিলা দলের সভাপতি আফরোজা আব্বাস, সাধারণ সম্পাদক সুলতানা আহমেদ, সিনিয়র সহ-সভাপতি নূর জাহান ইয়াসমিন, সহ-সভাপতি জেবা খান, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক হেলেন জেরিন খান, মহানগর উত্তরের সহ-সভাপতি মেহেরুন্নেসা হক, সাধারণ সম্পাদক আমেনা খাতুন, যুগ্ম-সম্পাদক রাবেয়া আলম, মহানগর দক্ষিণের সভাপতি রাজিয়া আলিম, সাধারণ সম্পাদক শামসুন্নাহার ভূইয়া ও যুগ্ম-সম্পাদক রোকেয়া চৌধুরী বেবী প্রমূখ।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: মির্জা ফখরুল


আরও
আরও পড়ুন